বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই

সাধারণ জ্ঞান : বাংলাদেশের জাতি, গোষ্ঠী, উপজাতি

বাংলাদেশের জাতি, গোষ্ঠী, উপজাতি
খাসিয়া গ্রামগুলো কী নামে পরিচিত? – পুঞ্জি।

বাংলাদেশের কোন উপজাতি পিতৃতান্ত্রিক? – মারমা, হাজং, চাকমা।

বিরিশিরি কী? – উপজাতীয় সাংস্কৃতিক চর্চা কেন্দ্র, নেত্রকোণা।

মণিপুরীদের প্রধান উৎসব কী? – রাসোৎসব(মহা রাস লীলা)।

জলকেলি কাদের উৎসব? – রাখাইন।

সাঁওতালরা কোথায় বসবাস করে? – রাজশাহী ও দিনাজপুর জেলায়।

বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার কতভাগ উপজাতি? – ১.০৮ ভাগ (প্রায়)।

বাংলাদেশে মোট কতটি উপজাতি রয়েছে? – ৪৫টি। (আদিবাসী ফোরামের তথ্য মতে)

নৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীদের প্রতিষ্ঠান সংক্রান্ত আইন ২০১০ অনুযায়ী বাংলাদেশে মোট কতটি নৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী রয়েছে? – ২৭টি।

পার্বত্য চট্টগ্রামে কতটি উপজাতি বাস করে? – ১৩টি।

বর্তমানে দেশে বসবাসকারি উপজাতির সংখ্যা কত? – ১৫ লাখ ৮৬ হাজার ১৪১ (৫ম আ.শু. ২০১১)।

বাংলাদেশে কোন উপজাতি সবচেয়ে বেশি বসবাস করে? – চাকমা।

চাকমারা কোন ধর্মালম্বী? – বৌদ্ধ।

বাংলাদেশের উপজাতীয় ভাষায় সংখ্যা কতটি? – ৩২টি।

চাকমা ভাষায় লিখিত প্রথম উপন্যাসের নাম কী? – ফেবো (প্রকাশিত হয় ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০০৪)।

বাংলাদেশের উপজাতিরা সবচেয়ে বেশি কোথায় বাস করে? – রাঙামাটি ও খাগড়াছড়িতে।

চাকমাদের বর্ষবরণ অনুষ্ঠানকে কী বলে? – বিঝু।

কোন উপজাতিরা মুসলমান? – পাঙন।

গারো উপজাতিদের ধর্মের নাম কী? – সংসারেক (তবে অনেকেই বর্তমানে খ্রিস্টধর্ম ও ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করছে)।

গারো উপজাতি কোথায় বসবাস করে? – ময়মনসিংহ (গারো পাহাড়ে)।

শান্তিবাহিনীর বর্তমান চেয়ারম্যান কে? – জোতিন্দ্র নারায়ণ লারমা (সন্তু লারমা)।

দেশের একমাত্র আদিবাসী বা উপজাতি খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা কে? – ইউ কে চীং।

পাহাড়ের এবং সমতল ভূমিতে বসবাসকারী গারো কী নামে পরিচিত? – পাহাড়ী গারো ‘অচ্ছিক’ এবং সমতলের গারোরা ‘নামদানী’ নামে পরিচিত।

কোন উপজাতিদের ভাষা ‘কুরুখ’ নামে পরিচিত? – ওঁরাং।

কোন উপজাতি পুরুষের চেয়ে বেশি বয়স্ক মেয়েদের বিয়ে করে? – তনচংগা।

তনচংগা উপজাতিরা কোথায় বাস করে? – রাঙামাটি।

বাংলাদেশের কোন উপজাতি পিতৃতান্ত্রিক? – মারমা, হাজং, চাকমা।

বাংলাদেশে মাতৃতান্ত্রিক প্রধান প্রধান উপজাতি কারা? – গারো, খাসিয়া, সাঁওতাল।

সাঁওতালরা কোথায় বসবাস করে? – রাজশাহী ও দিনাজপুর জেলায়।

রাখাইন উপজাতি কোথায় বসবাস করে? – পটুয়াখালী।

মারমা উপজাতি কোথায় বসবাস করে? – কক্সবাজার, বান্দরবান ও পটুয়াখালী।

আদিবাসী রাখাইনদের বর্ষবরণ অনুষ্ঠানকে কী বলে? – সাংগ্রেন।

মুরংদের দেবতার নাম কী? – ওরেং।

সাঁওতালদের দেবতার নাম কী? – সূর্য, মারাং, রেঞ্জার।

বাংলাদেশের কয়টি জেলায় উপজাতিদের বসবাস রয়েছে? – ১৪টি।

বাংলাদেশের কোন বিভাগে উপজাতি নেই? – খুলনা।

বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তর উপজাতি গোষ্ঠী কোনটি? – সাঁওতাল।

