বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই

সাধারণ জ্ঞান : কম্পিউটার ও কম্পিউটারের ইতিহাস

কম্পিউটার ও কম্পিউটারের ইতিহাস

কম্পিউটার কি?

কম্পিউটার শব্দটি এসেছে – গ্রিক শব্দ থেকে।

কোন শব্দ থেকে কম্পিউটার শব্দটির উৎপত্তি? – কম্পিউট।

কম্পিউট শব্দের অর্থ – গণনা করা।

কম্পিউটার কী ধরনের যন্ত্র? – ইলেক্ট্রনিক যন্ত্র।

বর্তমান যুগকে বলা হয় – তথ্য যুগ।

বর্তমান সময়কে বলা হয় – তথ্য প্রযুক্তির যুগ।

কম্পিউটার ও এর কাজ করার বৈশিষ্ট্য

কম্পিউটারের কাজ করার গতি হিসাব করা হয় – ন্যানো সেকেন্ডে।

১ মাইক্রো সেকেন্ড ১ সেকেন্ডের কত ভাগের সমান? – ১০ লক্ষ।

১ মিলি সেকেন্ড ১ সেকেন্ডের কত ভাগের সমান? – ১ হাজার।

১ মিলি সেকেন্ড সমান কত? – ১ সেকেন্ডের এক হাজার ভাগের এক ভাগ।

১ সেকেন্ডের ১০০ কোটি ভাগের ১ ভাগ সমান – ১ ন্যানো সেকেন্ড।

১ ন্যানো সেকেন্ড = কত সেকেন্ড? – ১/১০০ কোটি।

১ ন্যানো সেকেন্ড হল এক সেকেন্ডের কত ভাগ? – একশত কোটি ভাগের এক ভাগের সমান।

কম্পিউটারের কয়টি প্রধান বৈশিষ্ট্য আছে? – ৩টি।

এক সেকেন্ডের এক লক্ষ কোটি ভাগের এক ভাগ সময়কে বলে – ১ পিকো সেকেন্ড।

কম্পিউটারে ‍ভুল ফলাফল প্রদর্শন করলে বুঝতে হবে – ডাটা ইনপুট করায় ভুল হয়েছে।

কম্পিউটারের সঙ্গে অন্যান্য ইলেক্ট্রনিক যন্ত্রের পার্থক্য

ক্যালকুলেটরের সাহায্যে করা যায় – সাধারণ গণনা।

কম্পিউটারের সাথে অন্য সকল ইলেক্ট্রনিক যন্ত্রের সবচেয়ে বড় পার্থক্য কোনটি? – প্রোগ্রামিং যন্ত্র।

ক্যালকুলেটরের স্মৃতিশক্তি – অস্থায়ী।

কম্পিউটার ও মোবাইল ফোনের মধ্যে পার্থক্য

হাতের তালুতে রেখে ব্যবহারযোগ্য কম্পিউটার কোনটি? – পামটপ।

কম্পিউটার দিয়ে সর্বপ্রথম কোন কাজটি করানো হতো? – গণনার কাজ।

মোবাইল ফোনের সাহায্যে কী করা সম্ভব? – কথা বলা, গন শোনা ও হিসাব করা।

কম্পিউটারের কাজ করার পদ্ধতি

কম্পিউটারের কাজ করার পদ্ধতি কি রকম? – ইনপুট > সিপিইউ > আউটপুট

যে সকল যেন্ত্রের মাধ্যমে তথ্য দেওয়া হয় তাকে কী বলে? – ইনপুট ডিভাইস।

কম্পিউটারের প্রক্রিয়াকরণের পর প্রাপ্ত ফলাফলকে বলা হয় – আউটপুট।

CPU-এর পূর্ণরূপ হচ্ছে – Central Processing Unit

কম্পিউটারের প্রকারভেদ ও তার বৈশিষ্ট্য

কাজের প্রক্রিয়া/পদ্ধতি অনুসারে কম্পিউারকে মূলত কয় ভাগে ভাগ করা যায়? – ৩ ভাগে। (এনালগ কম্পিউটার, ডিজিটাল কম্পিউটার, হাইব্রিড কম্পিউটার)

এনালগ কম্পিউটার
কোন কম্পিউটার পরিমাপন পদ্ধতিকে কাজ করে? – এনালগ।

এনালগ কম্পিউটারের মূল বৈষ্ট্যি কী? – পর্যায়ক্রমিকভাবে ওঠানামা করা।

ডিজিটাল কম্পিউটার
ডিজিটাল কম্পিউটারের কাজের ধরন কীরূপ? – অগ্রসরমান ও পর্যায়ক্রমিক

