বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই

এক কথায় প্রকাশ বা বাক্য সংকোচন - য

 য 
যদু বংশে জন্ম যার – যাদব
যথা বিহিত শ্রদ্ধা নিবেদন – অভিবাদন
যত দিন জীবন ততদিন – যাবজ্জীবন
যা অতিক্রম করা যায় না – অনতিক্রম্য
যা অনায়াসে বুঝতে পারা যায় – বোধগম্য
যা অধিক উষ্ণ বা অধিক শীতল নয় – নাতিশীতোষ্ণ
যা চলছে – চলমান; চলন্ত
যা ঘটবেই – অবশ্যাম্ভাবী, ভবিতব্য
যা গলে যায় – দ্রব
যা গমন করতে পারে না – নগ
যা গতিশীল – জঙ্গম
যা কাজের অযোগ্য – অকেজো
যা ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে – বর্ধিষ্ণু
যা ক্রমাগত ক্ষয় পাচ্ছে – ক্ষয়িষ্ণু
যা একটুও ভাঙ্গেনি – অটুট
যা উচ্চারণ করা যায় না – অনুচ্চার্য
যা উদিত হচ্ছে – উদীয়মান
যা আগে হয়নি – অভূতপূর্ব
যা আইনের চোখে নিষিদ্ধ – বেআইনি
যা অর্জন করা হয়েছে – অর্জিত
যা অস্বীকার করা যায় না – অনস্বীকার্য
যা অনুকরণ করা যায় না – অননুকরণীয়
যা চিবিয়ে খেতে হয় – চর্ব্য
যা ধূম উদগীরণ করছে – ধূমায়মান
যা দেহ সম্পর্কিত – দৈহিক
যা দীর্ঘকাল ধরে চলে আসছে – চিরন্তন
যা চেটে খেতে হয় – লেহ্য
যা চুষে খেতে হয় – চোষ্য
যা পশুর উপযুক্ত – পাশবিক
যা প্রকাশ পেয়েছে – প্রকাশিত
যা প্রকাশিত হবে – প্রকাশ্য
যা পান করলে কখনো মৃত্যু হয় না – অমৃত
যা পানের যোগ্য নয় – অপেয়
যা পিশাচের উপযুক্ত – পৈশাচিক
যা পুনঃ পুনঃ জ্বলছে – জাজ্বল্যমান
যা পুষ্টি দান করে – পুষ্টিকর
যা পূর্বে ছিল – ভূতপূর্ব
যা পূর্বে হয়নি – অপূর্ব
যা বচনে বা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না – অনির্বচনীয়
যা বপন করা হয়েছে – উপ্ত
যা বলা হয়েছে – উক্ত
যা বলা হয়নি – অনুক্ত
যা বলতে হবে – বক্তব্য
যা বহুকাল ধরে প্রচলিত – সনাতন
যা বহু কষ্টে লাভ করা যায় – দুর্লভ
যা বোধগম্য করা দুঃসাধ্য – দুর্বোধ্য
যা মনকে মুগ্ধ করে – মনোমুগ্ধকর
যা মঞ্জুর হয়নি – নামঞ্জুর
যা হৃদয়ে গমন করে – হৃদয়ঙ্গম
যা হৃদয় বিদীর্ণ করে – হৃদয়বিদারক
যা হতে পারে না – অসম্ভব
যা সামান্য নয় – অসামান্য
যা সহজে লঙ্ঘন করা যায় না – দুর্লঙ্ঘ্য
যা সহজে লাভ করা যায় না – দুর্লভ
যা সহজে জয় করা যায় না – অজেয়
যা সকলের কল্যাণের জন্য রচিত – সর্বজনীন