রাজবংশী উপজাতিরা কোথায় বাস করে? – রংপুর।

বাংলাদেশের কোন কোন জেলায় উপজাতিদের বাস বেশি? – রাঙামটি, বান্দরবান এবং খাগড়াছড়ি।

‘বৈসাবী’ কী? – পার্বত্য চট্টগ্রামের উপজাতিদের ঐতিহ্যবাহী প্রধান সামাজিক উৎসব। পুরাতন বছরকে বিদায়ের মধ্য দিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত জানানো হয়। এক কথায় চাকমা, মারমা, মুরং উপজাতিদের বর্ষবরণ অনুষ্ঠানকে বৈসাবী বলা যেতে পারে।

রাখাইনদের আদি নিবাস কোথায়? – আরাকান (মায়ানমার)।

শান্তিবাহিনীর প্রতিষ্ঠাতা কে? – মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমা।

আদিবাসী ও উপজাতিদের জীবনধারা নিয়ে কে সর্বাধিক বই লিখেছেন? – কবি আবদুস সাত্তার।

‘অরণ্য জনপদে’, ‘অরণ্য প্রকৃতি’, ’বাংলাদেশের উপজাতীয় সংস্কৃতি’ কার লেখা? – কবি আবদুস সাত্তার।

ইংরেজ বণিকদের বিরুদ্ধে কোন চাকমা জুমিয়া নেতা বিদ্রোহের পতাকা উড়িয়েছিলেন? – জুম্মা খান।

ত্রিপুরাদের বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের নাম কী? – বৈসুক।

চাকমারা গ্রামকে কী বলে? – আদম।

পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রাচীনতম অধিবাসী কারা? – মুরং উপজাতি।

চট্টগ্রামে বসবাসকারী উপজাতিসমূহ কোন জনগোষ্ঠীর অন্তর্ভূক্ত? – মোংগলয়েড।

মেয়েদের থেকেই মানব গোষ্ঠীর উৎপত্তি-প্রবাদটি কোন উপজাতিদের? – খাসিয়া।

হিন্দুদের সব দেব-দেবীসহ শিব ও দুর্গাপূজা পালন করে কোন উপজাতি? – হাজং।

মনিপুরী নৃত্য কোন অঞ্চলের? – সিলেট।

‘রাসযাত্রা’ ও ‘দোলযাত্রা’ অনুষ্ঠান কোন উপজাতিদের? – মনিপুরী।

বাংলাদেশের উপজাতি পুরুষ ও মহিলার অনুপাত কত? – ১০৪.৭:১০০।

শান্তিবাহিনীর গোয়েন্দা সংস্থার নাম কী? – গণলাইন।

বাংলাদেশের আদিবাসীদের নিয়ে গঠিত নতুন রাজনৈতিক দলের নাম কী? – বাংলাদেশে আদিবাসী ফোরাম।

বাংলাদেশে উপজাতিদের জন্য কয়টি সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে? – ৩টি।

বিরিশিরি কী? – উপজাতীয় সাংস্কৃতিক চর্চা কেন্দ্র, নেত্রকোণা।

বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত প্রথম উপজাতীয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্র কোনটি? – উপজাতীয় সাংস্কৃতিক একাডেমি (বিরিশিরি)।

‘ট্রাইবাল কালচারাল ইনস্টিটিউট’ কোথায় অবস্থিত? – রাঙামাটি।

ট্রাইবাল কালচারাল একাডেমি কোথায় অবস্থিত? – দিনাজপুর।

প্রগতি কী? – শিশু অধিকার বাস্তবায়নের লক্ষ্যে গৃহীত পরিকল্পনা।

পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় কবে? – ২ ডিসেম্বর ১৯৯৭।

No comments