My All Garbage

Shuchi Potro
সাধারণ জ্ঞান বাংলা ব্যাকরণ বাংলা রচনা সমগ্র ভাবসম্প্রসারণ তালিকা অনুচ্ছেদ চিঠি-পত্র ও দরখাস্ত প্রতিবেদন প্রণয়ন অভিজ্ঞতা বর্ণনা সারাংশ সারমর্ম খুদে গল্প ভাষণ লিখন দিনলিপি সংলাপ অ্যাসাইনমেন্ট-২০২১ English Grammar Composition / Essay Paragraph Letter, Application & Email Dialogue List Completing Story Report Writing Graphs & Charts পুঞ্জ সংগ্রহ বই পোকা হ য ব র ল তথ্যকোষ পাঠ্যপুস্তক CV & Job Application My Study Note আমার কলম সাফল্যের পথে
About Contact Service Privacy Terms Disclaimer Earn Money


বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শিক্ষা সহায়ক ওয়েবসাইট
HSC Preparation 2022

চোখ উঠার কারণ, লক্ষণ ও প্রতিকার বা চিকিৎসা

চোখ উঠা বা কনজাংটিভাইটিস কি?

চোখ লাল হওয়ার কারণ:

চোখ উঠা বা কনজাংটিভাইটিস হল স্বচ্ছ ঝিল্লির (কনজাংটিভা) একটি প্রদাহ বা সংক্রমণ যা আপনার চোখের পাতাকে লাইন করে এবং আপনার চোখের বলের সাদা অংশকে ঢেকে রাখে। চোখ লাল হওয়ার কারণ: যখন কনজেক্টিভায় ছোট রক্তনালীগুলি স্ফীত হয়, তখন সেগুলি আরও দৃশ্যমান হয়। এই কারণেই আপনার চোখের সাদা অংশ লাল বা গোলাপী দেখায়।

চোখ উঠা সাধারণত ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাল সংক্রমণ, অ্যালার্জির প্রতিক্রিয়া, বা - শিশুদের মধ্যে - একটি অসম্পূর্ণভাবে খোলা টিয়ার নালী দ্বারা সৃষ্ট হয়। সতবে চিকিৎসার মাধ্যমে কনজাংটিভাইটিস এর চিকিৎসা করা সম্ভব।

চোখ উঠার কারণ, লক্ষণ, করণীয় ও প্রতিকার

চোখ ওঠার লক্ষণ ও প্রতিকার কি?

চোখ উঠার লক্ষণ / কনজাংটিভাইটিস এর লক্ষণ

সবচেয়ে সাধারণ চোখ উঠার লক্ষণগুলির মধ্যে রয়েছে:
  • এক বা উভয় চোখে লালভাব,
  • এক বা উভয় চোখে চুলকানি,
  • এক বা উভয় চোখে একটি তীক্ষ্ণ অনুভূতি,
  • এক বা উভয় চোখে একটি স্রাব যা রাতে একটি ভূত্বক তৈরি করে যা সকালে আপনার চোখ বা চোখ খুলতে বাধা দিতে পারে,
  • চোখ খোলার সময় চোখের পাপড়ি ছিঁড়ে যাওয়া।

চোখ উঠার কারণ কি?

চোখ উঠার কারণসমূহ:

চোখ উঠার কারণগুলির মধ্যে রয়েছে:
  • ভাইরাস
  • ব্যাকটেরিয়া
  • এলার্জি
  • চোখে রাসায়নিক স্প্ল্যাশ
  • চোখে কোনো বস্তু পড়া
  • নবজাতকের মধ্যে, একটি অবরুদ্ধ টিয়ার নালী।

চোখ উঠার ঘরোয়া চিকিৎসা কি?

