বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই

সাধারণ জ্ঞান : প্রতিরক্ষা বাহিনী

প্রতিরক্ষা বাহিনী

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর স্লোগান কী? – বাংলার আকাশ রাখিব মুক্ত।

বাংলাদেশের মিলিটারি একাডেমি কোথায় অবস্থিত? – চট্টগ্রামের ভাটিয়ারীতে।

যে কারণে বাংলাদেশের সেনাবাহিনী বিশ্বে সুনাম অর্জন করেছে – আন্তর্জাতিক শান্তিরক্ষা কার্যক্রম।

বাংলাদেশের বিমান বাহিনী প্রমিক্ষণ কেন্দ্র কোথায় অবস্থিত? – যশোর।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পূর্ব নাম কী? – ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্ট।

’অপারেশন জ্যাকপট’ কী? – ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি নৌ-শক্তিকে ধ্বংস করার জন্য পরিচালিত অভিযান।

বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী

বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান কে? – রাষ্ট্রপতি।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রতীক কী? – ক্রস চিহ্নিত দুটি তরবারি এবং উপরে কৌণিক অবস্থায় জাতীয় ফুল শাপলা।

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রতীক কী? – রণতরী।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর প্রতীক কী? – জঙ্গী বিমান।

বাংলাদেশ নেভাল একাডেমি কোথায় অবস্থিত? – চট্টগ্রামের পতেঙ্গা।

বাংলাদেশের মিলিটারি একাডেমি কোথায় অবস্থিত? – চট্টগ্রামের ভাটিয়ারীতে।

বাংলাদেশে মেরিন একাডেমি কোথায় অবস্থিত? – জলদিয়া, চট্টগ্রাম।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, বিমান বাহিনী ও নৌবাহিনীর সদর দফতর কোথায় অবস্থিত? – ঢাকা।

বাংলাদেশের প্রথম জেনারেল ও প্রধান সেনাপতির নাম কী? – জেনারেল মুহাম্মদ আতাউল গণি ওসমানী। (এম. এ. জি. ওসমানী)

প্রথম বাঙালি মুসলিম বিমান সেনা কে ছিলেন? – স্কোয়াড্রন লিডার আফাজুর রহমান (মৃত্যু ১ জুন, ১৯৯২)।

বাংলাদেশে সশস্ত্র বাহিনী দিবস কবে পালিত হয়? – ২১ নভেম্বর।

‘সোর্ড অব অনার’ সম্মান কাদের প্রধান করা হয়? – সেনাবাহিনীর ক্যাডেটদের।

বাংলাদেশের প্রথম মহিলা বিগ্রেডিয়ার কে? – সুরাইয়া রহমান।

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রথম ফ্রিগেটের নাম কী? – বিএনএস আলী হায়দার।

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রথম রণতরীর নাম কী? – বিএনএস পদ্মা।

বিশ্বের কতটি দেশের সাথে বাংলাদেশের সামরিক মহড়া অনুষ্ঠিত হয়? – ১টি (যুক্তরাষ্ট্র)।

বাঙলাদেশে মিলিটারি স্টাফ কলেজ কয়টি এবং কোথায় অবস্থিত? – ১টি (এটি ঢাকায় অবস্থিত)।

বাংলাদেশে প্রথম সোর্ড অব অনার অর্জনকারী মহিলা কে? – মারজিয়া ইসলাম (নৌবাহিনী)।

ভিক্টোরিয়া ক্রস কোন দেশের শ্রেষ্ঠ সামরিক পদক? – গ্রেট ব্রিটেন।

ডি ডব্লউ এইচ-২০০০ বাংলাদেশের কত তম ফ্রিগেট? – পঞ্চম।

‘সি-ভ্যাট-৯৮’ কী? – বাংলাদেশ-মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যৌথ সামরিক মহড়ার নাম (সর্বশেষ মহড়া কোপ সাউথ-৯৮)।

সামরিক অস্ত্রশস্ত্র ও সাজ-সরঞ্জাম বিভাগকে কী বলা হয়? – অর্ডিন্যান্স বিভাগ।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পূর্বনাম কী? – ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট।

বাংলাদেশের সর্বাধনিক ক্ষেপণাস্ত্র সজ্জিত বৃহত্তম যুদ্ধ জাহাজ কোনটি? – ডি ডাব্লিউ এইচ-২০০০।

স্থল, নৌ ও বিমান বাহিনীর সম্মিলিত দলের নাম কী? – টাস্কফোর্স।

সেনাবাহিনীর সদস্যদের একাডেমিক ডিগ্রি প্রদান করা হয় কোন প্রতিষ্ঠান থেকে? – আর্মি স্টাফ কলেজ থেকে।

