বইয়ে খোঁজার সময় নাই, সব কিছু এখানেই পাই

বিদ্যুৎ বিভ্রাটের আশু প্রতিকার চেয়ে সংবাদপত্রে প্রকাশের জন্য পত্র

তোমার এলাকায় বিদ্যুৎ বিভ্রাটের আশু প্রতিকার চেয়ে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সংবাদপত্রে প্রকাশের উপযোগী একখানা পত্র লেখো।

বা, বিদ্যুৎ বিভ্রাট নিরসনকল্পে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সংবাদপত্রে প্রকাশের উপযোগী একটি পত্র লেখো।

বা, তোমার এলাকায় বিদ্যুৎবিভ্রাট নিরসনকল্পে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সংবাদপত্রে প্রকাশের উপযোগী একটি পত্র লেখো।

বা, মনে করো, তোমার নাম রতন। তুমি ঠাঁকুরগাও জেলার সদর উপজেলায় বসবাস করো। তোমার এলাকায় বিদ্যুৎ বিভ্রাটের আশু প্রতিকার চেয়ে সংবাদপত্রে প্রকাশের জন্য একটি পত্র লেখো।

বা, মনে করো, তোমার নাম অনন্যা। তুমি দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জে বাস করো। তোমার এলাকায় বিদ্যুৎ বিভ্রাটের আশু প্রতিকার চেয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সংবাদপত্রে প্রকাশের উপযোগী একটি পত্র রচনা করো।

বা, মনে করো, তুমি চাঁদপুর জেলার শ্রীপুর গ্রামের অহনা। তোমার এলাকায় বিদ্যুৎ বিভ্রাটের আশু প্রতিকার চেয়ে সংবাদপত্রে প্রকাশের জন্য একখানা পত্র লেখো।

বা, তোমার এলাকায় বিদ্যুৎ বিভ্রাটের আশু প্রতিকার চেয়ে সংবাদপত্রে প্রকাশের জন্য একখানা পত্র লেখো।


১১ই জানুয়ারি, ২০২১

বরাবর
সম্পাদক
দৈনিক জনকণ্ঠ
জনকণ্ঠ ভবন, ২৪/এ, রাশেদ খান মেনন রোড,
নিউ ইস্কাটন রোড, ঢাকা

বিষয় : সংযুক্ত পত্রটি পত্রিকায় প্রকাশের জন্য আবেদন।

জনাব,
আপনার সম্পাদিত জনপ্রিয় সংবাদপত্র ‘দৈনিক জনকণ্ঠ’-এর চিঠিপত্র বিভাগে নিম্নোক্ত চিঠিটি প্রকাশ করলে কৃতার্থ হব।

নিবেদক
মো. হাসান-উল-কবির
চাঁদপুর

বিদ্যুৎ বিভ্রাটের প্রতিকার চাই

চাঁদপুর সদর থানার একটি বর্ধিষ্ণু ও জনবহুল গ্রাম রঘুনাথপুর। এ গ্রামে প্রায় আট হাজার লোকের বাস। পাঁচ বছর পূর্বে গ্রামটি বিদ্যুতায়িত হয়। কিন্তু পরিতাপের বিষয় এই যে, বিদ্যুতায়নের পর থেকে এ পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিভ্রাট এ এলাকার নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতিদিনিই ১০/১২ বার বিদ্যুৎ যাওয়া-আসা করে। মাঝে মাঝে সারাদিন বিদ্যুৎ থাকে না। ফলে এলাকার উৎপাদনমুখী কলকারখানা অচল হয়ে পড়ছে। গরমে এবং মশার উপদ্রবে জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। ছাত্রছাত্রীদের লেখাপড়ায় ব্যাঘাত ঘটছে। ইতিঃপূর্বে এ ব্যাপারে স্থানীয় অভিযোগ কেন্দ্রে কয়েকবার আবেদন করেও কোনো ফল হয়নি।

এমতাবস্থায় নিয়মিত বিদ্যুৎ সরবরাহের ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

রঘুনাথপুর গ্রামবাসীর পক্ষে
মো. হাসান-উল-কবির
চাঁদপুর।

No comments