বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই
Install "My All Garbage" App to SAVE content in your mobile

সাধারণ জ্ঞান : জাপান, উত্তর কোরিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, ফিলিস্তিন

জাপান

‘সূর্যোদয়ের দেশ’ বলা হয় কাকে? – জাপানকে।

‘প্রাচ্যের গ্রেট ব্রিটেন’ বলা হয় কাকে? – জাপানকে।

কোন দেশের অধিবাসীদের গড় আয়ু সবচেয়ে বেশি? – জাপান।

জাপানের সম্রাটের উপাধি কী? – মিকাডো।

জাপানের ১২৫তম সম্রাট আকিহিতো (বর্তমান সম্রাট) ব্যক্তিগত জীবনে কী? – সমুদ্র বিজ্ঞানী।

এশিয়ার একমাত্র জি-৮ (G-8) ভুক্ত দেশ কোনটি? – জাপান।

জাপানের হিরোশিমা ও নাগাসাকি শহরে কবে পারমাণবিক বোমা ফেলা হয়? – ১৯৪৫ সালের ৬ ও ৯ আগস্ট।

হিরোশিমা ও নাগাসাকি শহরে ফেলা বোমা দু’টির নাম কী? – ‘লিটল বয়’ ও ‘ফ্যাট ম্যান’।

বিতর্কিত শাখালিন দ্বীপপুঞ্জ অবস্থিত জাপানের কোন অঞ্চলে? – দক্ষিণে।

কোন আন্তর্জাতিক সংস্থা গঠনে জাপান প্রধান ভূমিকা পালন করে? – WTO (World Trade Organisation)।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পর্যন্ত জাপান এশিয়ার কোন দেশ দখল করে রেখেছিল? – কোরিয়া।

কোন প্রণালী জাপান থেকে দক্ষিণ কোরিয়াকে পৃথক করেছে? – কোরিয়া প্রণালী।

উত্তর কোরিয়া

জাপান কবে কোরিয়া দখল করে? – ১৯১০ সালের ২৯ আগস্ট।

উত্তর কোরিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়া কবে বিভক্ত হয়? – ১৯৪৫ সালের ১৫ আগস্ট।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পর্যন্ত উত্তর কোরিয়া কার অধীনে ছিল? – জাপানের।

উত্তর কোরিয়া পারমাণবিক বিস্ফোরণ ঘটায় কত তারিখে? – ৯ অক্টোবর, ২০০৬ সালে।

সম্প্রতি অষ্টম পারমাণবিক অস্ত্রের অধিকারী হন কোন দেশ? – উত্তর কোারিয়া।

কোন দেশ পরমাণু অস্ত্র বিস্তার রোধ চুক্তি থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেয়? – উত্তর কোরিয়া (১০ জানুয়ারি ২০০৩)।

দক্ষিণ কোরিয়া

দুই কোরিয়াকে বিভক্তকারী সীমারেখার নাম কী? – ৩৮ ডিগ্রি অক্ষরেখা।

দুই কোরিয়ার মধ্যবর্তী সীমান্তবর্তী গ্রামটির নাম কী? – পানমুনজাম।

জাপান সাগর ও পীত সাগরের মধ্যে অবস্থিত উপদ্বীপ কোনটি? – কোরিয়া উপদ্বীপ।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পর্যন্ত দক্ষিণ কোরিয়া কার অধীনে ছিল? – জাপানের।

কোন সংকটকে কেন্দ্র করে ১৯৫০ সালে ‘শান্তির জন্য ঐক্য প্রস্তাব’ জাতিসংঘের মাধ্যমে পেশ করা হয়? – কোরিয়া সংকট।

জাতিসংঘের বর্তমান (অষ্টম) মহাসচিব বান কী মুন কোন দেশের? – দক্ষিণ কোরিয়ার।

ফিলিস্তিন

স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র ঘোষণা করা হয় কবে? – ১৫ নভেম্বর, ১৯৮৮।

স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে সর্বপ্রথম স্বীকৃতি দেয় কোন দেশ? – আলজেরিয়া।

স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রর রাজধানী ঘোষণা করা হয় কোন স্থানকে? – জেরুজালেমকে।

ইয়াসির আরাফাতের দলের নাম কী? – আল ফাতাহ।

পিএলও-ইসরাইল স্বায়ত্তশাসন চুক্তি স্বাক্ষরের অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্রের কোন কোন সাবেক প্রেসিডেন্ট উপস্থিত ছিলেন? – জিমি কাটার ও জর্জ বুশ।

ফিলিস্তিনির অবিসংবাদিত নেতা ইয়াসির আরাফাত কবে কোথায় মৃত্যুবরণ করেন? – ১১ নভেম্বর ২০০৪ সালে, ফ্রান্সের প্যারিসের সামরিক হাসপাতালে।