Inter Service Selection Board (ISSB) কী? – সামরিক বাহিনীতে নিয়োগ ও বাছাই বোর্ড।

জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশের অবস্থান কততম? – দ্বিতীয়।

ডিফেন্স সদস্যের উচ্চ শিক্ষার জন্য সম্প্রতি প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম কী? – বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনাল।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রতিষ্ঠা কবে? – ১২ জুলাই ১৯৭১।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বীরশ্রেষ্ঠ কত জন? – ৩ জন। সিপাহী মোস্তফা কামাল, সিপাহী হামিদুর রহমান ও ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর একমাত্র বীরশ্রেষ্ঠ কে? – ফ্লাইট লে. মতিউর রহমান।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনী কখন গঠিত হয়? – ২৮ সেপ্টেম্বর ১৯৭১।

বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর কার্যক্রম শুরু হয় কবে? – ২৮ সেপ্টেম্বর ১৯৭৩।

বাংলাদেশ এয়ার ফোর্স একাডেমি কোথায় অবস্থিত? – যশোর (পূর্বে ছিল ঢাকা)।

বাংলাদেশ এয়ার ফোর্স জাদুঘর কবে কোথায়? – তেজগাঁও পুরাতন বিমান বন্দর, ঢাকা।

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর একমাত্র বীরশ্রেষ্ঠ কে? – মোহাম্মদ রুহুল আমিন।

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর প্রতিষ্ঠা কবে? – ৯ নভেম্বর ১৯৭১।

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর একমাত্র মিসাইল ফ্রিগেট কোনটি? – বিএনএস ওসমান।

কমিশনপ্রাপ্ত অফিসারদের শ্রেণিবিন্যাস

সেনাবাহিনী
বিমানবাহিনী
নৌ-বাহিনী
সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট
পাইলট অফিসার
মিডশিপম্যান
লেফটেন্যান্ট
ফ্লাইং অফিসার
সাব-লেফটেন্যান্ট/এ্যকটিং সাব-লেফটেন্যান্ট
ক্যাপ্টেন
ফ্লাইড লেফটেন্যান্ট
লেফটেন্যান্ট
মেজর
স্কোয়াড্রন লিডার
লেফটেন্যান্ট কমান্ডার
লেফটেন্যান্ট কর্ণেল
উইং কমান্ডার
কমান্ডার
কর্ণেল
গ্রুপ ক্যাপ্টেন
ক্যাপ্টেন
ব্রিগেডিয়ার জেনারেল
এয়ার কমোডর
কমোডর
মেজর জেনারেল
এয়ার ভাইস মার্শাল
রিয়ার এডমিরাল
লেফটেন্যান্ট জেনারেল
এয়ার মার্শাল
ভাইস এডমিরাল
জেনারেল
এয়ার চিফ মার্শাল
এডমিরাল
ফিল্ড মার্শাল
মার্শাল অব দি এয়ারফোর্স
এডমিরাল অব দি ফ্লিট

বাংলাদেশ পুলিশ

লর্ড ক্যানিং ভারত উপমহাদেশে প্রথম কোন ব্যবস্থা চালু করেন? – পুলিশ ব্যবস্থা।

বাংলাদেশের একমাত্র পুলিশ একাডেমি কোথায় অবস্থিত? – সারদা, রাজশাহী।

ট্রাফিক সিগনালে আলোর ক্রম কী? – লাল, হলুদ ও সবুজ।

কত সালে বাংলাদেশ Interpol এর সদস্য পদ লাভ করে? – ১৯৭৬ সালে।

পুলিশ রেঞ্জের প্রধান কর্মকর্তাকে কী বলে? – ডি আই জি।

বাংলাদেশ পুলিশের মূলনীতি কী? – শান্তি-শৃঙ্খলা-নিরাপত্তা-প্রগতি।

’Police’ শব্দটি কোন ভাষা থেকে এসেছে? – পর্তুগিজ।

বাংলাদেশের পুলিশ প্রধানকে কী বলা হয় বা তার পদ কী? – Inspector General of Police (IGP) (ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ)

বাংলাদেশ মহিলা পুলিশ কবে থেকে চালু হয়? – ১৯৭৬ সাল থেকে।

বর্তমানে কোন কোন পর্যায়ে মহিলা পুলিশ আছে? – কনস্টেবল থেকে পুলিশ সুপার পর্যন্ত।

বাংলাদেশ পুলিশ প্রশাসন পরিচালিত হয় কোন রেগুলেশন দ্বারা? – ১৮৬১ সালেন রেগুলেশন দ্বারা।

