বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই

সাধারণ জ্ঞান : রাবার, আখ, আম, BINA উদ্ভাবিত ফসলের জাত

রাবার

বাংলাদেশের কোথায় কোথায় রাবার উৎপন্ন হয়? – বহত্তর সিলেট, চট্টগ্রাম, পার্বত্য চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারের সন্নিকটে রামু নামক স্থানে।

দেশে প্রথম রাবার বাগান কোথায় করা হয়? – কক্সবাজারের রামুতে।

প্রথম কবে রামুতে রাবার গাছ লাগানো হয়? – ১৯৬১ সালে।

রামুতে কতটুকু এলাকা জুড়ে রাবার চাষ হয়? – ২৬৩০ একর (প্রায়)।

বাংলাদেশ বনশিল্প উন্নয়ন কর্পোরেশন-এর আওতাধীন রাবার বাগান কতটি? – ১৬টি।

বাংলাদেশের রাবার জোন হিসেবে খ্যাত কোন স্থান? – বাইশারী (বান্দরবান)।

বাইশারীতে প্রথম রাবার বাগানের যাত্রা শুরু হয় কবে? – ১৯৮২ সালে।

আখ

বাংলাদেশ ইক্ষু গবেষণা ইনস্টিটিউট (BSRI) কবে প্রতিষ্ঠিত হয়? – ১৯৫১ সালে।

BSRI এর পূর্ণরূপ কী? – Bangladesh Sugarcane Research Institue.

BSRI-এর সদর দপ্তর কোথায়? – ঈশ্বরদী, পাবনা।

আম

‘মহানন্দা’ নাম কিসের? – BARI উদ্ভাবিত উন্নতজাতের আমের।

বাংলাদেশে আম গবেষণা কেন্দ্র কবে, কোথায় স্থাপন করা হয়? – ১৯৮৫ সালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায়।

‘মোহনভোগ’, ‘ল্যাংড়া’, ‘গোপালভোগ’ কিসের নাম? – উন্নত জাতের আম।

নদী ছাড়া ‘মহানন্দা’ কী? – উন্নত জাতের আম।

বাংলাদেশের কোন জেলায় আম উৎপাদন বেশি হয়? – চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় (মোট উৎপাদনের অর্ধেক)।

বাংলাদেশে কত একর জমিতে আম উৎপাদন হয়? – ১ লাখ ২৪ হাজার ৫২০ একর।

BARI কর্তৃক উদ্ভাবিত আমের জাত কী কী? – বারি আম-১ (মহানন্দা), বারি আম-২, বারি আম-৩, বারি আম-৪।

আমকে সর্বপ্রথম বহির্বিশ্বে কে পরিচিত করান এবং কত সালে? – রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও দিনাজপুর।

বাংলাদেশের কত প্রজাতির আম রয়েছে? – ১০০ প্রজাতির।

বাংলাদেশে উন্নত জাতের আমের নামগুলো কী কী? – ফজলী, ল্যাংড়া, গোপালভোগ, হিমসাগর, ক্ষীরসাপাতি, আশ্বিনা কিষাণভোগ, কুয়াপাহাড়ি, লতা, বোম্বাই, ফোরিয়া কোহিতুর, লক্ষণভোগ, মোহনভোগ, মিশ্রিভোগ, মহানন্দা ইত্যাদি।

আম গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান উদ্দেশ্য কী? – আম চাষের উপর সার্বিক গবেষণা পরিচালনা করা এবং আমের জাতিগত উন্নতি ও উৎপাদন বৃদ্ধি।

BINA উদ্ভাবিত ফসলের জাত

বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (BINA) উদ্ভাবিত উচ্চ ফলনশীল জাত হচ্ছে –

ধান : ইরাটম-২৪, ইরাটম-৩৮, বিনাশাইল, বিনা-৪, বিনা-৫, বিনা-৬, বিনা-৭, বিনা ধান-১৭

চীনা বাদাম : বিনা চীনাবাদাম-১, বিনা চীনা বাদাম-২, বিনা চীনা বাদাম-৩

মুগ : বিনামুগ-১, বিনামুগ-২, বিনামু-৩, বিনামুগ-৪, বিনামুগ-৫, বিনামুগ-৫, বিনামুগ-৭

ছোলা : হাইপ্রোছোলা, বিনাছোলা-২, বিনাছোলা-৩, বিনাছোলা-৪

মাষকলাই : বিনামাষ-১

মসুর : বিনামসুর-১, বিনামসুর-২, বিনামসুর-৩

খেসারী : বিনাখেসারী-১

পাট : এটমপাট-৩৮, বিনাবিদেশি পাট-২, বিনাপাটশাক-১

টমেটো : বাহার, বিনাটমোটো-২, বিনাটমেটো-৩, বিনাটমেটো-৪, বিনাটমেটো-৫

তিল : বিনাতিল-১

অন্যান্য তথ্য

‘ঝুম’ চাষ পদ্ধতি বাংলাদেশের কোন জেলাসমূহে দেখা যায়? – চট্টগ্রাম ও পার্বত্য চট্টগ্রামের জেলাসূহ।

বাংলাদেশের মসলা গবেষণা কেন্দ্র কোথায় অবস্থিত? – বগুড়া।

বাংলাদেশের ডাল গবেষণা ইনস্টিটিউট কোথায় অবস্থিত? – ইশ্বরদী।

বাংলাদেশের ইক্ষু গবেষণা কেন্দ্র কোথায় অবস্থিত? – ইশ্বরদী।

বাংলাদেশের আম গবেষণা কেন্দ্র কোথায় অবস্থিত? – চাঁপাইনবাবগঞ্জ (১৯৮৪ সালে প্রতিষ্ঠিত)।

আম উৎপাদনে বাংলাদেশের অবস্থান কত? – ১৪তম।

বাংলাদেশের কোন জেলায় আম উৎপাদন বেশি হয়? – চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় (দেশের মোট উৎপাদনের প্রায় অর্ধেক)।

বাংলাদেশের রেশম বোর্ড কোথায় অবস্থিত? – চাঁপাই নবাবগঞ্জ (১৯৭৭ সালে প্রতিষ্ঠিত)।

বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি রেশম উৎপন্ন হয় কোন জেলায়? – রাজশাহী জেলায়।

বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি রাবার উৎপন্ন হয় কোথায়? – কক্সবাজার জেলার রামু।

বাংলাদেশে রাবার চাষ শুরু কবে? – ১৯৬৫ সাল।

বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি তামাক উৎপন্ন হয় কোথায়? – রংপুর জেলায়।

বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি নারিকেল উৎপন্ন হয় কোথায়? – বরিশাল, খুলনা, নোয়াখালী ও যশোর জেলায়।

বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি আনারস উৎপন্ন হয় কোথায়? – পার্বত্য চট্টগ্রাম ও সিলেট জেলায়।

কোন দেশ থেকে বাংলাদেশে আলু আনা হয়? – হল্যান্ড (বর্তমান নেদারল্যান্ড)।

No comments