My All Garbage

Shuchi Potro
সাধারণ জ্ঞান বাংলা ব্যাকরণ বাংলা রচনা সমগ্র ভাবসম্প্রসারণ তালিকা অনুচ্ছেদ চিঠি-পত্র ও দরখাস্ত প্রতিবেদন প্রণয়ন অভিজ্ঞতা বর্ণনা সারাংশ সারমর্ম খুদে গল্প ভাষণ লিখন দিনলিপি সংলাপ অ্যাসাইনমেন্ট-২০২১ English Grammar Composition / Essay Paragraph Letter, Application & Email Dialogue List Completing Story Report Writing Graphs & Charts পুঞ্জ সংগ্রহ বই পোকা হ য ব র ল তথ্যকোষ পাঠ্যপুস্তক CV & Job Application My Study Note আমার কলম সাফল্যের পথে
About Contact Service Privacy Terms Disclaimer Earn Money


বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শিক্ষা সহায়ক ওয়েব সাইট

ব্যাকরণ : সন্ধি

সন্ধি

পরস্পর সন্নিহিত ধ্বনির মিলনকে সন্ধি বলে। সন্ধি আলোচনা করা হয় ধ্বনিতত্ত্বে। সন্ধি শব্দটি গঠিত হয়েছে উপসর্গের মাধ্যমে। ‘সন্ধি’ ভাঙলে হয় = সম্ + ধি।

কোনটা কোন সন্ধি?
স্বরধ্বনির সঙ্গে স্বরধ্বনির মিলনকে স্বরসন্ধি বলে। অর্থাৎ, স্বরধ্বনি + স্বরধ্বনি = স্বরসন্ধি।

যেমন, শত + এক = শতেক। এখানে, অ এবং এ ধ্বনির সন্ধি ঘটেছে।

স্বরধ্বনির সঙ্গে ব্যঞ্জনধ্বনি, ব্যঞ্জনধ্বনির সঙ্গে স্বরধ্বনি, কিংবা ব্যঞ্জনধ্বনির সঙ্গে ব্যঞ্জনধ্বনির মিলনকে ব্যঞ্জনসন্ধি বলে। অর্থাৎ,
স্বরধ্বনি + ব্যঞ্জনধ্বনি
ব্যঞ্জনধ্বনি + স্বরধ্বনি
ব্যঞ্জনধ্বনি + ব্যঞ্জনধ্বনি

যেমন, দিক্ + নির্ণয় = দিকনির্ণয়। এখানে ক্ এবং ন ধ্বনির সন্ধি ঘটেছে।

সংস্কৃত মূল শব্দ অনুযায়ী কিছু কিছু শব্দের শেষে বিসর্গ আছে বলে ধরে নেওা হয়। যেমন, মনঃ, বনঃ, শিরঃ, ততঃ, পরিঃ, পুরঃ ইত্যাদি। এ রকম বিসর্গযুক্ত শব্দের সন্ধিকে বিসর্গসন্ধি বলে। যেমন,
ততঃ + অধিক = ততোধিক।