বাংলাদেশের একমাত্র পুলিশ একাডেমি কোথায় অবস্থিত? – সারদা, রাজশাহী। (১৯১২ সালে)।

সারদা পুলিশ একাডেমির এ দেশীয় প্রথম অধ্যক্ষ কে ছিলেন? – খান বাহাদুর এস. এ. খান।

সারদা পুলিশ একাডেমি কার সময়ে প্রতিষ্ঠিত হয়? – লর্ড হার্ডিঞ্জ এর সময়ে (১৯১২ সালে)।

সারদা পুলিশ একাডেমির বর্তমান নাম কী? – বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমি, রাজশাহী।

ডিটেকটিভ কী? – বাংলাদেশ পুলিশ কর্তৃক প্রকাশিত একটি সাপ্তাহিক পত্রিকা।

কত সালে প্রথম ডিটেকটিভ পত্রিকা প্রকাশিত হয়? – ১৯৬০ সালে।

বাংলাদেশে কত সাল থেকে কমিউনিটি পুলিশি ব্যবস্থা চালু হয়? – ১৫ আগস্ট ১৯৯৪।

সকল মেট্রোপলিটন পুলিশের একই ড্রেস কত সাল থেকে চালু হয়? – ১৯৯৩ সালের ১৫ এপ্রিল। (ঢাকা মহানগরীতে – ১৯৭৬ এর ১ ফেব্রুয়ারি, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন – ১৯৭৮ সালে।)

কত সালে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ অধ্যাদেশ চালু হয়? – ১৯৮৫ সালে। রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ অধ্যাদেশ জারি হয়-১ জুলাই ১৯৯২ সালে।)

বাংলাদেশে কয়টি নৌ-থানা আছে? – ৪টি (কাকাইলসিও, হাইমচর, বাহাদুরাবাদ এবং ডুশমারা)।

বাংলাদেশে বর্তমান কয়টি পুলিশ রেঞ্জ আছে? – ৭টি। (ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, সিলেট ও রেলওয়ে)

পুলিশ বাহিনীর বীরত্ব পুরস্কার কী কী? – ৩টি। বাংলাদেশ পুলিশ মেডেল, প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল ও আইজি বেস্ট মেডেল।

ট্রাফিক সিগনালে আলোর ক্রম কী? – লাল, হলুদ ও সবুজ।

কত সালে বাংলাদেশ Interpol এর সদস্য পদ লাভ করে? – ১৯৭৬ সালে।

বাংলাদেশে আনসার আইন কবে পাশ হয়? – ১৯৪৩ সালে।

অবিভক্ত বাংলার কখন প্রথম পুলিশ কমিশন নিয়োগ করা হয়? – ১৯৬০ সালে।

জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা বাহিনীতে মোট কয়টি মিশনে বাংলাদেশ পুলিশ কাজ করেছে? – ১৭টি।

GRP-এর পূর্ণরূপ কী? – Government Railway Police.

বাংলাদেশ কয়টি জিআরপি অঞ্চলে বিভক্ত ও কী কী? – ২টি। যথা : পূর্বাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চল।

পূর্বাঞ্চলে জিআরপি সদর দফতর কোথায়? – চট্টগ্রাম।

বাংলাদেশ পুলিশ উইমেন্স নেটওয়ার্ক চালু হয় কবে? – ২১ নভেম্বর ২০০৮।

বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে প্রথম নারী সদস্য নিয়োগ দেয়া হয় কবে? – ৮ জুন ১৯৭৪।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে প্রথম নারী নিয়োগ দেয়া হয় কবে? – ১৯৭৮ সালে।

হোসেনে আরা বেগম কবে কোন থানায় প্রথম নারী ওসি হিসেবে নিয়োগ পান? – ২৭ মে ২০০৯; ক্যান্টনমেন্ট থানা (ঢাকা)।

দেশে শিল্পাঞ্চল পুলিশের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয় কবে? – ৩১ অক্টোবর ২০১০। (হাইওয়ে পুলিশ-১১ জুন ২০০৫, পৌর পুলিশ-১৬ অক্টোবর ২০১১)

বাংলাদেশে বিট পুলিশিং চালু হয় কবে? – ২০১০ সালে।

বাংলাদেশে সোয়াট (SWAT) টিম কার্যক্রম শুরু করে কবে? – ২১ নভেম্বর ২০০৮। (ভিকটিম সার্পোট সেন্টার চালু হয় – ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০০৯।)

