বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই

ব্যাকরণ : বাংলা ব্যাকরণের আলোচ্য বিষয়

সব ভাষারই ব্যাকরণে প্রধানত নিম্নলিখিত চারটি বিষয়ের আলোচনা করা হয়।
  • ধ্বনিতত্ত্ব
  • শব্দতত্ত্ব বা রূপতত্ত্ব
  • বাক্যতত্ত্ব বা পদক্রম

(ক) ধ্বনিতত্ত্ব (Phonology): 
এ অংশে ধ্বনি, ধ্বনির উচ্চারণ, ধ্বনির বিন্যাস, ধ্বনির পরিবর্তন, বর্ণ, সন্ধি বা ধ্বনিসংযোগ, ণ-ত্ব বিধান, ষ-ত্ব বিধান প্রভৃতি ধ্বনি- সম্বন্ধীয় ব্যাকরণের বিষয়গুলো আলোচিত হয়। 

(খ) শব্দ বা রূপতত্ব (Morphology): 
শব্দ, শব্দের প্রকার, শব্দ গঠন, শব্দরূপ, শব্দের ব্যুৎপত্তি, পদের পরিচয়, উপসর্গ, প্রত্যয়, পদাশ্রিত নির্দেশক, দ্বিরুক্ত শব্দ, বিভক্তি, লিঙ্গ, বচন, ধাতু, কারক, সমাস, ক্রিয়া-প্রকরণ, ক্রিয়ার কাল, অনুজ্ঞা, ক্রিয়ার ভাব, অনুসর্গ ইত্যাদি বিষয় রূপতত্ত্বে আলোচিত হয়ে থাকে। 

(গ) বাক্যতত্ত্ব বা পদক্রম (Syntax): 
বাক্য, বাক্যের অংশ, বাক্যের প্রকার, বাক্যের বিশ্লেষণ, বাক্য পরিবর্তন, পদক্রম, পদ পরিবর্তন, বাগধারা, বাক্য সংকোচন, বাক্য-সংযোজন, বাক্য বিয়োজন, যতিচ্ছেদ বা বিরামচিহ্ন প্রভৃতি বিষয় বাক্যতত্ত্বে আলোচিত হয়। 

(ঘ) অর্থতত্ত্ব (Semantics): 
শব্দের অর্থবিচার, কাক্যের অর্থবিচার, অর্থের বিভিন্ন প্রকারভেদ। যেমন- মূখ্যার্থ, গৌণার্থ, বিপরীতার্থ, পারিভাষিক শব্দ, সমোচ্চারিত শব্দ, সমার্থক শব্দ, বিপরীতার্থক শব্দ, অনুবাদ, প্রবাদ-প্রবচন, ইত্যাদি অর্থতত্ত্বে আলোচিত হয়। 

(ঙ) ছন্দ-প্রকরণ: 
এ তত্ত্বে ছন্দের প্রকার ও নিয়মসমূহ আলোচিত হয়। 

(চ) অলংকার প্রকরণ: 
এ তত্ত্বে অলংকারের সংজ্ঞা ও প্রকার ইত্যাদি আলোচিত হয়। 

এছাড়াও অভিদান-তত্ত্ব (Lexicography) ও ব্যাকরণের আলোচ্য বিষয়।

No comments