বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই

সাধারণ জ্ঞান : স্থানীয় সরকার কাঠামো

স্থানীয় সরকার কাঠামো

বাংলাদেশে ইউনিয়ন পরিষদের সংখ্যা কত? – ৪৫৫০।

উপজেলা প্রথম চালু হয় কবে? – ১৯৮৫ সালে।

আয়তনে ও জনসংখ্যায় দেশের ছোট সিটি কর্পোরেশন কোনটি? – কুমিল্লা।

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ওর্য়াড সংখ্যা কতটি? – ৩৬টি (সংসদীয় আসন ৭টি)।

পৌরসভা কাদের নিয়ে গঠিত হয়? – মেয়র, নির্বাচিত কাউন্সিলর ও নারী কাউন্সিলরদের নিয়ে।

বাংলাদেশের স্থানীয় শাসন অর্ডিন্যান্স জারি হয় কবে? – ১৯৭৬ সালে।

বাংলাদেশে বর্তমানে কয় স্তর বিশিষ্ট স্থানীয় সরকার ব্যবস্থা চালু আছে? – তিন স্তর। (ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ, জেলা পরিষদ)। (নোট : ২০ এপ্রিল ২০০৮ গ্রাম সরকার ব্যবস্থা বাতিল করা হয়।)

পল্লী অঞ্চলে কোন পরিষদ উন্নয়ন সাধনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে? – ইউনিয়ন পরিষদ।

শহর এলাকায় স্থানীয় স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা কী? – পৌরসভা।

প্রথম গ্রাম পরিষদ গঠনের ঘোষণা কবে হয়? – ১৯৭৬ সালে।

গ্রাম পরিষদের নাম পরিবর্তন করা হয় কত সালে? – ১৯৮০ সালে (স্বনির্ভর গ্রাম পরিষদ নামকরণ করা হয়)।

প্রথম গ্রাম সরকার গঠিত হয় কোথায়? – ঢাকা জেলার সাভারের জিরাবো গ্রামে।

জিরাবোতে গ্রাম সরকার কবে গঠিত হয়? – ৩০ এপ্রিল ১৯৮০ সালে।

গ্রাম সরকার আইন কবে পাস হয়? – ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০০৩ সালে।

গ্রাম সরকারের প্রধান কে হবেন? – প্রতিটি ওয়ার্ড থেকে নির্বাচিত ইউপি সদস্য।

গ্রাম সরকার ব্যবস্থা চূড়ান্তভাবে বাতিল করা হয় কবে? – ২০ এপ্রিল ২০০৮।

ইউনিয়ন পরিষদ

বাংলাদেশে ইউনিয়ন পরিষদের সংখ্যা কতটি? – ৪৫৫০টি। (সূত্র- জাতীয় তথ্য বাতায়ন)

সর্বশেষ গঠিত ইউনিয়ন পরিষদ কোনটি? – পাঁচ গ্রাম। (নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলা)

জনসংখ্যায় বাংলাদেশের বৃহত্তম ইউনিয়ন কোনটি? – বৃহত্তম – ধামসোনা (সাভার, ঢাকা; জনসংখ্যা ৩০৮০২৪ জন)

কতজন প্রতিনিধি নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ গঠিত হয়? – ১৩ জন। ১ জন চেয়ারম্যান, ৯ জন সদস্য ও ৩ জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য।

ইউনিয়ন পরিষদের কাঠামো কী? – ১ জন নির্বাচিত চেয়ারম্যান, ৯টি ওয়ার্ডে ৯ জন নির্বাচিত সদস্য এবং পুরাতন প্রতিটি ওয়ার্ডে ১ জন করে মোট ৩ জন নির্বাচিত মহিলা সদস্য নিয়ে গঠিত।

ইউনিয়ন পরিষদের কার্যকাল গণনা করা হয় কোন দিন থেকে? – নির্বাচনের পর যেদিন পরিষদের প্রথম সভা হয়।

ইউনিয়ন পরিষদে মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত আসনের বিধান করা হয় কত সালে? – ১৯৯৭ সালে।

ইউনিয়ন পরিষদে পূর্বের তিনটি ওয়ার্ডকে নয়টিতে ভাগ করা হয় কবে? – ১৯৯৭ সালে।

৮ম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন কবে অনুষ্ঠিত হয়? – এপ্রিল ২০১১ – জুন ২০১১।

৯ম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন কবে অনুষ্ঠিত হয়? – ২২ মার্চ – ৪ জুন ২০১৬। (৯ম ইউপি নির্বাচন দলীয় প্রতীক অনুষ্ঠিত হয়।)

উপজেলা পরিষদ

উপজেলা ব্যবস্থার প্রবর্তক কে? – হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ।