স্বরসন্ধি
সূত্র : ১
অ/আ + অ/আ = আ

নব + অন্ন = নবান্ন
বিদ্যা + আলয় = বিদ্যালয়

সূত্র : ২
ই/ঈ + ই/ঈ = ঈ

রবি + ইন্দ্র = রবীন্দ্র
পরি + ঈক্ষা = পরীক্ষা

সূত্র : ৩
উ/ঊ + উ/ঊ = ঊ

মরু + উদ্যান = মরূদ্যান
কটু + উক্তি = কটূক্তি।

সূত্র : ৪
অ/আ + ই/ঈ = এ

শুভ + ইচ্ছা = শুভেচ্ছা
যথা + ইষ্ট = যথেষ্ট।

সূত্র : ৫
অ/আ + উ/ঊ = ও

সূর্য + উদয় = সূর্যোদয়
কথা + উপকথন = কথোপকথন।

সূত্র : ৬
ই/ঈ + অন্য স্বর = য্ + স্বর

অতি + অন্ত = অত্যন্ত
ইতি + আদি = ইত্যাদি।

সূত্র : ৭
উ/ঊ + অন্য স্বর = ব্ + স্বর

সু + আগত = স্বাগত
তনু + ঈ = তন্বী।


সূত্রের সাহায্যে সন্ধিবিচ্ছেদ
শব্দের প্রথম অক্ষর (syllable) দেখে সন্ধিবিচ্ছেদ করা যেতে পারে। যেমন :
শব্দের প্রথম অক্ষরে ‘অয়’ থাকলে সন্ধিবিচ্ছেদে ‘এ’ হয়। এই সূত্রে, শয়ন শব্দের শুরুতে শয় আছে। ফলে শয়ন = শে + অন হবে। একই ভাবে নয়ন = নে + অন। শব্দের প্রথম অক্ষরে ‘আয়’ থাকলে সন্ধিবিচ্ছেদে ‘ঐ’ হয়। এই সূত্রে, গায়ক শব্দের শুরুতে গায় আছে। ফলে গায়ক = গৈ + অক। একইভাবে, নায়ক = নৈ + অক। শব্দের প্রথম অক্ষরে ‘অব’ থাকলে সন্ধিবিচ্ছেদে ‘ও’ হয়। এই সূত্রে, লবণ শব্দের শুরুতে লব আছে। ফলে লবণ = লো + অন। একই ভাবে পবন = পো + অন। শব্দের প্রথম অক্ষরে ‘আব’ থাকলে সন্ধিবিচ্ছেদে ‘ঔ’ হয়। এই সূত্রে, নাবিক শব্দের শুরুতে আব আছে। ফলে, নাবিক = নৌ + ইক। একইভাবে, ভাবুক = ভৌ + উক।

ব্যঞ্জনসন্ধি
সব ব্যঞ্জনসন্ধি আসলে কোনো না কোনো সমীভবন। একটি ধ্বনির প্রভাবে পাশের ধ্বনি বদলে গেলে তাকে সমীভবন বলে।

দিক্ + অন্ত = দিগন্ত
[ঘোষধ্বনি অ-এর প্রভাবে ক হয়েছে গ]

বাক্ + দান = বাগ্‌দান
[ঘোষধ্বনি দ-এর প্রভাবে ক হয়েছে গ]

দিক্ + নির্ণয় = দিঙ্ নির্ণয়
[ন-এর প্রভাবে ক হয়েছে ঙ]

বিপদ + জনক = বিপজ্জনক
[জ-এর প্রভাবে দ হয়েছে জ]

যাবৎ + জীবন = যাবজ্জীবন
[জ-এর প্রভাবে ত হয়েছে জ]

উৎ + ছেদ = উচ্ছেদ
[ছ-এর প্রভাবে ত হয়েছে চ]

উৎ + লাস = উল্লাস
[ল-এর প্রভাবে ত হয়েছে ল]

মৃৎ + ময় = মৃন্ময়
[ম-এর প্রভাবে ত হয়েছে ন]

জগৎ + নাথ = জগন্নাথ
[ন-এর প্রভাবে ত হয়েছে ন]

শম্ + কা = শঙ্কা
[ক-এর প্রভাবে ম হয়েছে ঙ]

সম্ + চয় = সঞ্চয়
[চ-এর প্রভাবে ম হয়েছে ঞ]

সম্ + তাপ = সন্তাপ
[ত-এর প্রভাবে ম হয়েছে ন]

কৃষ + তি = কৃষ্টি
[ষ-এর প্রভাবে ত হয়েছে ট]


নিপাতনে সিদ্ধ
কতগুলো সন্ধি কোনো নিয়ম অনুসারে হয় না। এগুলোকে বলা হয় নিপাতনে সিদ্ধ।

নিপাতনে সিদ্ধ স্বরসন্ধি
প্র + ঊঢ় = পৌঢ়
(সূত্র অনুযায়ী প্রোঢ় হওয়ার কথা)

কুল + অটা = কুলটা
(সূত্র অনুযায়ী কুলাটা হওয়ার কথা)

গো + অক্ষ = গবাক্ষ
(সূত্র অনুযায়ী গবক্ষ হওয়ার কথা)

মার্ত + অণ্ড = মার্তণ্ড
(সূত্র অনুযায়ী মার্তাণ্ড হওয়ার কথা)

নিপাতনে সিদ্ধ ব্যঞ্জনসন্ধি
এক + দশ = একাদশ
তৎ + কর = তস্কর
পর + পর = পরস্পর
বৃহৎ + পতি = বৃহস্পতি
গো + পদ = গোষ্পদ
ষট্ + দশ = ষোড়শ
পতৎ + অঞ্জলি = পতঞ্জলি
মনস + ঈষা = মনীষা
আ + চর্য = আশ্চর্য


বিসর্গসন্ধি
বিসর্গসন্ধিতে বিসর্গ (ঃ) পরিবর্তিত হয়ে চার ধরনের রূপান্তর ঘটে :

১. বিসর্গ বিদ্যমান থাকে। যেমন -
মনঃ + কষ্ট = মনঃকষ্ট
শিরঃ + পীড়া = শিরঃপীড়া




২. বিসর্গ ‘ও’ হয়ে যায়। যেমন -
মনঃ + যোগ = মনোযোগ
ততঃ + অধিক = ততোধিক

৩. বিসর্গ ‘র’ হয়ে যায়। যেমন,
নিঃ + দয় = নির্দয়
নিঃ + আকার = নিরাকার

৪. বিসর্গ শ / ষ / স হয়ে যায়। যেমন -
নিঃ + চয় = নিশ্চয়
নিঃ + ঠুর = নিষ্ঠুর
নিঃ + তেজ = নিস্তেজ

