বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই

সাধারণ জ্ঞান : বিচার বিভাগ

বিচার বিভাগ

আপীল বিভাগ কতজন বিচারপতি থাকেন? – ১১ জন।

জেলা আদালতগুলো কী মামলা পরিচালনা করে? – দেওয়ানী ও ফৌজদারী মামলা।

বাংলায় ‘ঋণ সালিশি আইন’ কার আমলে প্রণীত হয়? – এ. কে. ফজলুল হক।

যৌতুক দেওয়া ও নেওয়ার সর্বোচ্চ শাস্তি – ১০ বছর কারাদণ্ড।

বিচার বিভাগের যাত্রা শুরু হয কতজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়ে? – ২১৮ জন।

বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতিকে কে নিয়োগ দান করে থাকেন? – রাষ্ট্রপতি।

বাংলাদেশের সুপ্রিম কোর্টের ডিভিশন কয়টি? – ২টি।

বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালত কোনটি? – সুপ্রীম কোর্ট।

সুপ্রীম কোর্টের কয়টি ডিভিশন রয়েছে? – ২টি। (হাইকোর্ট ডিভিশন ও আপিল ডিভিশন)

সুপ্রীম কোর্টের বিচারপতির কার্যকালের মেয়াদ কত? – তাদের বয়স ৬৭ বছর পূর্ণ হওয়া পর্যন্ত।

প্রধান বিচারপতি কে নিয়োগ দিয়ে থাকেন? – রাষ্ট্রপতি।

আপীল বিভাগে কতজন বিচারপতি থাকেন? – রাষ্ট্রপতি।

আপীল বিভাগে কতজন বিচারপতি থাকেন? – ১১ জন (প্রধান বিচারপতিসহ)।

বিচার বিভাগ স্বাধীন হয় কবে? – ১ নভেম্বর ২০০৭।

হাইকোর্ট ভবন কত সালে নির্মিত হয়? – ১৯০৫ সালে (পূর্ববঙ্গ ও আসাম প্রদেশের গভর্নরের বাসভবন হিসেবে এটি নির্মিত হয়)।

সুপ্রীম কোর্টের স্থায়ী আসন কোথায়? – ঢাকায়।

প্রধান বিচারপতির পরামর্শক্রমে কে বিচারপতি নিয়োগ করেন? – রাষ্ট্রপতি।

বিচার বিভাগ পৃথকীকরণ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের কাছ থেকে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটগণ কিসের দায়িত্ব নেন? – নিম্ন ফৌজদারি আদালতের।

বর্তমানে বিচার বিভাগে কতটি প্রশাসনিক ট্রাইবুনাল আছে? – ২টি।

প্রধান বিচারপতি ও অন্যান্য বিচারপতি নিয়োগের অধিকার কার? – রাষ্ট্রপতির।

বাংলাদেশের প্রথম অন্ধ পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) কে? – এডভোকেট খাদেমুল ইসলাম।

আপিল বিভাগে দুটি বেঞ্চের কার্যক্রম কবে থেকে শুরু হয়? – ২০০২ সালের ৬ মার্চ।

হাইকোর্ট বিভাগের স্থায়ী বেঞ্চ কয়টি? – ছয়টি।

সুপ্রীম জুডিসিয়াল কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত হয় কোন সংশোধনীর মাধ্যমে? – ৫ম সংশোধনী।

সুপ্রীম জুডিশিয়াল কাউন্সিলের সদস্য কতজন? – তিনজন।

গ্রাম সরকারের অধীনে গ্রাম্য আদালত প্রথম চালু করা হয় কখন? – ১ নভেম্বর, ১৯৭৬।

সুপ্রীম কোর্টের স্থায়ী আসন কোথায়? – ঢাকায়।

জেলা জজের আদালতে কোন আদালত থেকে আপীল করা যায়? – মুন্সেফ ও ম্যাজিস্ট্রেট আদালত।

বর্তমানে বিচার বিভাগের কতটি প্রশাসনিক ট্রাইবুন্যাল আছে? – ‍দুটি।

প্রধান বিচারপতির পরামর্শে বিচারপতি নিয়োগ দেন কে? – রাষ্ট্রপতি।

জেলা জজ যখন ফৌজদারী মামলা পরিচালনা করেন তখন তাকে কী বলা হয়? – দায়রা জজ।

সুপ্রীম কোর্টের বিচারপতি হওয়ার জন্য বাংলাদেশের বিচার বিভাগীয় পদে কমপক্ষে কত বছর দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হয়? – ১০ বছর।

পারিবারিক আদালত অর্ডিন্যান্স জারি হয় কবে? – ১৯৮৫ সালে।

দেশের সর্বনিম্ন আদালত কোনটি? – পল্লী আদালত বা গ্রাম্য আদালত।

পল্লী আদালতের সদস্য কতজন? – ৫ জন।

পল্লী আদালত কীরূপে গঠিত হয়? – ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং দুপক্ষের দুজন করে (কমপক্ষে ১ জন করে মেম্বার) নিয়ে পল্লী আদালত গঠিত হয়)

বাংলাদেশের প্রথম প্রধান বিচারপতি কে ছিলেন? – এ. এস. এম. সায়েম। (১২.০১.১৯৭২ থেকে ০৬.১১.১৯৭৫)

জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশন

জুয়িশিয়াল সার্ভিস কমিশন কবে গঠিত হয়? – ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০০৪।

বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশন কবে পূর্ণাঙ্গ সচিবালয় হিসাবে কাজ শুরু করে? – ১০ জানুয়ারি ২০০৭।

বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশন গঠনের পূর্বে সহকারি জজ নিয়োগ করত কোন প্রতিষ্ঠান? – পিএসসি (পাবলিক সার্ভিস কমিশন)।

বাংলাদেশ জুডিশিয়াল সার্ভিস কমিশনের সদস্য সংখ্যা কত? – ১১ জন।

No comments