ডিজিটাল কম্পিউটার কত প্রকার? – ৪ প্রকার।

হাইব্রিড কম্পিউটার
নিচের কোন ক্ষেত্রে হাইব্রিড কম্পিউটার ব্যবহৃত হয়? – ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের কাজ।

কম্পিউটারের শ্রেণিবিভাগ

আকার ও আকৃতি অনুসারে কম্পিউটার কত প্রকার? – ৪ প্রকার। (সুপার কম্পিউটার, মেইনফ্রেম কম্পিউটার, মিনিফ্রেম কম্পিউটার, মাইক্রো কম্পিউটার)

সুপার কম্পিউটার
সবচেয়ে শক্তিশালী কম্পিউটার হল – সুপার কম্পিউটার।

বাংলাদেশে এ পর্যন্ত সুপার কম্পিউটার স্থাপিত হয়েছে কতটি? – একটিও না।

মেইনফ্রেম কম্পিউটার
বাংলাদেশে ১৯৬৪ সালে স্থাপিত আইবিএম-১৬২০ কম্পিউটারটি কোন প্রকারের কম্পিউটার? – মেইফ্রেম।

আমাদের দেশে প্রথম কম্পিউটার আসে কত সালে? – ১৯৬৪ সালে।

কোন সালে বাংলাদেশে প্রথম কম্পিউটার স্থাপিত হয়? – ১৯৬৪ সালে।

বাংলাদেশ স্থাপিত প্রথম কম্পিউটারের মডেল কি ছিল? – আইবিএম ১৬২০।

১৯৬৪ সালে বাংলাদেশে প্রথম স্থাপিত আই বি এম ১৬২০ মডেলের কম্পিউটারের প্রোগ্রামার কে ছিলেন? – মুহাম্মদ হানিফ উদ্দিন মিয়া।

১৯৬৪ সালে বাংলাদেশে কোন কম্পিউটার স্থাপিত হয়? – IBM-1620.

আইবিএম-১৬২০ কম্পিউটারটি কত সালে বাংলাদেশে স্থাপন করা হয়েছিল? – ১৯৬৪।

আইবিএম-১৬২০ কম্পিউটারটি ------ কম্পিউটার। - মেইনফ্রেম।

মিনিফ্রেম কম্পিউটার
মেইনফ্রেম থেকে আকারে ছোট কিন্তু পার্সোনাল কম্পিউটারের থেকে বড় কম্পিউটারকে বলে – মিনিফ্রেম কম্পিউটার।

আইবিএম এস/৩৪, এস/৩৬ ইত্যাদি হচ্ছে – মিনিফ্রেম কম্পিউটার।

কোনটিকে মিডরেঞ্জ কম্পিউটার বলা হয়? – মিনিফ্রেম কম্পিউটার।

মাইক্রোকম্পিউটার
মাইক্রো শব্দের অর্থ – ক্ষুদ্র।

‘পিসি’ (PC) অর্থ – পার্সোনাল কম্পিউটার। PC means – Personal Computer.

PDA কোন ধরনের কম্পিউটার? – মাইক্রোকম্পিউটার।

কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার ও সফ্টওয়্যার

হার্ডওয়্যার
কম্পিউটার সংগঠন বা হার্ডওয়্যার এর প্রধান অংশ কয়টি? – ৩টি।

কম্পিউটারের হার্ডওয়্যারকে প্রাথমিকভাবে কয় ভাগে ভাগ করা যায়? – তিন।

সফ্টওয়্যার
সফ্টওয়্যার মূলত – অদৃশ্য শক্তি।

কম্পিউটারেরর প্রাণ কোনটি? – সফ্টওয়্যার।

সফ্টওয়্যার কত প্রকার? – ২ প্রকার।

কোনটি কম্পিউটারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ – সফ্টওয়্যার।

কম্পিউটারের অতি সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

প্রাচীন গণনাযন্ত্র
রোমান ভাষায় ক্যালকুলি (Calculi)-এর বাংলা অর্থ হল – নুড়ি।

ইনকা মানবগোষ্ঠী তথ্য বিনিময়ের জন্য কী ব্যবহার করত? – গিঁট দেওয়া দড়ি।

প্রথম গণনাযন্ত্র কোনটি? – এ্যাবাকাস।

জাপানে এ্যাবাকাসকে কী বলা হয়? – সারোবান।

জাপানে প্রথম গণনাযন্ত্রের নাম কী? – সারোবান।

রাশিয়ায় এ্যাবাকাসকে কী বলা হয়? – স্কোসিয়া।

১৬১৪ সালে কে গলারিদমের সারণি তৈরি করেন? – জন নেপিয়ার।

১৬৩০ সালে প্রথম তৈরি হয় – স্লাইড রুল।

গণনা যন্ত্রে গিয়ারের সাহায্যে চাকা চালানোর পদ্ধতি ব্যবহার করেন – ব্লেইজ প্যাস্কেল।