উপজেলা পরিষদ বিল পাস হয় কবে? – ৭ নভেম্বর ১৯৮২ সালে।

দেশের সকল থানাকে উপজেলায় রূপান্তরিত করা হয় কবে? – ১৯৮৫ সালে।

উপজেলা প্রথম চালু হয় কবে? – ১৯৮৫ সালে। (৪৫টি উপজেলা নিয়ে গঠিত)।

প্রথম উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় কবে? – ১৬ ও ২০ মে, ১৯৮৫ সালে।

দ্বিতীয় উপজেলা নির্বাচন কবে অনুষ্ঠিত হয়? – ১৪-২৫ মার্চ, ১৯৯০ সালে।

উপজেলা বাতিল হয় কবে? – ১৯৯১ সালে।

বাংলাদেশ জাতয়ি সংসদে ‘উপজেলা পরিষদ বাতিলত’ বিলটি পাস হয় কবে? – ২৬ জানুয়ারি, ১৯৯২ সালে।

উপজেলা ব্যবস্থা পুনঃপ্রবর্তন করা হয় কবে? – ৩ ডিসেম্বর, ১৯৯৮ সংসদে আইন পাস করে।

জাতয়ি সংসদে ‘উপজেলা পরিষদ (সংশোধন) বিল-২০০১’ পাস হয় কবে? – ৪ এপ্রিল ২০০১।

উপজেলা পরিষদ (রহিত আইন পুন:প্রচলন ও সংশোধন) বিল ২০০৯ জাতীয় সংসদে কবে পাশ হয়? – ৬ এপ্রিল, ২০০৯।

কবে উপজেলা পরিষদের কার্যক্রমের অনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়? – ৫ মে ২০০৯।

তৃতীয় উপজেলা নির্বাচন কবে অনুষ্ঠিত হয়? – ২২ জানুয়ারি, ২০০৯ সালে।

চতুর্থ উপজেলা নির্বাচন কবে অনুষ্ঠিত হয়? – ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৪ সালে।

প্রশাসনিক থানাকে কবে থেকে পুনরায় উপজেলা নামে অভিহিত করা হয়? – ২০ এপ্রিল, ২০০০ সালে।

বাংলাদেশে মোট উপজেলার সংখ্যা কত? – ৪৮৯টি। (সর্বশেষ ওসমানী নগর, সিলেট); সূত্র- বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন।

উপজেরা পরিষদের সাচিবিক দায়িত্ব পালন করেন কে? – উপজেলা নির্বাহী অফিসার (UNO)।

উপজেলা পরিষদের সর্বশেষ কাঠামো কী?
১. চেয়ারম্যান – ১ জন (উপজেলা পরিষদের প্রধান)
২. ভাইস চেয়ারম্যান – ২ জন (পুরুষ ১ জন ও মহিলা ১ জন)
৩. সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান – ১ জন।

জেলা পরিষদ

জেলা পর্যায়ের স্থানীয় প্রশাসনের নাম কী? – জেলা পরিষদ।

জেলা পরিষদের প্রধানকে কী বলে? – জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান।

স্থানীয় সরকার সর্বোচ্চ স্তর কোনটি? – জেলা পরিষদ।

দেশের সকল মহকুমার শহরকে জেলা উন্নয়ন করা হয় কত সালে? – ১৯৮৪ সালে।

দেশের পুরাতন জেলা বা মহকুমা ছিল কতটি? – ২১টি।

প্রথম জেলা গঠিত হয় কবে? – ১৬৬৬ সালে চট্টগ্রামে।

বাংলাদেশে জেলা পরিষদের সংখ্যা কতটি? – ৬৪টি।

জেলা পরিষদ বিল কবে জাতীয় সংসদে পাস হয়? – ৩ জুলাই, ২০০০ সালে।

জেলা পরিষদের উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করবেন কে? – সংসদ সদস্যগণ।

বাংলাদেশে প্রথমবারের মত মহিলা ডিসি নিয়োগ করা হয় কবে? – ২০ মার্চ, ২০০১ সালে।

বাংলাদেশে প্রথম নিয়োগকৃত মহিলা ডি সি কারা এবং নিয়োগকৃত জেলা কোনটি? – বাংলাদেশে প্রথমবারের মত নিয়োগকৃত ডিসি চারজন।
১. কামরুনেছা খানম – মুন্সিগঞ্জ জেলা
২. বেগম মুশফেকা ইরফাত – শরিয়তপুর জেলা।
৩. বেগম মমতাজ আহমেদ – মেহেরপুর জেলা।
৪. রাজিয়া বেগম – রাজবাড়ী জেলা।

জাতীয় সংসদে জেলা পরিষদ আইন – ২০০০ বিল কবে পাস হয়? – ৩ জুলাই ২০০০ সালে।

জেলা পরিষদ কাদের নিয়ে গঠিত হয়? – ১ জন চেয়ারম্যান, ১৫ জন সদস্য এবং সংরক্ষিত আসনের জন্য ৫ জন মহিলা সদস্যসহ মোট ২১ জন সদস্য নিয়ে।

সারা দেশে জেলা পরিষদের প্রশাসক নিয়োগ করা হয় কবে? – ১৫ ডিসেম্বর ২০১১ খ্রি.