বাংলাদেশে মহিলা পুলিশ স্টাফ কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয় কবে? – ৩০ নভেম্বর ২০০০।

বাংলাদেশ পুলিশ স্টাফ কলেজ কোথায় অবস্থিত? – মিরপুর, ঢাকা।

পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার প্রতিষ্ঠা হয় কবে? – ১৯৭২ সালে।

বাংলাদেশের পুলিশের স্বতন্ত্র ইউনিট ট্যুরিস্ট পুলিশ-এর যাত্রা শুরু হয় কবে? – ১৬ আগস্ট ২০০৯।

জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে প্রথম নারী পুলিশ প্রেরণ করা হয় কবে? – ২০১০ সালের মে মাসে, হাইতিতে।

পুলিশের মহাপরিদর্শক বা আইজিপি’র র‌্যাংক কে থ্রি স্টার জেনারেল বা লেফটেন্যান্ট জেনারেল এর সমান পদমর্যাদা দেয়া হয় কবে? – ৯ জানুয়ারি ২০১২ সালে।

একটি দেশের রাষ্ট্রীয় প্রতীক যখন কোন ব্যাজে যুক্ত হয় তাকে কী বলা হয়? – থ্রি স্টার জেনারেল।

পুলিশের ৫টি পদ গ্রেড-১ ভুক্ত (সচিব পদমর্যাদা), পরিদর্শক (ইন্সপেক্টর) পদ প্রথম শ্রেণি ও উপ-পরিদর্শক (এসআই) পদ দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত করা হয় কবে? – ২৪ জুলাই ২০১২ সালে।

পুলিশ বাহিনীর পদমর্যাদা চিহ্নিত করার ব্যাজসমূহ কী কী?

  • IG = ক্রস সোড ও বাটনের সাথে ১টি শাপলা।
  • Add. IG = ক্রস সোড ও বাটনের সাথে ১টি স্টার।
  • DIG = ১ শাপলা ৩ পিপস।
  • Add. DIG = ১ শাপলা ২ পিপস।
  • AIG/SP = ১ শাপলা ১ পিপস।
  • Add. SP = ১ শাপলা।
  • Senior ASP = ৩ পিপস।
  • SI/Sergent = ২ ফুল।
  • ASI = ১ ফুল।
  • হেড কনস্টেবল (আর্মড) = ৩ লাল ফিতা/বিল্লা
  • হাবিলদার/হেড কনস্টেবল (আন আর্মড) = ৩ সাদা ফিতা/বিল্লা।
  • নায়েক = ২ লাল ফিতা/বিল্লা।
  • কনস্টেবল = কোনো ব্যাজ নেই।
  • আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ান কবে গঠন করা হয়? = ১৯৭৫ সালে।

APBN-এর পূর্ণরূপ কী? = Armed Police Battalion.


নারী পুলিশ সদস্যদের সমন্বয় গঠিত আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ান-১১ এর যাত্রা শুরু হয় কবে? – ২১ জুন ২০১১।

উপমহাদেশে পুলিশ

বঙ্গভারত উপমহাদেশে প্রথম পুলিশ ব্যবস্থা কে চালু করেন? – সম্রাট আকবর।

উপমহাদেশে পুলিশ সার্ভিস কবে থেকে চালু হয়? – ১৮৬১ সালে।

উপমহাদেশে যখন পুলিশ সার্ভিস প্রথম চালু হয় তখন কে ভাইসরয় ছিলেন? – লর্ড ক্যানিং।

পাক ভারত উপমহাদেশে কবে পুলিশ সার্ভিস চালু হয়? – ১৮৬১ সালে।

অবিভক্ত বাংলায় কখন প্রথম পুলিশ কমিশন নিয়োগ করা হয়? – ১৮৬০ সালে।

উপমহাদেশে পুলিশ অফিসারদের সরাসরি ইম্পেরিয়াল সার্ভিসে নিয়োগ শুরু হয় কবে থেকে? – ১৯২১ সাল থেকে।

Rapid Action Battalion (RAB)

RAB (Rapid Action Battalion) কী? – বাংলাদেশের আইন শৃঙ্খলা রক্ষা ও সন্ত্রাস দমনে গঠিত একটি বাহিনী।

RAB আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা করে কবে? – ২৬ মার্চ ২০০৪। (ঢাকার কুর্মিটোলায়।)

RAB বর্তমানে সারাদেশে কয়টি ব্যাটালিয়ান বিভক্ত হয়ে কাজ করছে? – ১৪টি।
(১৩তম ও ১৪তম ব্যাটালিয়ান গঠিত হয় ২৬ মার্চ ২০১৩, সদর দফতর ময়মনসিংহ ও রংপুর)।