কোন বিজ্ঞানী ১৬৩০ সালে প্রথম স্লাইডরুল তৈরি করেন? – ডইলিয়াম অটরডে।

কম্পিউটারের প্রাথমিক যুগ

পুনঃপুন যোগের মাধ্যমে পদ্ধতি আবিষ্কার করেন কে? – লিবনিজ।

কোন যন্ত্রটি চার্লস ব্যাবেজ-এর তৈরি? – ডিফারেন্স ইঞ্জিন।

কম্পিউটারের জনক বলা হয় – চার্লস ব্যাবেজকে।

চার্লস ব্যাবেজ কত সালে এ্যানালিটিকেল ইঞ্জিন তৈরির পরিকল্পনা গ্রহণ করেন? – ১৮৩৩।

চার্লস ব্যাবেজ কোন দেশের নাগরিক? – ব্রিটেন।

IBM-এর পূর্ণ নাম কী? – International Business Machine.

ইলেকট্রো মেকানিক্যাল যুগ

পৃথিবীর প্রথম স্বয়ংক্রিয় গণনাযন্ত্রের নাম – MARK-1

কোন যন্ত্রটি দিয়ে ২০ জন মানুষের একসঙ্গে ডেক্স ক্যালকুলেটর দিয়ে কাজ করার সমান গতিতে কাজ করা যেত? – মার্ক-১।

মার্ক-১ এর দৈর্ঘ্য ছিল – ৫১ ফুট লম্বা।

ইলেকট্রনিক যুগ

কত সালে প্রথম কম্পিউটারে সংরক্ষিত প্রোগ্রামের অভিধারণার জন্ম হয়? – ১৯৪৫ সালে।

সর্বপ্রথম বাণিজ্যিক ভিত্তিতে তৈরি ইলেকট্রনিক কম্পিউটার কোনটি? – ইউনিভ্যাক।

সংরক্ষিত প্রোগ্রামবিশিষ্ট প্রথম কম্পিউটার এডসাক কে তৈরি করেন? – নিউম্যান।

১৯৪৯ সালে তৈরি হয় – এডভ্যাক।

প্রথম কম্পিউটার সরবরাহ করা হয় ব্যুরো অব সেন্সাস অফিসের নাম কি এবং কখন? – UNIVAC, 1951.

UNIVAC কম্পিউটার দ্বিতীয়টি আমেরিকার কোথায় সরবরাহ করা হয়? – বিমান বাহিনীতে।

কম্পিউটার প্রজন্ম বিভাগ

কম্পিউটারের প্রজন্ম কয়টি? – ৫টি।

কম্পিউটারের প্রজন্ম হল – ৫টি।

বর্তমানে ব্যবহৃত কম্পিউটারগুলো কোন প্রজন্মের? – চতুর্থ।

প্রথম প্রজন্মের কম্পিউটার
প্রথম প্রজন্মের প্রথম কম্পিউটার কোনটি? – UNIVAC-1.

এনিয়াক (ENIAC) এর ওজন কত টন ছিল? – ৩০ টন।

ইউনিভ্যাক-১ ছিল – প্রথম প্রজন্মের কম্পিউটার।

সংরক্ষিত প্রোগ্রামের ধারণা দেন কে? – ড. জন ভন নিউম্যান।

কম্পিউটার সংরক্ষিত প্রোগ্রামের ধারণার সূত্রপাত করেন কে? – ড. জন ভন নিউম্যান।

মার্ক-৩ কোন প্রজন্মের কম্পিউটার? – ১ম প্রজন্ম।

প্রথম প্রজন্মের কম্পিউটারের ইনপুট আউটপুট হিসাবে কী ব্যবহার করা হতো? – পাঞ্চকার্ড।

১৯৫১ সালে মার্চ মাসে ইউনিভ্যাক তৈরি করেন কে? – জন মউসলি ও প্রেসপার একার্ট।

দ্বিতীয় প্রজন্মের কম্পিউটার
কত সালে ট্রানজিস্টর উদ্ভাবন করা হয়? – ১৯৪৮ সালে।

ট্রানটিস্টর ব্যবহার করে তৈরি কম্পিউটারগুলো – দ্বিতীয় প্রজন্মের কম্পিউটার।

১৯৬৪ সালে সর্বপ্রথম বাংলাদেশে স্থাপিত কম্পিউটারটি কোন প্রজন্মের ছিল – দ্বিতীয় প্রজন্মের।