ভাইরাস এবং ব্যাকটেরিয়া কনজাংটিভাইটিস

চোখ উঠা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সাধারণত অ্যাডেনোভাইরাস দ্বারা সৃষ্ট হয় তবে হার্পিস সিমপ্লেক্স ভাইরাস, ভেরিসেলা-জোস্টার ভাইরাস এবং করোনাভাইরাস রোগ সৃষ্টিকারী ভাইরাস সহ অন্যান্য বিভিন্ন ভাইরাসের কারণেও হতে পারে।

ভাইরাস এবং ব্যাকটেরিয়াল কনজাংটিভাইটিস উভয়ই সর্দি বা শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণের লক্ষণগুলির সাথে ঘটতে পারে, যেমন গলা ব্যথা। কন্টাক্ট লেন্সগুলি পরা যা সঠিকভাবে পরিষ্কার করা হয় না বা আপনার নিজের নয় তা ব্যাকটেরিয়াল কনজাংটিভাইটিস হতে পারে।

উভয় প্রকার খুব সংক্রামক। এগুলি সংক্রামিত ব্যক্তির চোখ থেকে নিঃসৃত তরলের সাথে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এক বা উভয় চোখ প্রভাবিত হতে পারে।

চোখ উঠার কারণ

চোখ উঠার কারণগুলির মধ্যে রয়েছে:

  • এমন কিছুর সংস্পর্শে আসা যার জন্য আপনার অ্যালার্জি হয়। (অ্যালার্জিক কনজাংটিভাইটিস এর ক্ষেত্রে)
  • ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়াজনিত কনজেক্টিভাইটিস দ্বারা সংক্রামিত কারো সংস্পর্শে আসা।
  • কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করা, বিশেষ করে নিজের মাপের বেশি পরিধান লেন্স।
  • লেন্স পরিষ্কার না করে পুনরায় ব্যাবহার করা।
  • আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে চলাফেরা করলে। চোখ উঠার সম্ভাবনা অনেক অংশে বেড়ে যায়।

কনজাংটিভাইটিস এর চিকিৎসা কি?

চোখ উঠা করনীয়:

চোখ উঠা বিস্তার নিয়ন্ত্রণ করতে ভাল স্বাস্থ্যবিধি অনুশীলন করুন। চোখ উঠা করনীয় ক্ষেত্রে:
  • আপনার হাত দিয়ে আপনার চোখ স্পর্শ করবেন না। যদিও আপনার হাত ধোয়া,
  • প্রতিদিন পরিষ্কার তোয়ালে এবং ওয়াশক্লথ ব্যবহার করুন,
  • তোয়ালে বা ওয়াশক্লথ শেয়ার করবেন না,
  • মাঝে মাঝে আপনার বালিশের কাপড় পরিবর্তন করুন,
  • আপনার চোখের প্রসাধনী যেমন মাস্কারা ব্যাবহার করবেন না,
  • চোখের প্রসাধনী বা ব্যক্তিগত চোখের যত্ন আইটেম শেয়ার করবেন না।

নবজাতকের চোখ উঠা প্রতিরোধ কি?

নবজাতকের চোখ উঠা:

নবজাতকের চোখ সাধারণত মায়ের জন্ম কালে উপস্থিত ব্যাকটেরিয়ার জন্য সংবেদনশীল। এই ব্যাকটেরিয়া মায়ের কোন উপসর্গ সৃষ্টি করে না। বিরল ক্ষেত্রে, এই ব্যাকটেরিয়াগুলি শিশুদের চোখের একটি গুরুতর রূপের কনজাংটিভাইটিস তৈরি করতে পারে যা চক্ষু সংরক্ষণের জন্য দেরি না করে চিকিৎসার প্রয়োজন হয় যা চক্ষু রক্ষা করতে পারে। তাই জন্মের পরপরই প্রতিটি নবজাতকের চোখে একটি অ্যান্টিবায়োটিক মলম প্রয়োগ করা হয়। মলম চোখের সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

চোখ উঠার ঘরোয়া চিকিৎসা কি?

চোখ উঠার লক্ষণ এবং উপসর্গগুলি দূর না হওয়া পর্যন্ত তা মোকাবেলা করতে সাহায্য করার জন্য, চেষ্টা করুন:

পরিষ্কার ঠান্ডা পানি

আপনার চোখে একটি কম্প্রেস প্রয়োগ করুন। একটি কম্প্রেস তৈরি করতে, একটি পরিষ্কার, লিন্ট-মুক্ত কাপড় জলে ভিজিয়ে রাখুন এবং এটি আপনার বন্ধ চোখের পাতায় আলতোভাবে প্রয়োগ করার আগে এটি মুছুন। সাধারণত, একটি ঠাণ্ডা জলের কম্প্রেস সবচেয়ে প্রশান্তিদায়ক বোধ করবে, তবে আপনি একটি উষ্ণ সংকোচও ব্যবহার করতে পারেন যদি এটি আপনার কাছে ভাল মনে হয়। যদি গোলাপী চোখ শুধুমাত্র একটি চোখকে প্রভাবিত করে তবে একই কাপড় দিয়ে উভয় চোখ স্পর্শ করবেন না। এটি গোলাপী চোখের এক চোখ থেকে অন্য চোখে ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি হ্রাস করে।