র‌্যাবে কয়টি সংস্থার সদস্য অন্তর্ভুক্ত আছে? – ৭টি (সেনা, নৌ, বিমান, বিডিআর, পুলিশ, কোস্টগার্ড ও আনসার)।

আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (সংশোধিত) আইন ২০০৩ কবে পাস হয়? – ৬ জুন ২০০৩।

RAB-এ প্রথমবারের মতো মহিলা সদস্যরা কবে থেকে কার্যক্রম শুরু করে? – ১০ অক্টোবর ২০০৫।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (BGB)

বাংলাদেশে সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর পুরাতন নাম কী? – বাংলাদেশ রাইফেলস (বিডিআর)।

বাংলাদেশ রাইফেলস এর পূর্ব নাম কী? – রামগড় লোকাল ব্যাটালিয়ন (১৭৭৫ সালে), স্পেশাল রিজার্ভ কোম্পানি (১৮৭৯ সালে)।

বাংলাদেশ রাইফেলস নামকরণ হয় কত সালে? – ৩ মার্চ ১৯৭২ সালে।

বাংলাদেশ সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর বর্তমান নাম কী? – বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ কার্যকর হয় কবে থেকে? – ২৩ জানুয়ারি ২০১১।

স্বাধীনতা যুদ্ধে কতজন বিডিআর সদস্য শহীদ হন? – ৮১৯ জন।

পাকিস্তান আমলে বাংলাদেশ রাইফেলস এর নাম কী ছিল? – ইপিআর (পূর্ব পাকিস্তান রাইফেলস)।

ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর নাম কী? - বিএসএফ। [মায়ানমারের – বিজিএফ (বর্ডার গার্ড ফোর্স) (২০১৩)।]

মুক্তিযুদ্ধে সর্বোচ্চ আত্মত্যাগের জন্য (BDR) এর বীরশ্রেষ্ঠ খেতাব প্রাপ্তদের নাম কী? – মুন্সি আবদুর রব (ল্যান্স নায়েক) এবং নূর মোহাম্মদ (ল্যান্স নায়েক)।

স্বাধীনতা যুদ্ধে অবদানের জন্য কত জন বিডিআর সদস্য বিভিন্ন বীরত্ব পদক পান? – মোট ১২০ জন। (২ জন বীরশ্রেষ্ঠ, ৮ জন বীরউত্তম, ৩২ জন বীর বিক্রম এবং ৭৮ জন বীর প্রতীক)।

বাংলাদেশ রাইফেলস কত তারিখে বিদ্রোহ করে? – ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০০৯ সালে।

বাংলাদেশ রাইফেলসের ২০০৯ সালের বিদ্রোহে কত সেনা কর্মকর্তা নিহত হয়? – ৬৭ জন।

কালপরিক্রমায় বিজিবি

নাম
সময়কাল
রামগড় লোকাল ব্যাটালিয়ান
১৭৯৫-১৮৬১
ফ্রন্টিয়ার সার্ভিস
১৮৬১-১৮৭৯
স্পেশাল রির্জাভ কোম্পানি
১৮৭৯-১৮৯১
বেঙ্গল মিলিটারি-পুলিশ
১৮৯১-১৯২০
ইস্টার্ন ফ্রন্টিয়ার রাইফেলস
১৯২০-১৯৪৭
ইস্ট পাকিস্তান রাইফেলস (ইপিআর)
১৯৪৭-১৯৭২
বাংলাদেশ রাইফেলস (বিডিআর)
১৯৭২-২০১১
বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)
২০১১-বর্তমান

বাংলাদেশ কোস্টগার্ড

বাংলাদেশে কবে কোস্টগার্ড গঠন করা হয়? – ১৯৯৫ সালে।

কোস্টগার্ড বাহিনী গঠনের উদ্দেশ্য কী? – উপকূলে নিরাপত্তা ও নৌযানগুলো জলদস্যুদের হামলা থেকে রক্ষা করা।

বাংলাদেশের উপকূলীয় সীমান্তের দৈর্ঘ্য কত? – ৭১১ কিলোমিটার। (কোস্ট গার্ড সূত্র)

বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড বাহিনী কোন বাহিনীর অংশবিশেষ? – নৌবাহিনীর।

বিশ্বের প্রাচীনতম কোস্ট গার্ডের যাত্রা শুরু হয় কোথায়, কবে? – যুক্তরাষ্ট্র, ২৮ জানুয়ারি ১৮৯৫।

No comments