বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শিক্ষা সহায়ক ওয়েব সাইট

সাধারণ জ্ঞান : বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ

বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ

মুক্তিযুদ্ধের সর্বোচ্চ খেতাব কি? – বীরশ্রেষ্ঠ।

বাংলাদেশে কত জন বীরশ্রেষ্ঠ খেতাব প্রাপ্ত আছেন? – ৭ (সাত) জন।

২য় সর্বোচ্চ খেতাব কি ও কত জন পেয়েছেন? – বীরউত্তম, ৬৮ জন।

বীরত্বের সাথে যুদ্ধ করার জন্য সরকার কয়টি খেতাব প্রাদন করেন এবং খেতাব গুলোর নাম কি কি? – মুক্তিযুদ্ধে যাঁরা অসাধারণ শৌর্যবীর্য প্রদর্শন করেন, তাঁদেরকে ১৯৭৩ সালের ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মোট ৪টি বীরত্বসূচক বিভিন্ন খেতাবে ভূষিত করেন। বীরশ্রেষ্ঠ, বীরউত্তম, বীরবিক্রম এবং বীরপ্রতীক।

সাতজন বীরশ্রেষ্ঠের নাম কী? – শহীদ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর, শহিদ সিপাহি হামিদুর রহমান, শহিদ সিপাহি মো. মোস্তফা কামাল, শহিদ মো: রুহুল আমিন, শহিদ ল্যান্স নায়েক মুন্সি আবদুর রউফ, শহিদ ল্যান্স নায়েক নূর মোহাম্মদ শেখ।

বীরপ্রতীক কত জন পেয়েছেন? – ৪২৬ জন।

বাংলাদেশের দুইজন বীরমুক্তিযোদ্ধা দু-বার করে রাষ্ট্রীয় খেতাব পেয়েছেন তাঁরা কারা? – (ক) আফতাব আলী বীরউত্তম, বীর প্রতীক, ৩য় ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের সুবেদার ছিলেন। (খ) আব্দুল ওয়াহেদ চৌধুরী, বীরবিক্রম বীরউত্তম, নৌকামান্ডো। অপারেশন জ্যাকপট কমান্ডার।

স্বাধীনতা যুদ্ধে অবদানের জন্য বীরবিক্রম উপাধি লাভ করেন কয় জন? – ১৭৫ জন।

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন কবে? – ১৭ই মার্চ, ১৯২০ সালের মঙ্গলবার।

বঙ্গবন্ধুর শৈশবের ডাক নাম কি? – খোকা।

৬ (ছয়) দফার প্রবক্তা কে? কোথায় এবং কখন পেশ করেন? – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। লাহোরে ৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৬ সালে।

বঙ্গবন্ধু কখন স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করেন? – ১০ জানুয়ারি, ১৯৭২ সালে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ১৯৭১ সালের কত তারিখে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী গ্রেপ্তার করে? – ১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ মধ্যরাত্রে।

বাংলাদেশকে প্রথম কোন রাষ্ট্র স্বীকৃতি প্রদান করে? – ভূটান।

বাংলাদেশ-ভারত মিত্র বাহিনীর প্রধান কে ছিলেন? – জেনারেল জগজিৎ সিং আরোরা।

১৯৭১ সালে ভারতে প্রধানমন্ত্রী কে ছিলেন? – শ্রীমতী ইন্দ্রিরা গান্ধী।

কোন বন্ধুরাষ্ট্র মুক্তিযুদ্ধে আমাদের খাদ্য, প্রশিক্ষণ ও আশ্রয় দিয়েছে? – ভারত।

বঙ্গবন্ধুর দাবিরমুখে মিত্র বাহিনী কখন বাংলাদেশ ত্যাগ করে? – ১৯৭২ সালের ১২ মার্চের মধ্যে।

মাস্টারদা সূর্য সেনের জন্মস্থান কোথায়? – নোয়াপাড়া, রাউজান, চট্টগ্রাম।

প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের জন্মস্থান কোথায়? – ধলঘাট, পটিয়া উপজেলা, চট্টগ্রাম।

