বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই

অনুচ্ছেদ : আমার প্রিয় ফুল

আমার প্রিয় ফুল


ফুল মানুষের মনকে আকর্ষণ করে, বিশেষ ভাবাবেগ সৃষ্টিতে অনুকূল আবহ তৈরি করে। ফুল সবারই প্রিয়। ফুল ভালোবাসে না এমন লোক হয়ত খুঁজে পাওয়া যাবে না। একেক জনের কাছে একেক ফুল প্রিয়। আমার প্রিয় ফুল হলো হাস্নাহেনা। এটি একটি ছোট প্রজাতির ফুল। তবে গুচ্ছাকারে ফোটে। হাস্নাহেনা গাছের সমস্ত ডাল জুড়ে যখন ফুল ফোটে তখন তাকে মনে হয় স্বর্ণালঙ্কারে আচ্ছাদিত কোনো নববধূ। সন্ধ্যায় শুরু হয় ফুল ফোটা। রাত বাড়ার সাথে সাথে বাড়তে থাকে এর সুমিষ্ট মনমাতানো সুগন্ধ। একসময় মোহনীয় করে তোলে চারপাশ। রাতের অন্ধকার ভেদ করে জমে ওঠে ফুলের জলসা। আর যদি রাতটি হয় চাঁদের আলোয় আলোকিত তাহলে তো কথাই নেই। আমার জীবনে এমন একটি সময় ছিল যখন হাস্নাহেনার প্রেমে ছিলাম মগ্ন। অপেক্ষায় থাকতাম কখন রাত হবে, ঘুমিয়ে পড়বে চারপাশ, নিস্তব্ধ হবে পরিবেশ। আর আমি জেগে থাকবো হাস্নাহেনার সুমিষ্ট ঘ্রাণ নিয়ে। নিজেকে ভাবালুতার মাঝে আবিষ্ট করায় এ অমৃতে আমি ছিলাম তৃপ্ত, মগ্ন ও ধন্য। এ সময় হাতের কাছে খাতা কলম থাকলে মুহূর্তেই লিখে ফেলতাম কবিতা। মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রস্তুতির সময় আমার রাত জাগার সাথি ছিল হাস্নাহেনা। এ ফুলের অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো এ ফুল দিয়ে বিনাসুতায় মালা গাঁথা যায়। উপহার দেওয়া যায় প্রিয়জনকে। এ ফুলের মহিমা কীর্তন খুবই দুরূহ। কারণ এর মহিমা অজস্র অপার। কবির ভাষায়- 
“হাস্নাহেনা হাস্নাহেনা প্রিয় হাস্নাহেনা, 
তুমি যে গন্ধবাহার, লক্ষ গন্ধসেনা।”

No comments