যা শুধুমাত্র কথায় প্রকাশ করা হয় – অলৌকিক
যা মাথা পেতে নেয়ার যোগ্য – শিরোধার্য
যার ঈশ্বরে বিশ্বাস আছে – আস্তিক
যার ঈশ্বরে বিশ্বাস নেই – নাস্তিক
যার ঈমান নেই – বেঈমান
যার অন্য বা দ্বিতীয় নেই – অনন্য, অদ্বিতীয়
যার অন্য গতি নেই – অনন্যগতি
যাতে জল ধারণ করে – জলধি
যাতে কোনো নামের উল্লেখ থাকে না – বেনামী
যাতে একটি মাত্র তান – ঐকতান
যাকে পরাভূত করা যায় না – অপরাজেয়
যাকে শাসন করা কঠিন – দুঃশাসন
যাকে পোষণ করতে হয় – পোষ্য
যাকে পালন করা হয়েছে – পালিত
যাকে চেনা যায় না – অচিন
যার স্বামী বিদেশে থাকে – প্রোষিতভর্তৃকা
যার স্বাভাবিক বিকাশ ব্যাহত – প্রতিবন্ধী
যার ভাতের অভাব আছে – হা-ভাতে
যার বাস জ্ঞাত নয় – অজ্ঞাতবাস
যার নাশ আছে – নশ্বর
যার নাম লিখিত আছে – নামাঙ্কিত
যার দ্বারা লেখা যায় – লেখনী
যার দাড়ি জন্মায়নি – অজাতশ্মাশ্রু
যার কাজ গাধার মতো – হাঁদা
যার কুলশী জানা যায়নি – অজ্ঞাতকুলশীল
যার ঘরের অভাব আছে – হাঘরে
যার চক্ষুলজ্জা নেই – চশমখোর
যার জন্য কোনো কর দিতে হয় না – নিষ্কর
যার তল স্পর্শ করা যায় না – অতলস্পর্শ
যার পত্নী বিগত হয়েছে – বিপত্নীক
যার বর্ণ পরিচয় হয়নি – নিরক্ষর
যার ভর্তা (স্বামী) বিগত হয়েছে – মৃতভর্তৃকা
যার মধ্যভাগ নিচু – অবতল
যার মধ্যে রহস্য থাকে – রহস্যময়
যার যশ আছে – যশস্বী
যার বসরোধ আছে – রসিক
যার লজ্জা শরম নেই – বেশরম
যার শত্রু জন্ময়নি – অজাতশত্রু
যার সব কিছু চুরি হয়ে গিয়েছে – হৃতসর্বস্ব
যার সংখ্যা হয় না – অসংখ্য
যার সংস্কার করা হয়েছে – সংস্কৃত
যার আগমনের কোনো তিথি নেই – অতিথি
যার আহারে সংযম আছে – মিতহারী
যার বল নেই – অবলা
যার চোখের পলক পড়ে না – অপলক
যার চিত্ত বিষয়ে নিবিষ্ট – একাগ্রচিত্ত
যার পিঠ বেঁকে গিয়েছে – ন্যূব্জ
যার বিনাশ হয়নি – অবিনশ্বর
যার বিনাশ নাই – অবিনাশী
যার স্ত্রী বিদেশে থাকে – প্রোষিতপত্নীক
যার দুই অর্থ হয় – দ্ব্যর্থক
যার মৃত্যুকাল উপস্থিত – মুমূর্ষু
যার স্পৃহা দূর হয়েছে – বীতস্পৃহ
যার কোনো কিছু চাওয়ার নেই – অকিঞ্চন
যার কোনো নজির নেই – বেনজির
যা বিলুপ্ত হচ্ছে – বিলীয়মান
যা স্থানান্তর করা যায় – অস্থাবর
যা স্থানাস্তর করা যায় না – স্থাবর
যা বচনের অতীত – অনির্বচনীয়
যা জয় করা হয়েছে – বিজিত