সিটি কর্পোরেশন

বর্তমানে দেশে সিটি কর্পোরেশন কতটি? – ১১টি।

সর্বশেষ সিটি কর্পোরেশন কোনটি? – গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন। (সর্বশেষ গাজীপুর, ৭ জানুয়ারি ২০১৩)

আয়তন ও জনসংখ্যায় দেশের ছোট সিটি কর্পোরেশন কোনটি? – কুমিল্লা। (আয়তনে বড় গাজীপুর)

ঢাকা কখন প্রথম পৌরসভার মর্যাদা লাভ করে? – ১ আগস্ট ১৮৬৪ সালে।

ঢাকা পৌরসভাকে কবে ‘ঢাকা মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন’ উন্নীত করা হয়? – ৩০ সেপ্টেম্বর ১৯৭৮।

ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নামকরণ করা হয় কবে? – ১৯৯০ সালে।

ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের প্রথম নির্বাচিত মেয়র কে? – মোহাম্মদ হানিফ (নির্বাচন ১৯৯৪ সালে)

ঢাকা সিটি কর্পোরেশনকে দুভাগে ভাগ করার প্রস্তাব সংবলিত স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) বিল ২০১১ জাতীয় সংসদে পাশ হয় কবে? – ২৩ ডিসেম্বর ২০১১।

ঢাকা সিটি কর্পোরেশন কী নামে বিভক্ত হয়? – ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন।

একনজরে সিটি কর্পোরেশন

সিটির নাম
প্রতিষ্ঠা
ওয়ার্ড সংখ্যা
আয়তন
(বর্গ কিমি)
ঢাকা উত্তর
১ ডিসেম্বর ২০১১
৩৬
৮২.৬৪
ঢাকা দক্ষিণ
১ ডিসেম্বর ২০১১
৫৬
৪৭.২১
চট্টগ্রাম
৩১ জুলাই ১৯৯০
৪১
১৫৫.৫০
রাজশাহী
১১ সেপ্টেম্বর ১৯৮৮
৩৫
৯৬.৭২
খুলনা
৬ আগস্ট ১৯৯০
৩১
৪৫.৬৫
বরিশাল
২৫ জুলাই ২০০২
৩০
৪৫
সিলেট
২৮ জুলাই ২০০২
২৭
২৭
নারায়নগঞ্জ
৫ মে ২০১১
২৭
৭২.৪৩
কুমিল্লা
১০ জুলাই ২০১১
২৭
৫৩.০৪
রংপুর
০১ জুলাই ২০১২
৩৩
২০৩
গাজীপুর
৭ জানুয়ারি ২০১৩
৫৭
৩২৯.৫৩

পৌরসভা

সর্বপ্রথম পৌর প্রতিষ্ঠান গঠনের লক্ষ্যে আইন পাস হয় কবে? – ১৮৪২ সালে।

ব্রিটিশ আমলে পৌরসভা আইন পাস হয় কবে? – ১৮৫০ সালে।

স্বাধীন বাংলাদেশে পৌরসভা অধ্যাদেশ জারি হয় কবে? – ১৯৭৭ সালে।

পৌরসভা সাধারণত কত শ্রেণির হয়? – ৩ শ্রেণির (ক, খ ও গ)

পৌরসভার শ্রেণি নির্ধারণ করা হয় কিভাবে? – যেসব পৌরসভা মোট ধার্য করের ৭৫ ভাগ আদায় করতে সক্ষম হয় এবং বার্ষিক নিজস্ব আয় ১ কোটি টাকার উপরে সেগুলোকে ‘ক’ শ্রেণির পৌরসভার অন্তর্ভূক্ত করা হয়। এরপর পর্যায়ক্রমে ৬০ লাভ টাকা আয় হলে ‘খ’ শ্রেণি এবং ২০ লাভ টাকা আয় হলে ‘গ’ শ্রেণির পৌরসভা করা হয়।

পৌরসভা কাদের নিয়ে গঠিত হয়? – মেয়র, নির্বাচিত কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলরদের নিয়ে।

শহর এলাকায় স্থানীয় স্বায়ত্ত্বশাসিত সংস্থা কী? – পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশন।

আয়তনে বৃহত্তম ও ক্ষুদ্রতম পৌরসভার নাম কী? – যথাক্রমে বগুড়া সদর ও ভেদরগঞ্জ, শরীয়তপুর।

সম্প্রতি দেশে প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে পৌরসভা নির্বাচন কবে অনুষ্ঠিত হয়? – ৩০ ডিসেম্বর ২০১৫। (ইউনিয়ন পরষদ নির্বাচনও দলীয় প্রতীকে হয়)

বাংলাদেশে পৌরসভার সংখ্যা কতটি? – ৩২৬টি। প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি ভোষিত সর্বশেষ পৌরসভা- আলফাডাঙ্গা, ফরিদপুর (২৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৬)।

No comments