ইয়াসির আরাফাতকে সামরিক মর্যাদায় জানাজা দেয়া হয় কবে কোথায়? – ১২ নভেম্বর ২০০৪ সালে, কায়রোতে।

PLO গঠিত হয় কত সালে? – ১৯৪৮ সালে।

PLO এর সদর দপ্তর কোথায়? – ওরিয়েন্ট হাউস, রামল্লা, ফিলিস্তিন।

PLO জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের প্রথম আমন্ত্রণ পায় কবে? – ১৯৭৪ সালে।

PLO এবং ইসরাইল পরস্পরকে স্বীকৃতি দান করে কবে? – ১০ সেপ্টেম্বর ১৯৯৩।

ওয়াফা কী? – ফিলিস্তিন রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা।

ফিলিস্তিনে প্রধানমন্ত্রী পদ অনুমোদিত হয় কবে? – ১০ মার্চ ২০০৩ (পার্লামেন্টে ভোটাভুটির মাধ্যমে)।

ফিলিস্তিনের প্রথম প্রধানমন্ত্রী কে? – মাহমুদ আব্বাস ওরফে আবু মাজেন (তিনি ফাত্তাহ আন্দোলনের একজন নেতা এবং ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের (পিএলও) প্রথম প্রধানমন্ত্রী)।

কোন দেশের প্রেসিডেন্টের পদটি প্রতীকী? – ফিলিস্তিন [কারণ দেশটিতে এখনো প্রেসিডেন্ট প্রতিষ্ঠিত হয়নি]।

ফিলিস্তিনের ভাষা কী? – আরবি ও হিব্রু।

হামাস কী? – ফিলিস্তিনের রাজনৈতিক সংগঠন।

হামাস কবে প্রতিষ্ঠিত হয়? – ১৪ ডিসেম্বর ১৯৮৭ সালে।

ফিলিস্তিনের বুকে কবে একমাত্র ইহুদি রাষ্ট্র ইসরাইল প্রতিষ্ঠা করা হয়? – ১৪ মে ১৯৪৮ সালে।

বিশ্বের বহুল আলোচিত “রোড ম্যাপ” কী? – ইসরাইল ও ফিলিস্তিনে শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কর্মপরিকল্পনা যার মধ্যে সড়ক মানচিত্র অন্তর্ভূক্ত থাকবে।

মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রক্রিয়ায় গঠিত ‘রোড ম্যাপ’ কারা প্রণয়ন করে? – যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও জাতিসংঘ। [৩০ এপ্রিল ২০০৩ সালে ইসরাইল ও ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের হাতে রোডম্যাপ তুলে দেয়া হয়।]

ফিলিস্তিন UNESCO-এর ১৯৫তম দেশ হিসেবে সদস্য পদ লাভ করে কবে? – ৩১ অক্টোবর ২০১১ সালে।

ফিলিস্তিন জাতিসংঘের পূর্ণঙ্গ সদস্য পদের জন্য আবেদন করে কবে? – ৩১ অক্টোবর ২০১১ সালে।

ফিলিস্তিন জাতিসংঘের অসদস্য পর্যবেক্ষণ রাষ্ট্রের মর্যাদা পায় কবে? – ২৯ নভেম্বর ২০১২ সালে।

ফিলিস্তিনকে এপর্যন্ত কয়টি দেশ স্বীকৃতি দেয়? – ১৪৩টি দেশ (১১ নভেম্বর ২০১৪)।

জাতিসংঘে ফিলিস্তিনের মর্যাদা

১৯৭৪ সালের ২২ নভেম্বর জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে গৃহীত ৩২৩৭নং প্রস্তাব অনুযায়ী প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশন (PLO) জাতিসংঘে পর্যবেক্ষকের মর্যাদা লাভ করে। ১৯৮৮ সালের ১৫ ডিসেম্বর (PLO)-এর পরিবর্তে জাতিসংঘ ফিলিস্তিনকে ‘পর্যবেক্ষক ‍ভূখন্ডের’ মর্যাদা দেয়। ২০১১ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৬৬তম অধিবেশনে জাতিসংঘের ১৯৪তম সদস্য পদ লাভের জন্য আবেদন করে দেশটি। তবে জাতিসংঘের সদস্য পদ লাভের পূর্বেই ২৩ নভেম্বর ২০১১ ফিলিস্তিন ইউনেস্কোর সদস্য পদ লাভ করে। আর এটি হলো দেশটির জাতিসংঘের কোনো অঙ্গসংস্থায় প্রথম সদস্য পদ লাভ।

No comments