যা গ্রহণ করার যোগ্য – গ্রাহ্য
যা অদূর ভবিষ্যতে হবার কোনো আশা নেই – সুদূরপরাহত
যারা মূর্তি পূজা করে – পৌত্তলিক
যার কোনো কিছুতে ভয় নেই – অকুতোভয়
যার পিতা ও মাতা নেই – অনাথ
যার জন্ম নেই – অজ
যিনি বহু দেখেছেন – বহুদর্শী
যিনি বহু দেখেছেন – বহুদর্শী
যিনি ব্যাকরণ জানেন – বৈয়াকরণ
যিনি উপন্যাস লেখেন – ঔপন্যাসিক
যিনি অনেক দেখেছেন – ভূয়োদর্শী
যিনি গবেষণা করেন – গবেষক
যিনি পথ দেখিয়ে চলেন – পথপ্রদর্শক
যিনি বক্তৃতায় পটু – বাগ্মী
যিনি স্মৃতিশাস্ত্র ভালো বোঝেন – স্মার্ত
যিনি ভূত, ভবিষ্যৎ ও বর্তমান কালের বৃত্তান্ত জানেন – ত্রিকালজ্ঞ
যিনি বাক্যে অতি দক্ষ – বাচস্পতি
যিনি বাঘের চামড়া পরিধান করেন – কৃত্তিবাস
যিনি নিজেকে হীন মনে করেন – হীনমন্য
যিনি বিদ্যা লাভ করেছেন – কৃতবিদ্যা
যিনি বিধান প্রদান করেন – বিধাতা
যিনি যুদ্ধে স্থির থাকেন – যুধিষ্ঠির
যুদ্ধে ব্যবহৃত ঢাক – দামামা
যুদ্ধে পরাস্ত করা যায় না যে ভূমিকে – অযোধ্যা
যুদ্ধ হতে পলায়ন করে না যে সৈন্য – সংশপ্তক
যুদ্ধ সম্বন্ধীয় – সামরিক
যে অপরিচিত ব্যক্তি হঠাৎ এসেছ – আগন্তুক
যে অবস্থায় মানুষ দুঃখ পায় – কৈবল্য
যে আচার বা প্রথা অতিক্রম করেছে – অত্যাচারী
যে আশা ফলবতী হবার নয় – দূরাশা
যে উপকারীর উপকার স্বীকার করে – কৃতজ্ঞ
যে উপকারীর উপকার স্বীকার করে না – কৃতঘ্ন
যে গাছে ফুল হয় না ফল হয় – বনস্পতি
যে কারো পরোয়া করে না – বেপরোয়া
যে কাজের অযোগ্য – অকেজো
যে কর্মের অযোগ্য – অকর্মণ্য
যে কর্ম প্রতিদিন করা হয় – নিত্যকর্ম
যে কর দেয় – করদ
যে কথা তীরের মতো মর্মভেদী – বাক্যবাণ
যে কটু কথা বলে – দুর্বাক
যে উদ্দেশ্যহীনভাবে ঘুরে বেড়ায় – ভবঘুরে
যে কষ্ট সইতে পারে – কষ্টসহিষ্ণু
যে আদব কায়দা জানে না – বেয়াদব
যে নারী অন্যের নিন্দা করে না – অনুসূয়া
যে নারীর অনেক গরু আছে – গোমতী
যে ধরলে আর ছাড়ে না – নাছোড়বান্দা
যে দার পরিগ্রহ করেনি – অকৃতদার
যে দণ্ডের দ্বারা ভূমি খনন করে – বরাহ
যে তরু ভক্তের বাসনা পূর্ণ করে – কল্পতরু
যে জন্মগ্রহণ করেছে – জাতক
যে জলে ডুকে যাচ্ছে – নিমজ্জমান
যে জমিতে কোনো ফসল হয় না- ঊষর
যে নারীর স্বামী পুত্র আছে – বীরা
যে নারীর সন্তান হয় না – বন্ধ্যা
যে নারী পূর্বে অপরের স্ত্রী ছিল – অন্যপূর্বা
