ভাষণ : সড়ক দুর্ঘটনা : তার কারণ ও প্রতিকার

“সড়ক দুর্ঘটনা : তার কারণ ও প্রতিকার” শীর্ষক আলোচনা সভার প্রধান বক্তা হিসেবে একটি ভাষণ তৈরি কর।

অথবা, ‘সড়ক দুর্ঘটনা : কারণ ও প্রতিরোধের উপায়’ শীর্ষক সেমিনারে উপস্থাপনের উপযোগী একটি ভাষণ রচনা কর।


‘সড়ক দুর্ঘটনা : তার কারণ ও প্রতিকার’ শীর্ষক আলোচনা সভা

মাননীয় সভাপতি, সন্মানিত অতিথিবৃন্দ এবং উপস্থিত সুধীবৃন্দ, আমার শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা গ্রহণ করুন।

সুধীমণ্ডলী,
আধুনিক জীবন মানেই গতিশীল জীবন। আমরা দেশ থেকে দেশান্তরে ছুটে বেড়াই। পথ চলতে আমরা যত বেশি গতিশীল হতে পারি তত বেশি পুলক অনুভব করি । কিন্তু সেই গতি সামান্য ভুলভ্রান্তির কারণে মুহূর্তের মধ্যে স্তব্ধ হয়ে যায়। চিরতরে থেমে যায় সকল স্পন্দন, সকল পুলক-প্রবাহ।

সুধীবৃন্দ,
আমি সড়ক দুর্ঘটনার কথা বলছি। হ্যা! এই সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিদিনই আমাদের অনেকের জীবনের গতি চিরতরে স্তব্ধ করে দিচ্ছে। আমাদের জীবন ও সম্পদের অপরিমেয় ক্ষতি সাধন করছে। অথচ আমরা একটু সচেতন হলেই তা থেকে রক্ষা পেতে পারি। এজন্য প্রথমে আমাদের সড়ক দুর্ঘটনার কারণ সম্পর্কে অবগত হতে হবে। সাধারণত যেসব কারণে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে থাকে তা হলো—
  • সুদক্ষ ও প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ড্রাইভারের অভাব।
  • ড্রাইভারদের স্বেচ্ছাচারিতা।
  • ওভারটেকিং।
  • গাড়ির অনিয়ন্ত্রিত গতিবেগ।
  • ধারণক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী বহন।
  • অনুপযুক্ত গাড়ির ব্যবহার।
  • রাস্তাঘাটের অপ্রতুলতা ও অপ্রশস্ততা।
  • নিরাপত্তা আইন ও ট্রাফিক আইন অমান্য করা।
  • নিরাপত্তা বা ট্রাফিক পুলিশদের দুর্নীতি।
  • পথচারীদের স্বেচ্ছাচারিতা।

সুধীবৃন্দ,
এসব সমস্যা আমরা ইচ্ছে করলেই এড়িয়ে চলতে পারি, একটু সচেতন হলেই আমরা রক্ষা পেতে পারি মর্মান্তিক মৃত্যুর হাত থেকে। সড়ক  দুর্ঘটনার প্রতিকারার্থে সর্বপ্রথম প্রয়োজন আমাদের সবার আন্তরিকতা এবং সচেতনতা। তাছাড়া এজন্য আর যেসব ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে তা হলো—
  • ড্রাইভারদের উপযুক্ত প্রশিক্ষণ প্রদান। কঠোর আইন প্রণয়ন ও দুর্নীতিমুক্ত প্রশাসন।
  • ট্রাফিক আইনের যথাযথ প্রয়োগ।
  • ওভারটেকিংয়ের ক্ষেত্রে সচেতনতা সৃষ্টি এবং প্রতিযোগিতা না করা।
  • গাড়ির ফিটনেস পরীক্ষা করে অনুমোদন দেওয়া। গাড়ির গতিসীমা নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা।
  • অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তি প্রদান।
  • পথচারীদের জন্য প্রয়োজনীয় ফুটওভার ব্রিজ ও ফুটপাথ তৈরি করা এবং সেগুলো ব্যবহারে অনুপ্রাণিত করা।

প্রিয় সুধী,
আসুন, আমরা সবাই সচেতন হই এবং আমাদের জীবনের স্বাভাবিক গতি রক্ষা করি সবার জীবনই সুন্দর, স্বাভাবিক এবং গতির ছন্দে ছন্দবদ্ধ হোক – এ কামনায় শেষ করছি। ধন্যবাদ সবাইকে।
Post a Comment (0)
Previous Post Next Post