বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই

সাধারণ জ্ঞান : গম, তেলবীজ, তুলা, তামাক, রেশম, ডাল, আলু

গম

বাংলাদেশের কোন জেলায় সবচেয়ে বেশি গম উৎপন্ন হয়? – রংপুর।

গম গবেষণা কেন্দ্র কোথায়? – দিনাজপুর।

নতুন উদ্ভাবিত উচ্চফলণশীল গম বীজের নাম কী? – শতাব্দী।

তেলবীজ

‘সফল’ ও অগ্রণী’ কী? – উন্নত জাতের সরিষা।

কিরণী ডিএস-১ কী? – সূর্যমুখী তেলবীজের একটি উন্নত জাত।

দেশের প্রধান প্রধান তেলবীজগুলো কী কী? – সরিষা, চীনাবাদাম, তিল, সূর্যমুখী, সয়াবিন, তিসি, নারিকেল, বাজনা, পীতরাজ প্রভৃতি।

টি-৬ কী? – একটি তেলবীজ।

বাংলাদেশের কী পরিমাণ জমিতে সরিষঅ জন্মে? – সাড়ে ৫ লাখ একর।

তুলা

তুলা উন্নয়ন বোর্ড (CDB) কবে গঠিন করা হয়? – ১৪ ডিসেম্বর ১৯৭২।

তুলা উন্নয়ন বোর্ডের সদর দফতর কোথায়? – ফার্মগেট, ঢাকা।

তুলা উন্নয়ন বোর্ড কোন মন্ত্রণালয়ের অধীন? – কৃষি মন্ত্রণালয়।

সিবি-১০ কী? – উন্নত জাতের তুলাবীজ।

বাংলাদেশের কোন জেলা তুলা চাষের জন্য উপযোগী? – যশোর জেলা।

‘রূপালী’ ও ‘ডেলফোজ’ কী? – ‍দুটি উন্নতজাতের তুলা শস্য।

তামাক

কোন জেলায় বেশি তামাক উৎপন্ন হয়? – বহত্তর রংপুর জেলায়।

‘সুমাত্রা’ ও ‘ম্যালিনা’ স্থান ছাড়া কোন জাতীয় শস্যের নাম? – তামাক জাতীয় শস্য।

রেশম

বাংলাদেশের কোন কোন অঞ্চলে রেশমগুটির চাষ হয়? – রাজশাহী, দিনাজপুর, রংপুর ও বগুড়া অঞ্চলে রেশম চাষ হয়। বর্তমানে ফরিদপুর, টাঙ্গাইল, সিলেট, চট্টগ্রাম ও কুমিল্লা অঞ্চলে রেশমগুটির চাষ হচ্ছে।

বাংলাদেশ রেশম গবেষণা প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট কোথায়? – রাজশাহী।

রেশম চাষকে কী বলা হয়? – সেরিকালচার।

রেশম পোকার বৈজ্ঞানিক নাম কী? – Bombyx mori.

সর্বপ্রথম কখন রেশম উদ্ভাবিত হয়? – আজ থেকে প্রায় ৪৫০০ বছর পূর্বে চীন দেশে প্রথম রেশম উদ্ভাবিত হয়।

রেশম পোকা বা মথ কী খেয়ে বেঁচে থাকে? – তুঁত গাছের পাতা।

ডাল

বাংলাদেশ ডাল গবেষণা কেন্দ্র কোথায় অবস্থিত? – ঈশ্বরদীতে।

বাংলাদেশ ডাল গবেষণা কেন্দ্র কবে প্রতিষ্ঠিত হয়? – ১৯৮৭ সালে।

হাপ্রো ছোলা কী? – BINA কর্তৃক উদ্ভাবিত ছোলা।

বিনামুগ-২ কোন প্রতিষ্ঠানের উদ্ভাবিত ফসল? – বিনা।

আলু

আলু’র ইংরেজি ‘Potato’ শব্দটি এসেছে কোথা থেকে? – স্প্যানিশ Potato থেকে।

‘ডায়মন্ড’, ‘কার্ডিনেল’, ‘কুফরী’ ও ‘সিন্দুরী’ কী? – উন্নত জাতের আলু।

বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি আলু উৎপন্ন হয় কোন জেলায়? – মুন্সিগঞ্জ জেলায়।

কোন দেশ থেকে বাংলাদেশে আলু আনা হয়? – নেদারল্যান্ডস (পূর্বনাম হল্যান্ড)।

বাংলায় আলু চাষের বিস্তার লাভ করে কত সালে? – ১৭৭০ সালে।

কোন ব্রিটিশ গভর্ণরের উদ্যোগে বাংলায় আলু চাষের বিস্তার লাভ করে? – ওয়ারেন হেস্টিংস-এর উদ্যোগে।

দৈনিক মাথপিছু আলু খাওয়ার পরিমাণ কত গ্রাম? – ১১৩ গ্রাম।

বিএডিসি’রি কতটি হিমাগার আছে? – ১৬টি।

দেশের সমস্ত হিমাগারে আলুর ধারণক্ষমতা কত লক্ষ মেট্রিক টন? – ২০-২২ লক্ষ।

আলু বিশ্বের প্রধান কী ফসল? – কন্দাল ফসল।

ধান, গম ও ভুট্টার পর চতুর্থ বৃহত্তর খাদ্যশস্য কী? – আলু।

বিশ্বের প্রথম আলু জাদুঘর স্থাপিত হয়েছিল কত সালে? – ১৯৭৫ সালে।

No comments