যে নারী সবসময় সাহ্যমুখী – সুস্থিতা
যে নারী সূর্যকে দেখেনি – অসূর্যস্পশ্যা
যে নারী স্বামীর প্রতি অনুরক্ত – প্রতিব্রতা
যে নারীর কথায় কোনো সংকোচ নেই – প্রগলভা
যে নারীর চোখ সুন্দর – সুনয়না
যে নারীর (বিধবা) পুনরায় বিয়ে হয়েছে – পুনর্ভূ
যে নারীর মুখ চন্দ্রের মতো সুন্দর – চন্দ্রমুখী
যে নারীর রূপ আছে – রূপসী
যে নারীর হাসি শুচি – শুচিস্মিতা
যে নারীর স্বামী বর্তমান – সধবা
যে পথ দিয়ে বায়ু চলাচল করে – বাতায়ন
যে প্রাণী বুকে ভর দিয়ে চলে – সরীসৃপ
যে পাখি বৃষ্টির জল ছাড়া অন্য জল পান করে না – চাতক
যে পলায়ন করে আত্মগোপন করেছে – ফেরারী
যে পরকে আশ্রয় করে বাঁচে – পরজীবী
যে পথের দুধারে গাছ থাকে – বীথি
যে ভাগ্য গণনা করে – দৈবজ্ঞ
যে বিষয় ভীতি উৎপাদন করে – বিভীষিকা
যে ব্যক্তি গুণীর আদর করে – গুণগ্রাহী
যে বাস্তু হারিয়েছে – বাস্তুহারা
যে বার্তা নিয়ে গমন করে – দূত
যে বালির নিচে চোরা গহ্বর থাকে – চোরাবালি
যে বা যা দাঁড়িয়ে আছে – দণ্ডায়মান
যে হিসাব করে ব্যয় করে না – অমিতব্যয়ী
যে হাতে কলমে কাজ করে দক্ষতা লাভ করেছে – করিতকর্মা
যে স্ত্রীর বশীভূত – স্ত্রৈণ
যে স্বল্পকাল জীবিত থাকে – স্বল্পায়ু
যে সহজেই ভয় পায় – ভীতু
যে সহজে সকলের কথা বিশ্বাস করে – কানপাতলা
যে সরোবরে প্রচুর পদ্ম জন্মে – পদ্মকর
যে সব জানে – সবজান্তা, সর্বজ্ঞ
যা লাফিয়ে চলে – প্লবগ
যা শুয়ে আছে – শায়িত
যা মনে জন্মেছে – মনজ
যে ভূমি উর্বর নয় – অনুর্বর
যে মেঘে প্রচুর বৃষ্টি হয় – সংবর্ত
যে মেঘের মতো গর্জন করে – মেঘনাদ
যে মেয়ের তুলনা হয় না – অনন্যা
যে মেয়ের বিয়ে হয়নি – অনূঢা
যে যন্ত্রের সাহায্যে দিকনির্ণয় করা যায় – কম্পাস
যে যান মহাকাশে গমন করে – মহাকাশযান
যে যাত্রায় কেউ গমন করলে আর ফেরে না – অগস্ত্যযাত্রা
যে রক্ত শোষণ করে – রক্তচোষা
যে রাজা ঋষির মতো জীবনযাপন করে – রাজর্ষি
যেখানে মৃত জীবজন্তু ফেলা হয় – ভাগাড়
যা অবশ্যই ঘটবে – অবশ্যম্ভাবী
যা অধ্যয়ন করা হয়েছে – অধীত
যা আঘাত পায় নাই – অনাহত
যা আঘাত দ্বারা সহজে ভাঙে না – ঘাতসহ
যা হেমন্তকালে জন্মে – হৈমন্তিক
যা আশা করা যায় তার অধিক – আশাতীত
যা উড়ে যাচ্ছে – উড্ডীয়মান
যা বর্ণনা করা যায় না – অবর্ণনীয়
যা ডুবে যাচ্ছে – ডুবন্ত
