My All Garbage

Shuchi Potro
সাধারণ জ্ঞান বাংলা ব্যাকরণ বাংলা রচনা সমগ্র ভাবসম্প্রসারণ তালিকা অনুচ্ছেদ চিঠি-পত্র ও দরখাস্ত প্রতিবেদন প্রণয়ন অভিজ্ঞতা বর্ণনা সারাংশ সারমর্ম খুদে গল্প ভাষণ লিখন দিনলিপি সংলাপ অ্যাসাইনমেন্ট-২০২১ English Grammar Composition / Essay Paragraph Letter, Application & Email Dialogue List Completing Story Report Writing Graphs & Charts পুঞ্জ সংগ্রহ বই পোকা হ য ব র ল তথ্যকোষ পাঠ্যপুস্তক CV & Job Application My Study Note আমার কলম সাফল্যের পথে
About Contact Service Privacy Terms Disclaimer Earn Money


মুক্তিযোদ্ধা দিবস - বুদ্ধিজীবী হত্যা দিবস - বিজয় দিবস
বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শিক্ষা সহায়ক ওয়েব সাইট

রচনা : বাংলাদেশের পরিচিত পাখী

সূচনা : 
“এদেশ পাখির দেশ, কত পাখি আছে এইখানে;
কত রূপ! কত রঙ! কত গান সে পাখিরা জানে।”
নানা রং রূপের বৈচিত্র্যময় পাখিরা বাংলাদেশকে রূপময় করেছে। পাখির ডাকে আমাদের ঘুম ভাঙ্গে। তাইতো বাঙালি কবি পাখির দেশ বলেই তা উক্তরূপে ছন্দাকারে বর্ণনা করেছেন।

প্রকার : বর্ণ, গঠন, আকৃতি, প্রকার মিলিয়ে হরেক রকমের পাখি দেখা যায় এদেশে।

বর্ণনা : বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী এদেশের পাখির বর্ণনা কয়েক প্রকারে করা যায়। তা নিম্নে আলোচনা করা হল:

জাতীয় পাখি : দোয়েল আমাদের জাতীয় পাখি। দোয়েলের শিষ এবং রং রূপ সবাইকে বিমোহিত করে।

ঝাড়ুদার পাখি : কাককে প্রকৃতির ঝাড়ুদার বলা হয়। কবির বর্ণনায়:
“এঁটো কাঁটা উচ্ছিষ্টের গন্ধ পেয়ে উড়ে আসে কাক,
ভোরবেলা চোখ মেলে শুনি সেই কাকদের ডাক।”

গায়ক পাখি : বসন্ত দূত কোকিল, চড়ুই, বউ কথা কও প্রভৃতি পাখির সুরেলা কণ্ঠ প্রকৃতিকে মুখরিত করে তোলে।

কথা বলা পাখি : ময়না, টিয়া, চন্দনা, কাকাতুয়া সুদর্শন ও কথাবলা পাখি।

শিল্পী পাখি : বাবুই পাখিকে শিল্পী পাখি বলে। একে কারিগর পাখিও বলা হয়। এদের বোনা বাসা সত্যই শৈল্পিক।

খেলার পাখি : ঘুঘু, কাদাখোঁচা, শামুক ভাঙ্গা, সারস, তিতির, বালিহাঁসকে খেলার পাখি বলা হয়।

নিশাচর পাখি : পেঁচা, বাদুর নিশাচর পাখি। রাতে এরা বের হয় এবং খাবার সংগ্রহ করে।

শিকারী পাখি : চিল, বাজ, শকুন, বক হচ্ছে শিকারী পাখি। এরা ছোঁ মেরে শিকার ধরে বলে এদের শিকারী পাখি বলা হয়।

পোষা পাখি : কবুতর, হাঁস, মুরগী, কোয়েল পোষা পাখি। এদের গৃহপালিত পাখিও বলে। তবে ঘুঘু, ময়না, টিয়াসহ বেশ কিছু পাখিকেও মানুষ পোষে।

অন্যান্য : টুনটুনি, বুলবুলি, ময়ূর পাখি আমাদের প্রকৃতিকে সুন্দর করেছে।

উপকারিতা : এরা প্রকৃতির শোভা বর্ধন করে এবং পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এদের কতকগুলোর মাংস ও ডিম আমিষের চাহিদা মেটায়। অনেক পাখি ক্ষতিকর কীট-পতঙ্গ খেয়ে আমাদের ফসলের শত্রু নাশ করে।

অপকারিতা : অনেক সময় কোন কোন পাখি রোগের প্রাদুর্ভাব ঘটায়। যেমন- বাদুর। কোন কোন পাখি ক্ষেতের ফসল, ফল খেয়ে ফেলে।

উপসংহার: পাখি আমাদের প্রকৃতির এক অনন্য উপাদান। এদের সংরক্ষণ করা আমাদের কর্তব্য। এখনও পাখি আমাদের ঘুম ভাঙ্গায়, সন্ধ্যা ডেকে আনে। তাইতো ছড়াটির সুর হৃদয়ে জাগে -
পাখি সব করে রব
রাতি পোহাইল।

No comments