My All Garbage

Shuchi Potro
সাধারণ জ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট-২০২১ বাংলা রচনা সমগ্র ভাবসম্প্রসারণ তালিকা অনুচ্ছেদ চিঠি-পত্র ও দরখাস্ত প্রতিবেদন প্রণয়ন সারাংশ সারমর্ম খুদে গল্প ব্যাকরণ Composition / Essay Paragraph Letter, Application & Email Dialogue List Completing Story Report Writing Graphs & Charts English Note / Grammar পুঞ্জ সংগ্রহ কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স বই পোকা হ য ব র ল তথ্যকোষ পাঠ্যপুস্তক CV & Job Application বিজয় বাংলা টাইপিং My Study Note আমার কলম সাফল্যের পথে
About Contact Service Privacy Terms Disclaimer Earn Money


বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শিক্ষা সহায়ক ওয়েব সাইট

সাধারণ জ্ঞান : মানব দেহ (Human Body)

মানব দেহ
(Human Body)

রক্ত কী? — রক্ত এক ধরনের তরল যোজক কলা।

রক্তের উপাদান কয়টি ও কী কী? — ২ টি। যথা : রক্ত রস (৫৫%) এবং রক্ত কণিকা (৪৫%)। 

রক্ত রস বা প্লাজমা কী? — রক্তের হালকা হলুদ বর্ণের তরল অংশকে রক্তরস বা প্লাজমা বলে।

রক্ত কণিকা কয় ধরনের? — ৩ ধরনের। যথা : লোহিত রক্ত কণিকা, শ্বেত রক্ত কণিকা এবং অনুচক্রিকা। 

পূর্ণবয়স্ক মানুষের দেহের রক্তের পরিমাণ কত? — ৫–৬ লিটার। ( একজন মানুষের দেহের মোট ওজনের ৭% রক্ত থাকে।)

রক্তের pH কত? — ৭.৩৫ – ৭.৪৫ অর্থাৎ সামান্য ক্ষারীয়। (Average 7.4) 

রক্তের কাজ = রক্তকণিকার কাজ + রক্তরসের কাজ

লোহিত রক্তকণিকা (Reb Blood Cell) কোথায় তৈরি হয় এবং ধ্বংস হয়? — অস্থিমজ্জায় তৈরি হয় এবং প্লীহায় সঞ্চিত এবং এক পর্যায়ে ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়।

লোহিত রক্ত কণিকার গড় আয়ু কতদিন? — ১২০ দিন (৪ মাস)।

রক্তের বর্ণ লাল কেন হয়? — হিমোগ্লোবিন নামক রঞ্জকের উপস্থিতিতে।

আরশোলার রক্ত সাদা বা বর্ণহীন হয় কেন? — হিমোগ্লোবিনের অনুপস্থিতিতে।

মানবদেহে হিমোগ্লোবিনের প্রধান কাজ কী? — অক্সিজেন পরিবহন করে এবং সামান্য পরিমাণে কার্বন ডাই অক্সাইড পরিবহন করা।

রক্তশূন্যতা (Annaemia)কী? — রক্তে হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ হ্রাস পাওয়াকে রক্তশূন্যতা বলে।

হিমোগ্লোবিন তৈরিতে কি প্রয়োজন হয়? — আমিষ এবং লৌহ।

শ্বেত কণিকা (White Blood Cell) কয় ধরনের? — ২ ধরনের। যথা : দানাদার (নিউট্রোফিল, ইওসিনোফিল এবং বেসোফিল) এবং অদানাদার (লিস্ফোসাইট এবং মনোসাইট)।

শ্বেত কণিকার গড় আয়ুস্কাল কতদিন? — কয়েক ঘন্টা থেকে কতদিন।

মানুষের শরীরে শ্বেতকণিকা এবং লোহিত কণিকার অনুপাত কত? — ১ : ৭০০ 

অনুচক্রিকার কাজ কী? — দেহের কোনো অংশে কেটে গেলে অনুচক্রিকা রক্ত জমাট বাঁধতে সহায়তা করে।

রক্ত জমাট বাঁধার ফ্যাক্টর : (মনে রাখার ছন্দ — ফুল পড়ে টুপ করে)
(ক) ফ্রিবিনোজেন — ফুল
(খ) প্রোথ্রোম্বিন — পড়ে
(গ) টিস্যু থ্রোম্বোপ্লোস্টিন — টুপ
(ঘ) ক্যালসিয়াম আয়ন — করে।

