মার্চের দিনগুলি

সাধারণ জ্ঞান : কামিনী রায় [ পাছে লোকে কিছু বলে ]

কামিনী রায়

কামিনী রায়ের জন্ম কবে? — ১২ ই অক্টোবর, ১৮৬৪।

কামিনী রায় কোথায় জন্মগ্রহণ করেন? — বাসণ্ডা, বরিশাল।

তাঁর পিতার নাম কি ছিল? — ঐতিহাসিক ঔপন্যাসিক চণ্ডীচরণ সেন।

তাঁর শিক্ষাগত যোগ্যতার বিবরণ দাও। — তিনি ১৮৮৬ তে কলকাতার বেথুন কলেজ থেকে সংস্কৃতে অনার্স সহ বি.এ পাস করেন।

কর্মজীবনে কামিনী রায় কী করতেন? — শিক্ষকতা (অধ্যাপক বেথুন কলেজ)।

কামিনী রায়ের উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থের নামগুলো লিখ। — আলো ও ছায়া (১৮৮৯), নির্মাল্য (১৮৯১), পৌরাণিকা (১৮৯৭), গুঞ্জন (১৯০৫), মাল্য ও নির্মাল্য (১৯১৩), অশোক সংগীত (সনেট সংগ্রহ, ১৯১৪), অম্বা (নাট্যকাব্য, ১৯১৫), দীপ ও ধূপ ১৯২৯), জীবনপথে (১৯৩০)। 

তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে 'জগত্তারিণী' পদক পান কবে? — ১৯২৯ সালে।

তিনি কবে মৃত্যুবরণ করেন? — ১৯৩৩ সালের ২৭ শে সেপ্টেম্বর। 

'পাছে লোকে কিছু বলে'
থেকে গুরুত্বপূর্ণ কিছু

'পাছে লোকে কিছু বলে'— এখানে 'পাছে' শব্দটির ব্যবহার সম্পর্কে লিখ।
— এটি একটি শ্লেষ অলঙ্কার। কবি কামিনী রায় 'পাছে লোকে কিছু বলে' কবিতায় 'পাছে' বলতে বুঝিয়েছেন 'পরে' বা 'পেছনে' অর্থে।

এই ধরনের শ্লেষ অলংকারকে কি বলে? — অভঙ্গ শ্লেষ।

'আপনা' কী? — নিজেকে নিজে।

'নিরমল' কী? — নির্মল অর্থ পবিত্র। কবিতার ছন্দের প্রয়োজনে কবি এভাবে শব্দকে হ্রস্ব বা দীর্ঘ করে নিতে পারেন।

'যবে' কী? — যখন।

'কোনো কোনো মানুষ আর কখন একত্রে মিলতে পারে না'? — মহৎ উদ্দেশ্য নিয়ে যখন মানুষ কিছু করার জন্য একত্রিত হয়, তখনও সে মিলতে পারে না।

বিধাতা প্রাণ প্রদানের পরেও এই ধরনের মানুষগুলো কেমন থাকে? — ম্রিয়মান।

'ম্রিয়মান' অর্থ কী? — মরণাপন্ন বা কাতর।

"শক্তি মরে ভীতির কবলে'— বলতে কবি কী বোঝাতে চেয়েছেন? — মনের শক্তি মিথ্যে ভয়ের দ্বারা আক্রান্ত হয়।

'পাছে লোকে কিছু বলে' কবিতার সাথে একটি বাংলা প্রবাদ বাক্যের হুবহু মিল উল্লেখ কর। — 'বনের বাঘে খায় না, মনের বাঘে খায়।'

'একটি স্নেহের কথা/ প্রশমিত পারে কি ব্যথা' —কবি এখানে কি বুঝাতে চেয়েছেন? — মানুষের সামান্য কিছু কথা বা স্নেহের আদর অনেকের মনের কষ্ট দূর করে দিতে পারে। কিন্তু কোনো কোনো মানুষ সেই কথাটুকুও বলতে চান না। উপেক্ষা করে চলে যান। তাদের ধারণা থাকে— এতে তাকে অন্যরা কিছু বলতে পারে।

1 Comments

  1. Kindly give the credit of information to DR. Soumitra Shekhar.

    ReplyDelete
Post a Comment
Previous Post Next Post