ফেসবুকের ‍সুফল ও কুফল বিষয়ে দুই বন্ধুর সংলাপ

ফেসবুকের ‍সুফল ও কুফল বিষয়ে দুই বন্ধুর সংলাপ রচনা কর


জামাল : আরে দোস্‌ত, কেমন আছিস? তোকে তো আজকাল দেখাই যায় না।

কামাল : আছি ভালো। ঢাকায় বেড়াতে গিয়েছিলাম। তোর খবর কী?

জামাল : ভালো। তবে ফেইসবুকের অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে গেছি।

কামাল : আমারও তো একই অবস্থা। যদিও ফেইসবুক একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম।

জামাল : কিন্তু এখন তো এটা অসামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হয়ে উঠেছে।

কামাল : তা উঠেছে। কিন্তু এ জন্য তো আর ফেইসবুককেই দায়ী করা যায় না।

জামাল : দায়ী করছি না, তবে অপব্যবহারের কুফল নিয়ে খুবই চিন্তার মধ্যে আছি।

কামাল : আসলে সব প্রযুক্তিরই ভালো-মন্দ দুটো দিক রয়েছে, যা ব্যবহারকারীর ব্যবহারের মাধ্যমে প্রকাশ পায়।

জামাল : ফেইসবুককে অনেকে এখন রাজনীতি চর্চার ক্ষেত্র বানিয়ে একে বিষিয়ে তুলেছে।

কামাল : অথচ সামাজিক কল্যাণে ও জনমত গঠনে ফেইসবুক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।

জামাল : শিক্ষা-সংস্কৃতি চর্চায় এর গুরুত্বকে আমি খাটো করে দেখছি না তবে বিনোদনের নামে যে অপসংস্কৃতি ও অশালীন পরিবেশ ছড়িয়ে দিচ্ছে তাতে তো তরুণ প্রজন্ম বিপথগামী হচ্ছে।

কামাল : তা হচ্ছে, কিন্তু সে ব্যাপারে ফেইসবুক কর্তৃপক্ষও সজাগ রয়েছে। তারা কিছু কিছু কঠোর পদক্ষেপও নিচ্ছে।

জামাল : পদক্ষেপ যদিও নেওয়া হচ্ছে কিন্তু প্রতিরোধ পুরোপুরি সম্ভব হচ্ছে বলে মনে হয় না।

কামাল : আসলে এক্ষেত্রে ফেইসবুক ব্যবহারকারীদেরও সচেতন হতে হবে।

জামাল : সেটা অবশ্যই সত্য। সবাই সচেতন হলে দুষ্টরা আর পাত্তা পাবে না।

কামাল : আসলে ফেইসবুকের কল্যাণকর ভূমিকাকেই কতিপয় খারাপ মানুষ প্রশ্নবিদ্ধ করে তুলেছে।

জামাল : আর এজন্য অভিবাবকগণ আজ চরমভাবে আতংকগ্রস্ত হয়ে পড়েছে।

কামাল : শিক্ষকরাও নিরুৎসাহিত করছে ফেইসবুক ব্যবহারের ক্ষেত্রে।

জামাল : আসলে সময়ের সদ্ব্যবহার করে যদি প্রয়োজনীয় কাজে ফেইসবুক ব্যবহার করা হয় তবে তো সবার জন্যই মঙ্গল।

কামাল : হ্যাঁ, ফেইসবুক ব্যবহারের ক্ষেত্রে সবাইকে সচেতন হতে হবে। তা হলেই কুফলের চেয়ে সুফল পাওয়া যাবে শি। চল এখন যাওয়া যাক।

1 Comments

  1. মে লিখেছেন এই সংলাপটি তিনি খুবই ভালো লিখেছেন 😊

    ReplyDelete
Post a Comment
Previous Post Next Post