বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই
Install "My All Garbage" App to SAVE content in your mobile

ভাবসম্প্রসারণ : চিরসুখীজন ভ্রমে কি কখন / ব্যথিত বেদন বুঝিতে কি পারে? / কি যাতনা বিষেবুঝিবে সে কিসে / কভু আশীবিশে দংশেনি যারে?

চিরসুখীজন ভ্রমে কি কখন
ব্যথিত বেদন বুঝিতে কি পারে?
কি যাতনা বিষে
বুঝিবে সে কিসে
কভু আশীবিশে দংশেনি যারে?

মূলভাব : যারা সবসময় সুখে শান্তিতে থাকে, দুঃখ কষ্ট তাদের নাগালের বাইরে তারা কি করে অন্যের ব্যথা বুঝবে।

সম্প্রসারিত-ভাব : ঐশ্বর্য ও বিলাসব্যসনে যে মানুষ কালাতিপাত করে সে কখনও আর্তমানবের দুঃখযন্ত্রণা অনুভব করে না। দুঃখের অভিজ্ঞতা দিয়ে দুঃখ বুঝতে হয়। যে মানুষকে কখনও সাপে কাটে নি, সে মানুষ সর্পবিষে তীব্রতা একেবারেই উপলব্ধি করতে পারে না। বস্তুত জীবনে যে কোন দিন দঃখের জ্বালা অনুভব করেন তার পক্ষে ব্যাথতের বেদনা উপলব্ধি করা সহজ নয়। কি নিদারুণ মর্মজ্বালা যে একটি বুভুক্ষু ভিখারী নিজের অন্তরের মধ্যে অনুভব করছে, বিলাস জীবনে লালিত ধনীর দুলাল তা উপলব্ধি করতে পারে না এবং তা পারে না বলেই একমুষ্টি অন্নপ্রার্থী ভিখারীর দলকে সকরুণ নয়নে তার সুন্দর গৃহদ্বার থেকে লাঞ্ছিত হয়ে ফিরে যেতে হয়। এতে আশ্চর্য হওয়ার কিছুই নেই। এটাই নিয়ম। একজন যুবকের পক্ষে বৃদ্ধের অসহায়ত্ব বুঝা দুষ্কর। উল্লসিত মানুষের কাছে শোকের কথা তাৎপর্যহীন। এ জাতীয় লোকের কাছে থেকে সমবেদনা আশা করারও বাতুলতা। অপরের দুঃখে যার হৃদয় কাতর নয়, সে কখনও অশ্রু বিসর্জন করবে না।

তাই বলা যায়, যাকে সাপে কাটেনি সে কি করে সাপের বিষ অনুভব করবে।

No comments