মুক্তিযুদ্ধে কয়টি সেক্টর ছিল? – ১১টি।

চট্টগ্রাম যুব বিদ্রোহ কখন এবং কোথায় সংগঠিত হয়? – ২৩ এপ্রিল, ১৯৩০ সাল।

চট্টগ্রাম কত নম্বর সেক্টরের অন্তর্ভূক্ত ছি/ল এবং সেক্টর কমান্ডারের নাম কি? – চট্টগ্রাম ও পার্বত্য জেলা, নোয়াখালী জেলার অংশ মুহুরী নদীর পূর্ব পাড় পর্যন্ত ১ নম্বর সেক্টরের অন্তর্ভূক্ত। কমান্ডারের নাম রফিকুর ইসলাম।

বাংলাদেশ সরকার প্রথম কবে এবং কোথায় গঠিত হয় এবং শপথবাক্য কে পাঠ করান? – ১০ এপ্রিল, ১৯৭১ সালে সরকার গঠিত হয় এবং ১৭ এপ্রিল, ১৯৭১ মেহেরপুর বৈদ্যনাথ তলায় শপথবাক্য পাঠ করান অধ্যাপক ইউসুফ আলী।

বঙ্গবন্ধু কোথায় এবং কখন স্বাধীনতা ঘোষণা করেন? – ৩২নং ধানমন্ডির নিজ বাসায়, ২৬ মার্চ রাত্রির প্রথম প্রহরে।

প্রথম কোন বেতার কেন্দ্র থেকে স্বাধীনতা ঘোষণা করা হয়? কত তারিখে এবং কখন, কে বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ঘোষণাটি পাঠ করেন? – ২৬ মার্চ প্রথম অধিবেশনে ১.১০ মিনিটে চট্টগ্রামস্থ কালুরঘাট বেতারকেন্দ্র থেকে। বঙ্গবন্ধু প্রেরিত স্বাধীনতার ঘোষণাটি পাঠ করেন এম. এ হান্নান (সাধারণ সম্পাদক, চট্টগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগ)।

জিয়াউর রহমান কখন বঙ্গবন্ধুর পক্ষে স্বাধীনতার ঘোষণাটি পাঠ করেন? – কালুরঘাট স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্রের ৫ম অধিবেশনে ২৭ মার্চ সন্ধ্যা ৭টায়।

কালুরঘাট বেতারকেন্দ্রটির নাম কি ছিল? – স্বাধীন বাংলা বিপ্লবী বেতার কেন্দ্র।

স্বাধীনতা দিবস কোন মাসে ও কত তারিখ? – ২৬ মার্চ ১৯৭১ সালে।

বাংলাদেশের পতাকা দেশের বাহিরে কে প্রথম উত্তোলন করেন? – ভারতে, পাকিস্তানের পক্ষত্যাগী কূটনীতিক এ.কে.এম. সিহাব উদ্দিন, ৬ই এপ্রিল ১৯৭১।

মুক্তিযুদ্ধের স্লোগান কি? – জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু।

৬ দফার পক্ষে প্রথম জনসভা কোথায় অনুষ্ঠিত হয়? – ১৯৬৬ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি ঐতিহাসিক লালদিঘী ময়দানে, চট্টগ্রাম।

বঙ্গবন্ধুর শেষ ঘোষণা স্বাধীনতার ঘোষণা হিসেবে পরিচিত, তা কি ছিল? – ২৫ মার্চ ১৯৭১, মধ্যরাত/২৬মার্চ প্রথম প্রহরে গ্রেপ্তার হওয়ার পূর্বে বঙ্গবন্ধু ঘোষণাটি জাতির উদ্দেশ্যে প্রেরণ করেন। “পাকিস্তান সেনাবাহিনী, পিলখানা EPR রাজারবাগ পুলিশ বাহিনীকে আক্রমণ করেছে। আমি বিশ্বের জাতিরসমূহের কাছে সাহায্যের আবেদন করছি। আমাদের মুক্তিযোদ্ধারা বীরত্বের সঙ্গে শত্রুদের সাথে যুদ্ধ করেছে। সর্বশক্তিমান আল্লার নামে আপনাদের কাছে আমার আবেদন ও আদেশ, দেশকে স্বাধীন করার জন্য শেষ রক্তবিন্দু থাকা পর্যন্ত যুদ্ধ করার জন্য পুলিশ, ইপিআর, বেঙ্গল রেজিমেন্ট ও আনসারদের সাহায্য চান। কোনো আপোষ নাই, জয় আমাদের হবেই। পবিত্র মাতৃভূমি থেকে শেষ শত্রুকে বিতাড়িত করুন। সকল মুক্তিকামী নেতাকর্মী এবং অন্যান্য দেশপ্রেমিক স্বাধীনতাপ্রিয় লোকদের কাছে এ সংবাদ পৌঁছে দিন। আল্লাহ আপনাদের মঙ্গল করুন। জয় বাংলা” শেখ মুজিবুর রহমান, ২৬ মার্চ – ১৯৭১।