শব্দগঠনে সন্ধি
সন্ধি শব্দগঠনের একটি হায়ক প্রক্রিয়া। শব্দ গঠিত হয় মূলত তিন উপায়ে:

১. সমাসের মাধ্যমে শব্দগঠন :
নীল + পদ্ম = নীলপদ্ম
নীল + আকাশ = নীলাকাশ

২. উপসর্গের মাধ্যমে শব্দগঠন :
দোকান + দার দোকানদার
নৌ + ইক = নাবিক

এখানে নীলপদ্ম, উপহার বা দোকানদার শব্দগুলো গঠনে সন্ধির কোনো সহায়তা নেই। কিন্তু নীলাকাশ, উদ্ধার বা নাবিক শব্দগুলো গঠনে সন্ধি সহায়ক ভূমিকা পালন করছে।

কিছু গুুত্বপূর্ণ উদাহরণ :
অধি + ইন = অধীন
অনু + উদিত = অনূদিত
উৎ + ভিদ = উদ্ভিদ
উৎ + ভব = উদ্ভব
যোগী + ইন্দ্র = যোগীন্দ্র
সম্ + খ্যা = সংখ্যা
সদ্যঃ + জাত = সদ্যোজাত
মনঃ + জগৎ = মনোজগৎ
উৎ + নয়ন = উন্নয়ন

অনুশীলন :
১। ‘পবিত্র’- এর সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি?
(ক) পি + ইত্র (খ) পো + বিত্র
(গ) পো + এত্র (ঘ) পো + ইত্র।

২। কোনটি স্বরসন্ধির উদাহরণ নয়? 
(ক) বিদ্যালয় (খ) পরিচ্ছেদ
(গ) শুভেচ্ছা (ঘ) নাবিক।

৩। ‘সঞ্চয়’-এর সন্ধিবিচ্ছেদ -
(ক) সম্ + চয় (খ) সঞ্ + চয়
(গ) সন্ + চয় (ঘ) সঙ্ + চয়।

৪। ‘দ্বৈপায়ন’ শব্দের সন্ধিবিচ্ছেদ -
(ক) দ্বীপ + আয়ন (খ) দ্বিপ + অনট
(গ) দ্বীপ + আয়ন (ঘ) দ্বীপ + অনট

৫। ‘মার্তণ্ড’ শব্দটি কোন সন্ধির দৃষ্টান্ত?
(ক) স্বরসন্ধি (খ) ব্যঞ্জনসন্ধি
(গ) নিপাতনে সিদ্ধ (ঘ) বিসর্গসন্ধি

৬। কোন সন্ধিটি নিপাতনে সিদ্ধ?
(ক) বাক্ + দান = বাগদান (খ) উত্ + ছেদ = উচ্ছেদ
(গ) পর + পর = পরস্পর (ঘ) সম্ + সার = সংসার

৭। ‘রত্নাকর’ শব্দটির সন্ধিবিচ্ছেদ-
(ক) রত্ন + কর (খ) রত্না + কর
(গ) রত্না + আকর (ঘ) রত্ন + আকর

৮। ‘গায়ক’ শব্দের সন্ধিবিচ্ছেদ -
(ক) গে + অক (খ) গায় + অক
(গ) গৈ + অক (ঘ) গৌ + অক

৯। নিচের কোনটি শ-জাত বিসর্গের নমুনা?
(ক) নিশ্বাস (খ) নিশ্চুপ
(গ) নির্দয় (ঘ) শিরঃপীড়া

১০। ‘মাত্রাধিক্য’ শব্দটির সন্ধিবিচ্ছেদ কী রকম?
(ক) মাতৃ + আধিক্য (খ) মাত্র + আধিক্য
(গ) মাত্র + আধিক্য (ঘ) মাত্রা + আধিক্য

১১। ‘জনৈক’ শব্দের সন্ধিবিচ্ছেদ কী হবে?
(ক) জন + ঐক (খ) মাত্র + অধিক্য
(গ) জনে + এক (ঘ) জন + অক

১২। ‘পর্যালোচনা’ শব্দের সন্ধিবিচ্ছেদ -
(ক) পর্য + আলোচনা (খ) পরি + আলোচনা
(গ) পর্যা + লোচনা (ঘ) পর্যা + আলোচনা

১৩। ‘স্বাগত’ -এর সন্ধিবিচ্ছেদ -
(ক) সু + আগত (খ) স্বা + গত
(গ) সু + গত (ঘ) সা + আগত