কোন প্রজন্মের কম্পিউটারে সর্বপ্রথম উচ্চতর প্রোগ্রামিং ভাষা ব্যবহৃত হয়? – দ্বিতীয় প্রজন্মের।

IBM 1400 একটি – প্রজন্মের কম্পিউটার। - দ্বিতীয়।

দ্বিতীয় প্রজন্মের সফল মিনিফ্রেম কম্পিউটার হচ্ছে – আরসি এ-৩০১।

জিই ২০০ কোন প্রজন্মে কম্পিউটার? – দ্বিতীয় প্রজন্মের।

তৃতীয় প্রজন্মের কম্পিউটার
পিডিপি-৮ কোন ধরনের কম্পিউটার? – মিনিফ্রেম কম্পিউটার।

পিডিপি-৮ কোন প্রজন্মের কম্পিউটার? – তৃতীয়।

মনোলিথিক ইনটিগ্রেটেড সার্কিট (MIC) ব্যবহার হয় কোন প্রজন্মের কম্পিউটারে? – তৃতীয়।

কোন প্রজন্মে কম্পিউটারের সঙ্গে মনিটরের প্রচলন শুরু হয়? – ৩য় প্রজন্মে।

কোন প্রজন্ম থেকে কম্পিউটারের সঙ্গে টেলিভিশনের পর্দার মত মনিটরের প্রচলন শুরু হয়? – তৃতীয় প্রজন্ম।

নিম্নের কোনটি ৩য় প্রজন্মের কম্পিউটার? – জিই ৬০০।

চতুর্থ প্রজন্মের কম্পিউটার
ইনটেল কোন দেশের কোম্পানী? – যুক্তরাষ্ট্র।

ইনটেল নামক প্রতিষ্ঠানের তৈরি প্রথম মাইক্রোপ্রসেসরের নাম কী? – ইনটেল ৪০০০।

১৯৭১ সালে তৈরি প্রথম মাইক্রোপ্রসেসরটি ছিল – ইনটেল ৪০০৪।

প্রথম বাজারে আসা মাইক্রোপ্রসেসরটির কী নামে পরিচিত ছিল? – ৪০০৪।

১৯৭১ সালে তৈরি ইনটেল ৪০০৪ মাইক্রোপ্রসেসরটি ছিল – ১২ বিটের।

ইনটেল-৪০০৪ মাইক্রোপ্রসেসরে মোট কতটি ট্রানজিস্টর ব্যবহৃত হয়েছিল? – ২৩০০।

বর্তমানে ব্যবহৃত পিসি – - - প্রজন্মের। - চতুর্থ।

মাইক্রোকম্পিউটার কোন প্রজন্মের অন্তর্গত? – চতুর্থ।

মাইক্রোসফ্ট কোম্পানি এর প্রধান সফ্টওয়্যার স্থপতির নাম কী? – বির গেটস।

১৯৭১ সালে আবিষ্কৃত হয় – মাইক্রোপ্রসেসর।

প্রথম মাইক্রোপ্রসেসর তৈরি করে কোন প্রতিষ্ঠান? – এ্যাপল।

বস্তুত কত সালে মেকিনটোস কম্পিউটার জন্ম নেয়? – ১৯৮৪ সালে।

------ সালে মাইক্রোপ্রসেসর আবিস্কৃত হয়। – ১৯৭১ সালে।

মাইক্রো কম্পিউটারের মূল অংশ – মাইক্রো প্রসেসর।

মাইক্রোপ্রসেসর কিসের চাহিদা মেটাতে উদ্ভাবিত হয়? – ক্যালকুলেটরের।

মাইক্রোপ্রসেসর অতি ছোট মাপের অতি অল্প আয়তনবিশিষ্ট ---- এর তৈরি। – সিলিকন।

পঞ্চম প্রজন্মের কম্পিউটার
প্রঞ্চম প্রজন্মের কম্পিউটার হবে – কৃত্রিম বুদ্ধিসম্পন্ন।

সফ্টওয়্যারের ক্রমবিকাশ

সফ্টওয়্যার শব্দটি কখন প্রথম ব্যবহার করা হয়? – ১৯৫৮ সালে।

১৯৮২ সালে কোনটি লেখালেখির কাজে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে? – Word Perfect.

বাংলাদেশে কম্পিউটার

বাংলাদেশে প্রথম কম্পিউটার স্থাপিত হয় – পরমাণু শক্তি কেন্দ্র, ঢাকায়।

বাংলাদেশে প্রথম কম্পিউটারের ম্যামরি ছিল – ২০ কিলোবাইট।

No comments