স্বাধীন বাংলা বিপ্লবী পরিষদ কত সালে গঠিত হয়? – ১৯৬২ সালে।

পূর্ববঙ্গের নাম কখন পূর্ব পাকিস্তান হয়? – ২৩ মার্চ, ১৯৫৬ সালে।

প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তোলা হয় কোথায়? – গাজীপুর (১৯ মার্চ ১৯৭১)।

মুক্তিযুদ্ধে খেতাবপ্রাপ্ত একমাত্র বিদেশি নাগরিকের নাম কী? – ডব্লিউ এস. ওডারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া তাঁকে বীরপ্রতীক খেতাব দেওয়া হয়।

যুক্তফ্রন্ট বাতিল হয় কত সালে? – ৩০ মে, ১৯৫৪ সালে।

বাংলাদেশ শব্দটি নামকরণ করেন কে? – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

“September on Jessor Road” কার লেখা কবিতা? – মার্কিন কবি এ্যালেন গিনসবার্গ।

বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দানকারী প্রথম উত্তর আমেরিকার দেশ কোনটি? – কানাডা।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসটি পালন করা শুরু হয় কত সাল থেকে? – ২০০০ সাল থেকে।

আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা দায়ের করা হয় কখন? – ৩ জানুয়ারি, ১৯৬৮ সালে।

স্বাধীনতার ইশতেহার কখন পাঠ করা হয়? – ১৯৭১ সালের ৩ মার্চ।

স্বাধীনতার পতাকা প্রথম উত্তোলন করা হয় কখন, কোথায় এবং কে করেন? – ২ মার্চ, ১৯৭১ সালের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বটতলায়। উত্তোলন করেন ডাকসু ভিপি আ.স.ম. আবদুর রব।

”মোরা একটি ফুলকে বাঁচাব বলে যুদ্ধ করি” গানটির গীতিকার কে? – গোবিন্দ হাওলাদার।

জাতীয় স্মৃতিশোধের স্থপতি কে? – মইনুল হোসেন।

’বাংলা ছাড়’ কবিতাটি কার লেখা? – সিকান্দর আবু জাফর।

যুদ্ধকালীন ‘এস’ ফোর্সের অধিনায়ক কে ছিলেন? – মেজর এ.কে.এম. শফিউল্লাহ।

একাত্তরের ডায়েরি কার লেখা? – সুফিয়া কামাল।

বাংলাদেশ ছাড়া ও আর কোন রাষ্ট্রের রাষ্ট্রভাষা বাংলা? – সিয়েরা লিওন।

যুদ্ধকালীন ‘জেড’ ফোর্সের অধিনায়ক কে ছিলেন? – মেজর জিয়াউর রহমান।

একাত্তরের দিনগুলি কার লেখা? – জাহানারা ইমাম।

বাংলাদেশের সংবিধান রচিত হয় কোন সালে? – ১৯৭২ সালে।

যুদ্ধকালীন বাংলাদেশের নৌ-কমান্ডো কর্তৃক পরিচালিত অপারেশনের নাম কি? – অপারেশন জ্যাকপট।

বুদ্ধিজীবী সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক কে ছিলেন? – জহির রায়হান।

মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশ মুক্তি বাহিনীর তিনটি ব্রিগডে গঠিত হয়। সেগুলির নাম কি? – ‘জেড’ ফোর্স, ‘কে’ ফোর্স, ‘এস’ ফোর্স।

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক কে ছিলেন? – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

জেনারেল ওসমানী কি ছিলেন? – প্রধান সেনাপতি।

’মিরপুরের কসাই’ নামে কুখ্যাত রাজাকার কে ছিলেন? – কাদের মোল্লা (যুদ্ধাপরাধী বিচারে ফাঁসি হয়)।

যুদ্ধকালীন অস্থায়ী সরকারের স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র পাঠ করেন কে? – অধ্যাপক ইউসুপ আলী।

১৯৫৪ সালে প্রস্তাবিত ২১ দফার প্রথম দফা কি ছিল? – বাংলা’কে অন্যতম রাষ্ট্রভাষা করা।