১৪। ‘নাবিক’ শব্দের সন্ধিবিচ্ছেদ -
(ক) নো + ইক (খ) নবৌ + ইক
(গ) নৌ + ইক (ঘ) নবো + ইক

১৫। নিচের কোনটির সন্ধিবিচ্ছেদ ঠিকভাবে হয়নি?
(ক) ষষ্ + থ = ষষ্ঠ (খ) যথা + ইষ্ট = যথেষ্ট
(গ) শরৎ + চন্দ্র = শরচ্চন্দ্র (ঘ) মৃত্যু + জয় = মৃত্যুঞ্জয়

১৬। কোনটি স্বরসন্ধির উদাহরণ নয়?
(ক) মহেশ (খ) তৃষ্ণার্ত
(গ) অত্যন্ত (ঘ) অনুচ্ছেদ

১৭। ‘যথোচিত’ শব্দটির সন্ধিবিচ্ছেদে কোন কোন ধ্বনির মিলন পাওয়া যায়?
(ক) আ + উ (খ) অ + উ
(গ) আ + ই (ঘ) অ + ই

১৮। কোনটি বিসর্গসন্ধি নয়?
(ক) দুর্যোগ (খ) সংহার
(গ) দুস্থ (ঘ) নিষ্পাপ

১৯। ‘সন্ধি’ শব্দটির সঠিক সন্ধিবিচ্ছেদ কী?
(ক) সং + ধি (খ) সম্ + ধি
(গ) সঙ্ + ধি (ঘ) সন্ + ধি

২০। ‘পশু + অধম’ মিলে কী হয়?
(ক) পশ্বাধম (খ) পশধম
(গ) পশাধম (ঘ) পশ্বধম

২১। ‘নীরোগ’ শব্দের সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি?
(ক) নি + রোগ (খ) নিঃ + রোগ
(গ) নী + রোগ (ঘ) নীঃ + রোগ

২২। ‘ষষ্ঠ’ শব্দের সন্ধিবিচ্ছেদ -
(ক) ষট্ + ঠ (খ) ষষ্ + ত
(গ) ষষ্ + থ (ঘ) ষষ্ + ঠ

২৩। ‘স্বল্প’ শব্দের  সঠিক সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি?
(ক) স্ব + ল্প (খ) স্ব + অল্প
(গ) সু + অল্প (ঘ) সে + অল্প

২৪। ‘তন্ময়’ -এর সন্ধিবিচ্ছেদ -
(ক) তনু + ময় (খ) তন্ + ময়
(গ) তত্ + ময় (ঘ) তদ্ + ময়

২৫। কোন শব্দটি স্বরসন্ধিযোগে সঠিত?
(ক) নিজন্ত (খ) অহরহ
(গ) মস্যাধার (ঘ) দুশ্চিন্তা

২৬। কোনটি ঠিক?
(ক) শির + ছেদ = শিরোচ্ছেদ (খ) শিরঃ + ছেদ = শিরচ্ছেদ
(গ) শির + ছেদ = শিরশ্ছেদ (ঘ) শিরঃ + ছেদ = শিরশ্ছেদ

২৭। ‘সন্ধি’ শব্দটি কোন উপায়ে গঠিত?
(ক) সন্ধি (খ) সমাস
(গ) প্রত্যয় (ঘ) উপসর্গ

২৮। ‘সন্ধান’ শব্দের সন্ধিবিচ্ছেদ -
(ক) সং + ধ্যান (খ) সং + ধান
(গ) সমঃ + ধ্যান (ঘ) সম্ + দশ

২৯। ‘ষোড়শ’ -এর সন্ধিবিচ্ছেদ কোনটি?
(ক) ষট্ + অশ (খ) ষট্ + দশ
(গ) ষড়্ + অশ (ঘ) ষড়্ + দশ

৩০। নিপাতনে সিদ্ধ স্বরসন্ধির উদাহরণ কোনটি?
(ক) একাদশ (খ) বৃহস্পতি
(গ) পৌঢ় (ঘ) পতঞ্জলি

উত্তর :
১-ঘ; ২-খ; ৩-ক; ৪-গ; ৫-গ; ৬-গ; ৭-ঘ; ৮-গ; ৯-খ; ১০-ঘ; ১১-খ; ১২-খ; ১৩-ক; ১৪-গ; ১৫-ঘ; ১৬-ঘ; ১৭-ক; ১৮-খ; ১৯-খ; ২০-ঘ; ২১-খ; ২২-গ; ২৩-গ; ২৪-গ; ২৫-গ; ২৬-ঘ; ২৭-ঘ, ২৮-ঘ; ২৯-খ; ৩০-গ

No comments