দেহের অভ্যন্তরে রক্ত জমাট না বাঁধার কারন কী? — হেপারিনের উপস্থিতির কারনে।

কোন ভিটামিন রক্ত জমাট বাঁধার  ফ্যাক্টর তৈরিতে সাহায্য করে? — ভিটামিন কে।

আমাদের দেহকোষ রক্ত হতে গ্রহণ করে? — অক্সিজেন এবং গ্লুকোজ।

রক্তের তরল অংশের নাম কী? — প্লাজমা।

কেঁচোর দেহে হিমোগ্লোবিন থাকে? — রক্তরসে।

রক্তের হিমোগ্লোবিন একধরনের — Protein

লোহিত কণিকার পূর্ণতা প্রাপ্তিতে সহায়তা করে কোন ভিটামিন? — ভিটামিন বি-১২

মানবদেহে অক্সিজেন পরিবহন হয় কোন অঙ্গের মাধ্যমে? — রক্তের মাধ্যমে। 

একটি রক্তের রিপোর্টে কোনটি বেশি থাকা ভাল? — হিমোগ্লোবিন। 

রক্তে ইউরিক এসিডের পরিমাণ বৃদ্ধিতে কোন রোগ হতে পারে? — গেটেবাত।

রক্তে শর্করার পরিমাণ বেড়ে গেলে কি হতে পারে? — ডায়াবেটিস। 

রক্তে কোলেস্টেরলের বৃদ্ধিতে হতে পারে — হৃদরোগের ঝুঁকি।

কোনটির অভাবে রক্তশূন্যতা হতে পারে? — আয়রন।

কোন ভিটামিনের অভাবে রক্তশূন্যতা শুরু হয়?  — ভিটামিন বি-১২

থ্যালাসেমিয়া (Thalassemia) হলো — রক্তের জন্মগত ক্রুটি।

 WBC (White Blood Cell) এর জীবন কতদিন? — ১ দিন।

Phagocytosis প্রক্রিয়াটি সাধিত কোথায় হয়? — নিউট্রোফিলে।

দেহের প্রতিরক্ষণ ও আত্নরক্ষার কাজে সাহায্য করে থাকে — শ্বেত রক্ত কণিকা। 

মানবদেহের ট্রাফিক পুলিশ/ পুলিশ হিসেবে কাজ করে কোনটি? — শ্বেত রক্ত কণিকা।

রক্তে শ্বেত রক্তকণিকা বেড়ে যাওয়াকে কি বলে? — লিউকোমিয়া। (প্রকৃতপক্ষে লিউকোসাইটোসিস বলা হয়)।

রক্তে শ্বেত রক্তকণিকার অস্বাভাবিক বেড়ে যাওয়াকে কি বলে? — লিউকেমিয়া।

রক্তে শ্বেত রক্তকণিকা হ্রাস পাওয়াকে কি বলে? — লিউকোপেনিয়া।

শ্বেত রক্তকণিকা তৈরির প্রক্রিয়াকে কি বলে? — লিউকোপোয়েসিস। 

রক্তে Platelet (অনুচক্রিকা) এর কাজ কি? — রক্ত জমাট বাঁধতে সাহায্য করা।

রক্ত জমাট বাঁধায় কোন ধাতুর আয়ন সাহায্য করে থাকে? — ক্যালসিয়াম।

পরপর দুবার রক্তদানের মধ্যবর্তী সময়ের ব্যবধান কমপক্ষে কত হওয়া লাগে? — ৯০ দিন (৩ মাস)।

মানুষের রক্তের গ্রুপ কয়টি? — ৪ টি ( A, B, AB, O) 

কোন গ্রুপের রক্তকে সর্বজনীন দাতা (Universal Donar) বলা হয়? — O কে।

রক্তের ব্লাড গ্রুপ আবিষ্কার করেন কে? —  কার্ল ল্যান্ডস্টেইনার।

‘O’ গ্রুপের রক্তের বৈশিষ্ট্য কোনটি? — A & B অ্যান্টিজেন নেই এবং A & B অ্যান্টিবডি আছে।

কোন রক্তকে সর্বজনীন গ্রহীতা বলে? (Which blood group is the universal blood receiver in human body?) — AB Blood কে।

Anti–D immunoglobulin শিশুর জন্মের পর দেওয়া হয় — মাকে।

নেগেটিভ রক্তের মাকে প্রথম শিশু জন্ম দেবার পর কোন ইনজেকশন দেওয়া হয়? — Anti–D immunoglobulin

একটি রক্তদান শিবিরে আপনি যদি ২৫০ মিলি. রক্ত দান করেন তাহলে আপনার শরীরের মোট রক্তের শতকরা কত ভাগ রক্ত নেওয়া হয়?
উত্তর : ৫%
ব্যাখ্যা :
শরীরের মোট রক্তের পরিমাণ = ৫ L = ৫০০০ mL

এখন,
৫০০০ mL এর মধ্যে দান করলেন ২৫০ mL
∴ ১ mL এর মধ্যে দান করলেন ${২৫০ \over ৫০০০}$ mL
∴ ১০০ mL এর মধ্যে দান করলেন ${২৫০ \over ৫০০০} \times ১০০$ mL
= ৫ মিলি।

Blood Group (ব্লাড গ্রুপ)
Blood Group Antigen Antibody
A A B
B B A
AB A & B None
O None A & B

লোহিত রক্ত কণিকার ঝিল্লিতে রেসাস বানরের লোহিত কণিকার ঝিল্লির মত একটি এন্টিজেন থাকে। ঐ এন্টিজেনকে রেসাস ফ্যাক্টর বা Rh ফ্যাক্টর বলে। Rh ফ্যাক্টর বিশিষ্ট রক্তকে Rh +ve রক্ত এবং Rh বিহীন রক্তকে Rh –ve রক্ত বলে।

No comments