বাঙালী জাতির মুক্তির সনদ হিসেবে পরিচিত কোনটি? – ছয় দফা।

৬ দফার প্রথম শহিদ কে, কখন এবং নাম কি? – মনু মিয়া (শ্রমিক), ৭ জুন ১৯৬৬ সাল

আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার এক নম্বর আসামি কে ছিলেন – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

আগরতলা মামলার আসামী সার্জেন্ট জহুর কখন শহিদ হন? – ১৫ ফেব্রুয়ারি, ১৯৬৯ সাল।

বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার আনুপাতিক মাপ কত? – ১০:৬ বা ৫:৩।

কখন ভারত-বাংলাদেশ যৌথ বাহিনী গঠিত হয়? – ২১ নভেম্বর, ১৯৭১।

মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘অরুণোদয়ের অগ্নিসাক্ষী’ কার পরিচালিত? – সুভাষ দত্ত।

২১ ফেব্রুয়ারি ১৯৫২ সাল বাংলায় কত তারিখ ছিল? – ৮ই ফাল্গুন।

বাংলাদেশের জাতীয় সংগীতের লেখক ও সুরকার কে? – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

পাকিস্তানের বেলুচিস্তানের কসাই নামে পরিচিত কে? – টিক্কা খান।

যুদ্ধকালীন রচিত ইংরেজি গান ‘Bangladesh’ গানটি কার গাওয়া? – জর্জ হ্যারিসন।

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র, চট্টগ্রাম শত্রু বাহিনীর হামলার ধ্বংস কখন? – ৩০ মার্চ, ১৯৭১ সালে।

বাংলাদেশের প্রথম ডাকটিকিটের নকশাকার কে? – বিমান মল্লিক, ১৯৭১।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে শহিদ একমাত্র বিদেশি নাগরিক কে? – মাদার মারিও (ইতালি)।

বাংলাদেশের রাষ্ট্রভাষা করার জন্য গণপরিষদের স্বীকৃতি মিলে কত সালে? – ১৯৫৪ সালে।

’আমি বীরাঙ্গনা’ বলছি বইটি কার? – নীলিমা ইব্রাহিম।

বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় পতাকার কীসের নিদর্শন ছিল? – বাংলাদেশের মানচিত্রের।

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের খেতাবপ্রাপ্ত আদিবাসী মুক্তিযোদ্ধা কে ছিলেন? – ইউ.কে.চিং।

’জল্লাদের দরবার’ নাটকের রচয়িতা কে? – কল্যাণ মিত্র।

বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত প্রথম কোন চলচ্চিত্রে ব্যবহৃত হয়? – জীবন থেকে নেয়া।

আমি বিজয় দেখেছি বইটি কার লেখা? – এম. আর. আখতার মুকুল।

বি. এল. এফ. কতটি সেক্টরে বিভক্ত ছিল? – চারটি।

স্বাধীন বাংলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ গঠন হয় কত তারিখে? – ১ মার্চ ১৯৭১ সালে।

মুক্তিযুদ্ধের অবদানের জন্য বীরপ্রতীক উপাধি লাভ করেন কত জন? – ৪২৬ জন।

‘এদেশের মানুষ চাই না, মাটি চাই’-উক্তিটি কে করেছিল? – পাকিস্তানে সামরিক আইন প্রশাসক জেনারেল ইয়াহিয়া খান।

‘মোরা একটি ফুলকে বাঁচাব বলে যুদ্ধ করি’ গানটির সুরকার ও শিল্পী কে? – আপেল মাহমুদ।

বাংলাদেশকে স্বীকৃতিদানকারী প্রথম আফ্রিকান রাষ্ট্র কোনটি? – সেনেগাল।

শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন করা হয় কত তারিখে? – ১৪ ডিসেম্বর।

বাংলাদেশকে দ্বিতীয় স্বীকৃতি দাতা দেশ কোনটি? – ভারত।

বাংলাদেশের রণ সংগীত কোনটি? – চল্ চল্ চল্ ঊর্ধ্ব ঘগনে বাজে মাদল।

আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কে? – মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী।

বাংলাদেশকে পাকিস্তান স্বীকৃতি দেয় কত তারিখ? – ২১ মার্চ, ১৯৭৪।

স্বাধীনতা যুদ্ধে অবদানের জন্য কতজন রাষ্ট্রীয় খেতাব প্রাপ্ত হন? – ৬৭৬ জন।

আবু ওসমান চৌধুরী কোন সেক্টরের কমান্ডার ছিলেন? – ৮ নম্বর।

মেজর মীর শওকত আলী কোন সেক্টরের কমান্ডার ছিলেন? – ৫ নম্বর।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন? – ১৯৭১ সালের ২৩ মার্চ ধানমন্ডি ৩২ নম্বর নিজ বাস ভবনে।

