বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই

সাধারণ জ্ঞান : বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ব্যবস্থা

বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ব্যবস্থা


বাংলাদেশের প্রথম মোবাইল হাসপাতালের নাম কী? – জীবন তরী।

AIDS এর পূর্ণরূপ কী? – Acquired Immune Deficiency Syndrome.

দেশের প্রথম টেস্ট টিউব শিশু কবে জন্ম গ্রহণ করে? – ২০০১ সালের ৩০ মে।

গলগণ্ড রোগ কেন হয়? – আয়োডিনের অভাবে।

ডেঙ্গু জীবাণুবাহী মশার নাম কী? – এডিস ইজিপটি।

কোন তারিখে জাতীয় টীকা দিবস পালিত হয়? – ১৬ মার্চ ও ১৬ এপ্রিল।

বর্তমানে বহুল আলোচিত ‘সোয়াইন ফ্লু’ কী? – এক প্রকার ভাইরাস জনিত জ্বর।

‘সোয়াইন ফ্লু’ কোন ভাইরাসের কারণে হয়? – এইচ-১ এন-১ ভাইরাস।

বাংলাদেশে কত সালে AIDS প্রতিরোধ কার্যক্রম শুরু হয়? – ১৯৮৫ সালে।

AIDS কী? – Acquired Immune Deficiency Syndrome.

EPI-এর পূর্ণরূপ কী? – Expanded Programme for Immunization.

বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ দিবস কোন তারিখে পালিত হয়? – প্রতি বছর ১ আগস্ট মাসে।

বিশ্ব প্রবীণ দিবস কোন তারিখে পালিত হয়? – প্রতি বছর ১ অক্টোবর মাসে।

বাংলাদেশে কুষ্ঠ রোগের চিকিৎসা কেন্দ্র কোথায়? – ঢাকা ও নীলফামারী।

দেশের সুপেয় পানি গ্রহণকারী সংখ্যা কত? – ৮৭.৫৫%।

ডায়াবেটিক সচেতনতা দিবস কবে পালিত হয়? – ২৮ ফেব্রুয়ারি।

বাংলাদেশ সংবিধানের কত নম্বর অনুচ্ছেদে জনগণের পুষ্টির অধিকার স্বীকৃত হয়েছে? – ১৮ নম্বর অনুচ্ছেদে।

বাংলাদেশে পরিবার পরিকল্পনা কর্মসূচি গ্রহণ করা হয় কোন সালে? – ১৯৭৬ সালে।

বাংলাদেশের প্রথম মোবাইল হাসপাতালের নাম কী? – জীবন তরী।

দেশজ উপাদানে আর্সেনিক মুক্ত করার পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছেন কে? – ড. এম এ হাসান।

বাংলাদেশে প্রথম বারের মতো আবিষ্কৃত ডায়রিয়ার নতুন ভাইরাসের নাম কী? – গ্রুপ বি রোটা ভাইরাস।

ডায়রিয়ার নতুন ভাইরাস কে আবিষ্কার করেন? – কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মুজাহিদ উদ্দিন আহমেদ।

দেশের প্রথম টেস্ট টিউব শিশু কবে জন্ম গ্রহণ করে? – ২০০১ সালের ৩০ মে।

স্পিরোলিনা কী? – শৈবাল জাতীয় এক প্রকার খাদ্য ও ওষুধ।

স্পিরোলিনার আবিষ্কারক কে? – ড. ফ্লোরা মজিদ। (প্রতিষ্ঠান হিসেবে সায়েন্স ল্যাবরেটরি)

খাবার স্যালাইন আবিষ্কার করে কোন প্রতিষ্ঠান? – কলেরা হাসপাতাল (ICDDR’B)।

বর্তমানে বাংলাদেশের কতটি জেলা আর্সেনিক আক্রান্ত? – ৬১টি।

বাংলাদেশের কোথায় আর্সেনিক ট্রিটম্যান্ট প্লান্ট স্থাপন করা হয়? – গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স।

বর্তমানে বাংলাদেশের সরকারি মেডিকেল কলেজ কতটি? – ২৩টি (সর্বশেষ শহীদ তাজউদ্দিন মেডিকেল কলেজ, গাজীপুর)।

No comments