যা দমন করা যায় না – অদম্য
যা দেখা যায় না – অদৃশ্য
যা নিয়ত পরিবর্তিত হচ্ছে – পরিবর্তনশীল
যা পরলোক সন্বন্ধীয় – পরলৌকিক
যা পরিমাণ করা যায় না – অপরিমেয়
যা প্রশংসার যোগ্য – প্রশংসনীয়
যা বিনা আয়াসে লাভ করা যায় – অনায়াসলভ্য
যা বিনা যত্নে উৎপন্ন করা হয়েছে – অযত্নসম্ভূত
যা বিনা যত্নে লাভ করা হয়েছে – অযত্নলব্ধ
যা ভেদ করা দুঃসাধ্য – দুর্ভেদ্য
যা ভস্ম হয়েছে – ভস্মীভূত
যা মাটি ভেদ করে উঠে – উদ্ভিদ
যা মর্মকে স্পর্শ করে – মর্মস্পর্শী
যা মরার মতো – মৃতবৎ
যা যুক্তি সঙ্গত নয় – অযৌক্তিক
যা লঙ্ঘন করা উচিত নয় – অলঙ্ঘনীয়
যা শিরে ধারণ করার যোগ্য – শিরোধার্য
যা সহজে ভেঙে যায় – ভঙুর
যা সাধারণত দেখা যায় না – অসাধারণ
যা সম্পন্ন করতে অনেক অপব্যয় হয় – ব্যয়বহুল
যা সারাদিন ব্যবহার করা হয় – আটপৌরে
যার আকার কুৎসিত – কদাকার
যার উপস্থিত বুদ্ধি আছে – প্রত্যুৎপন্নমতি
যার গন্ধ নেই – নির্গন্ধ, গন্ধহীন
যার গন্ধ ভালো – সুগন্ধ, সুগন্ধী
যার জায়া যুবতী – যুবজানি
যার প্রভা ক্ষণকাল স্থায়ী হয় – ক্ষণপ্রভা
যার রোগ নেই – নীরোগ
যার লজ্জা নেই – নির্লজ্জ, বেহায়া
যার সর্বস্ব চুরি গিয়ায়ে – হৃতসর্বস্ব
যার নিজের বলতে কিছু নেই – নিঃস্ব
যারা এক মাতার গর্ভে জন্মেছে – সহোদর
যা পূর্বে শোনা যায় নি – অশ্রুতিপূর্ব
যিনি সৃষ্টি করেন – স্রষ্টা
যে কোনো বিষয়ে স্পৃহা হারিয়েছে – বীতস্পৃহ
যে গাঁজার নেশা করে – গেঁজেল
যে তৃণাদি খেয়ে জীবন ধারণ করে – তৃণভুক
যে দিনে একবার আহার করে – একাহারী
যে নারী স্বয়ং পতি বরণ করে – স্বয়ংবরা
যে পুরুষ বিবাহ করেছে – কৃতদার
যে বাস্তু হতে উৎখাত হয়েছে – উদ্বাস্তু
যে বন হিংস্র জন্তুতে পরিপূর্ণ – শ্বাপদসঙ্কুল
যে বা যা প্রবীণ বা প্রাচীন নয় – অর্বাচীন
যে (ভাই) অগ্রে জন্মগ্রহণ করেছে – অগ্রজ
যে (ভাই) পরে জন্মগ্রহণ করেছে – অনুজ
যার বাসস্থান নাই – অনিকেত/অনিকেতন
যে রমণীর সুন্দর কেশ আছে – সুকেশা, সুকেশিনী
যে রোগ নির্ণয়ে হাতড়িয়ে মরে – হাতুড়ে
যে সকল বস্তু ভক্ষণ করে – সর্বভুক
যে স্তন্য পান করে – স্তন্যপায়ী

বর্ণ অনুসারে পরবর্তী গুলো পাওয়ার জন্য নিচে ক্লিক করুন -
 -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  -  - য -  -  -  -  -  - 

No comments