মুক্তিযুদ্ধকালে শরণার্থী শিবিরে পাপেট শো পরিবেশন করেন কে? – মুস্তফা মনোয়ার।

স্বাধীনতা যুদ্ধে সবচেয়ে বড় সংঘঠিত যুদ্ধ কোথায় হয়? – যশোর।

’মুক্তির গান’ চলচ্চিত্রের পরিচালক কে? – তারেক মাসুদ (সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত)।

অস্থায়ী সরকারের সদস্য সংখ্যা কত? – ৬ (ছয়) জন।

একুশের প্রথম কবিতা কোনটি? – কাঁদতে আসিনি, ফাঁসির দাবি নিয়ে এসেছি।

সর্বপ্রথম বিদেশে কোন মিশনে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করা হয়? – ভারতের কলকাতাস্থ বাংলাদেশ মিশনে।

’আবার তোরা মানুষ হ’ চলচ্ছিত্রের পরিচালকের? – খাঁন আতাউর রহমান।

বাংলাদেশের একমাত্র নৌ-সেক্টর কোনটি? – ১০ নম্বর সেক্টর।

বাংলাদেশ গণপ্রজাতন্ত্রের ঘোষণা হয় কত সালে? – ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল।

কোন দুটি দেশের স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র রয়েছে? – যুক্তরাষ্ট্র, বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকারের প্রধানমন্ত্রী কে ছিলেন? – তাজউদ্দীন আহমেদ।

বাংলা ভাষা সাংবিধানিক স্বীকৃতি লাভ করে কত সালে? – ১৯৫৬ সালের ২৩ মার্চ।

স্বাধীন বাংলা বেতরকেন্দ্র প্রথম স্থাপিত হয় কবে? – ২৬ মার্চ, ১৯৭১ সালে।

’বাংলার বাঘ’ উপাধি কার? – শেরে বাংলা এ.কে. ফজলুল হক।

১৯৫৪ সালের নির্বাচনে কোন দল জয় লাভ করে? – যুক্তফ্রন্ট।

’ওরা এগারজন’ চলচ্চিত্রের পরিচালক কে? – চাষী নজরুল ইসলাম।

যুক্তফ্রন্টের রাজনৈতিক দলের সংখ্যা কয়টি? – চারটি।

২১শে ফেব্রুয়ারি স্মরণে প্রকাশিত সাহিত্য সংকলনটির সম্পাদক কে ছিলেন? – হাসান হাফিজুর রহমান।

’পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়’ নাটকটি কার লেখা – সৈয়দ শামসুল হক।

’একটি বাংলাদেশ তুমি জাগ্রত জনতার’ গানটির সুরকার কে? – অজিত রায়।

বর্তমান বাংলাদেশে ব্যবহৃত জাতীয় পতাকার নকশা কে করেন? – কামরুল হাসান।

’স্মৃতি একাত্তর’ প্রামাণ্য চিত্রটি কার? – তানভীর মোকাম্মেল।

’নিষিদ্ধ লোবান’ উপন্যাসটি কার লেখা? – সৈয়দ শামসুল হক।

কোন সালে বাংলা একাডেমি গঠিত হয়? – ১৯৫৫ সালে।

কেন্দ্রীয় শান্তি কমিটির সদস্য কয়জন ও আহ্বায়ক কে? – ১০৪ জন ও খাজা খায়ের উদ্দিন।

যুদ্ধকালীন অস্থায়ী সরকারের রাষ্ট্রপতি কে ছিলেন? – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। (কারাগারে বন্দি থাকা অবস্থায়)।

যুক্তফ্রন্ট কার নেতৃত্বে গঠিত হয়? – শেরে বাংলা এ.কে. ফজলুল হক।

’জয় বাংলা, বাংলার জয়’ গানটির গীতিকার ও সুরকার কে? – গাজী মাজহারুল আনোয়ার (আনোয়ার পারভেজ)।

’পাকিস্তানে প্রথম সামরিক আইন কখন কে জারি করেন? – ইস্কান্দর মির্জা। ১৯৫৮ সালে।

অপারেশন সার্চ লাইটের নীল নকশা তৈরি করেন কে? – মেজর জেনারেল খাদিম হোসেন রাজা ও রাও ফরমান আলী।

মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশে কয় জেলায় বিভক্ত ছিল? – ১৯ জেলা।

বাংলাদেশে অস্থায়ী সরকারের উপ-রাষ্ট্রপতি কে ছিলেন? – সৈয়দ নজরুল ইসলাম।

’সংশপ্তক’ উপন্যাসটি কে লিখেছেন? – শহীদুল্লাহ কায়সার।

’১৯৭১’ প্রামাণ্য চিত্রের পরিচালক কে? – তানভীর মোকাম্মেল।

বাংলাদেশের অস্থায়ী রাজধানী কোথায় ছিল? – মুজিবনগর, মেহেরপুর জেলা বৈদ্যনাথতলায়।

মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস ‘ওঙ্কার’ কার লেখা? – আহমদ ছফা।

জাতিসংঘের কোন দুটি শক্তিশালী সদস্য রাষ্ট্র মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের বিরোধিতা করে? – যুক্তরাষ্ট্র ও চীন।

৭জন বীরশ্রেষ্ঠের মধ্যে কতজন নৌবাহিনীর সদস্য ছিল? – ১ জন।

রাজাকার বাহিনীর প্রধান কে ছিল? – মাওলানা এ.কে.এম. ইউসুফ।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের দলিলপত্র (ঘোল খণ্ড) এর সম্পাদক কে? – হাসান হাফিজুর রহমান।

১৬ ডিসেম্বর ১৯৭১ সালে আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রতিনিধি কে ছিলেন? – এ.কে. খন্দকার, বিমানবাহিনীর প্রধান।

মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস ‘জোছনা ও জননীর গল্প’ কে লিখেছেন? – হুমায়ূন আহমেদ।

বিদেশি কোন সাংবাদিক সর্বপ্রথম পাকিস্তানের ভয়াবহ গণহত্যার কথা সারা বিশ্বকে জানিয়েছিলেন? – সায়মন ড্রিং।

মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশি যুবকদের নিয়ে যে বাহিনী গঠিত হয়, তাদের নাম কি ছিল? – মুক্তিবাহিনী, মুজিব বাহিনী (বি.এল.এফ)।

যৌথবাহিনীর কাছে কতজন পাকিস্তানি সেনা আত্মসমর্পণ করে? – ৯৩,০০০ জন।

ভাষা আন্দোলনের সময় ১৯৫২ সালে পূর্ব বাংলার মুখ্যমন্ত্রী কে ছিলেন? – নুরুল আমিন।

জাতীয় স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণে কয়টি মান করা আছে? – ১০টি।

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ কোথায় অবস্থিত? – মেহেরপুর জেলায় মুজিবনগরে।

মুজিবনগর স্মৃতিসৌধটির স্তম্ভ কতটি? – ২৩টি।

ভাষা আন্দোলনের সময় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী কে ছিলেন? – খাজা নাজিমুদ্দীন।

জাতীয় পরিষদের অধিবেশনে বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবি প্রথম উত্থাপন করেন কে? – শহিদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত।

অসহযোগ আন্দোলন শুরু হয় ১৯৭১ সালের কয় তারিখ? – ৮ মার্চ ১৯৭১।

বাংলাদেশে ১ম প্রভাতফেরির গানের সুরকার কে? – আলতাফ মাহমুদ।

বাংলাদেশে যুদ্ধকালীন রিলিফ কমিটির পরিচালক কে ছিলেন? – জি.জে. ভৌমিক।

৭১ সালে বাংলাদেশে থানার সংখ্যা কত ছিল? – ৪৮০টি।

১৯৫২ সালে তৎকালীন পাকিস্তানের কত ভাগ মানুষের মাতৃভাষা বাংলা ছিল (শতকরা হিসেবে)? – ৫৬ ভাগ।

১১ দফা ঘোষণা করা হয় কোন সালে? – ১৯৬৯ সালে।

মুক্তিযুদ্ধে প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ কারা গড়ে তোলেন? – ইপিআর (বর্তমানে বিজিবি)।

বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দানকারী প্রথম আরব রাষ্ট্র কোনটি? – ইরাক।

বাংলাদেশকে পাকিস্তান কত বছর ধরে শাসন করে? – ২৩ বছর (প্রায়)।


আরো দেখুন :

No comments