আই ড্রপ

আইড্রপ ব্যবহার করে দেখুন। কৃত্রিম অশ্রু নামক ওভার-দ্য-কাউন্টার আইড্রপগুলি উপসর্গগুলি উপশম করতে পারে। কিছু চোখের ড্রপগুলিতে অ্যান্টিহিস্টামাইন বা অন্যান্য ওষুধ থাকে যা অ্যালার্জিজনিত কনজাংটিভাইটিস আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য সহায়ক হতে পারে।

কন্টাক্ট লেন্স

কন্টাক্ট লেন্স পরা বন্ধ করুন। আপনি যদি কন্টাক্ট লেন্স পরেন, আপনার চোখ ভালো না হওয়া পর্যন্ত আপনাকে সেগুলি পরা বন্ধ করতে হতে পারে। কন্টাক্ট লেন্স ছাড়া আপনাকে কতক্ষণ থাকতে হবে তা নির্ভর করে আপনার কনজাংটিভাইটিস কিসের কারণে। আপনার ডিসপোজেবল পরিচিতিগুলি, সেইসাথে আপনার পরিষ্কারের সমাধান এবং লেন্স কেস ফেলে দেওয়া উচিত কিনা তা আপনার ডাক্তারকে জিজ্ঞাসা করুন। যদি আপনার লেন্সগুলি নিষ্পত্তিযোগ্য না হয় তবে সেগুলি পুনরায় ব্যবহার করার আগে ভালভাবে পরিষ্কার করুন।

চোখ উঠা বিষয়ে কুসংস্কার

কারো চোখ উঠলে তার চোখে চোখ রাখলে বা তার চোখের দিকে তাকালে তারও চোখ উঠে, এটি একটি কুসংস্কার

চোখ উঠার ঔষধ, চোখ উঠার ড্রপ কি?

চোখ উঠার ঔষধের মধ্যে রয়েছে বা চোখ উঠার ড্রপ হলো:

জীবাণু মুক্ত চোখের ড্রপ অর্থাৎ chlorphen গ্রুপের যেকোনো একটি চোখের ড্রপ ব্যাবহার করতে পারবেন। চোখ উঠার ড্রপ হিসাবে এই ড্রপ গুলোই ব্যাবহার করা হয়।

সতর্কতা : আমি কোনো ডাক্তার নয়। তাই ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ব্যাবহার করে কোনো ক্ষতি হলে আমি দ্বায়ী থাকব না।

চোখ উঠা সম্পর্কে সাধারণ প্রশ্ন-উত্তর

১. চোখ উঠলে কি কি খাওয়া যাবে না?


উত্তর : সবার আগে জানতে হবে আপনার চোখ উঠার কারণ কি? তার পর ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী খাবার খেতে হবে।

২. বাচ্চাদের চোখ উঠলে করণীয়?


উত্তর : বাচ্চাদের চোখ উঠলে করণীয় হলো যতো দ্রুত সম্ভব ডাক্তারের পরামর্শ নিন। কারণ ছোট বাচ্চাদের সবসময় সাবধানে রাখতে হবে।

৩. চোখ লাল হলে ড্রপ / চোখ লাল হলে কোন ড্রপ দিব?


উত্তর : বাজারে আপনি অনেক ড্রপ পেয়ে যাবেন যেগুলো সাধারণত বেশি দাম নয় ৫০-১০০ টাকা। সেগুলোর যেকোনো একটি নিতে পারবেন।

৪. চোখ উঠা কি ছোঁয়াচে?


উত্তর : হ্যাঁ, চোখ উঠা অতিমাত্রায় ছোঁয়াচে।

৫. চোখ উঠার ঔষধ কি?


উত্তর : চোখ উঠার ঔষধ একমাত্র ড্রপ।

1 comment:


Show Comments