My All Garbage

Shuchi Potro
সাধারণ জ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট-২০২১ বাংলা রচনা সমগ্র ভাবসম্প্রসারণ তালিকা অনুচ্ছেদ চিঠি / দরখাস্ত প্রতিবেদন প্রণয়ন সারাংশ সারমর্ম ব্যাকরণ Composition / Essay Paragraph Letter, Application & Email Dialogue List Completing Story Report Writing Graphs & Charts English Note / Grammar পুঞ্জ সংগ্রহ কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স বই পোকা হ য ব র ল তথ্যকোষ পাঠ্যপুস্তক CV & Job Application বিজয় বাংলা টাইপিং My Study Note আমার কলম সাফল্যের পথে এই সাইট থেকে আয় করুন


বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শিক্ষা সহায়ক ওয়েব সাইট

সাধারণ জ্ঞান : মুক্তিযুদ্ধের রণকৌশল / পাক বাহিনীর আত্মসমর্পণ ও বাংলাদেশের অভ্যুদয়

মুক্তিযুদ্ধের রণকৌশল

কোন কোন দলের কয়জন সদস্য নিয়ে বাংলাদেশের বিপ্লবী সরকারের উপদেষ্টা পরিষদ গঠিত হয়? – আওয়ামী লীগ, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ভাসানী), ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (মোজাফফর), কমিউনিস্ট পার্টি এবং কংগ্রেস-এ পাঁচটি দল থেকে প্রতিনিধি নিয়ে ৯ সদস্যবিশিষ্ট পরিষদ গঠিত হয়।

কোন দু’জন কূটনৈতিক কবে প্রথম বাংলাদেশের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করেন? – নয়াদিল্লিস্থ পাকিস্তান হাই কমিশনের কে.এম. সাহাবুদ্দিন ও আমজাদুল হক; ৬ এপ্রিল ১৯৭১ প্রথম বাংলাদেশের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করেন।

সর্বপ্রথম কবে, কোন বিদেশী মিশনে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলিত হয়? – ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের রাজধানী কলকাতাস্থ বাংলাদেশ মিশনে ১৮ এপ্রিল, ১৯৭১ সর্বপ্রথম বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলিত হয়।

১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে কয়টি সাংগঠনিক শ্রেণী ছিল? – তিনটি। যথা : ১. নিয়মিত বাহিনী, ২. সেক্টর বাহিনী ও ৩. গেরিলা বাহিনী।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের সর্বাধিনায়ক কে ছিলেন? – শেখ মুজিবুর রহমান।

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের প্রধান সেনাপতি কে ছিলেন? – এম এ জি ওসমানী।

প্রবাসী বাংলাদেশ সরকারের ক্যাম্প বা অফিস কোথায় ছিল? – ভারতের কলকাতাস্থ ৮ নম্বর থিয়েটার রোড।

মুজিবনগরে কোন তারিখে স্বাধীনতা ঘোষণা করা হয়েছিল? – ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল।

বাংলাদেশে গণপ্রজাতন্ত্রের ঘোষণা হয়েছিল কোন তারিখে? – ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল।

বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার গঠিত হয়েছিল কোথায়? – কুষ্টিয়ার মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলার ভবেরপাড়া গ্রামে (বর্তমান মুজিবনগর)।

অস্থায়ী সরকারের সদস্য সংখ্যা কত ছিল? – ৯ জন।

প্রবাসী সরকারের রাষ্ট্রপতি কে ছিলেন? – শেখ মুজিবুর রহমান।

“এ দেশের মানুষ চাই না, মাটি চাই” -এটি কার উক্তি? – ইয়াহিয়া খানের।

অস্থায়ী সরকার দেশের বেসামরিক আঞ্চলিক কাঠামোকে কত ভাগে ভাগ করে? – ১১টি (১১টি সেক্টরের অনুরূপ)।

অস্থায়ী সরকারের ঘোষণাপত্র পাঠ করেন কে? – অধ্যাপক ইউসুফ আলী।

বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা কার নেতৃত্বে গোপন বেতার কেন্দ্র তৈরি করেন? – ড. নুরুল উল্লাহ।

লাল সূর্যের মাঝখানে মানচিত্র খচিত বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় পতাকার নকশাঁ করেন কে? – শিব নারায়ণ দাশ।

ছাত্রলীগের জয় বাংলা বাহিনী প্রদত্ত কুচকাওয়াজে বঙ্গবন্ধুকে দেয়া সালামের নেতৃত্ব দেন কারা? – ইপিআর-এর ৪ নং উইংয়ের একটি সুসজ্জিত দল ক্যাপ্টেন মাহবুবুল হাসানের নেতৃত্বে।

কোন ফরাসি সাহিত্যিক মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণের জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেন? – আদ্রেঁ মায়াঁরা।

জেনারেল ওসমানী কবে বাংলাদেশের সেনাপ্রধান নিযুক্ত হন? – ১৮ এপ্রিল, ১৯৭১।

বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকারের প্রথম বিমান বাহিনী প্রধান কে ছিলেন? – গ্রুপ ক্যাপ্টেন এ. কে. খন্দকার।

সাইমন ড্রিং কে? বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে তাঁর অবদান কী? – ১৯৭১ সালে ঢাকায় কর্মরত ব্রিটিশ সাংবাদিক। তিনি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ১৯৭১ সালে পাক দখলদার বাহিনীর হত্যাযজ্ঞ প্রত্যক্ষ করেন। একুশে টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

বাংলাদেশর মুক্তিযুদ্ধের সময় ঢাকা শহর কোন সেক্টরের অধীনে ছিল? – ২ নম্বর সেক্টর।

স্বাধীনতা যুদ্ধকালে বাংলাদেশকে কয়টি সেক্টরে ভাগ করা হয়েছিল? – ১১টি।

মুক্তিযুদ্ধে প্রথম কারা সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তোলে? – ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্ট।

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে ব্রিগেড আকারে কয়টি ফোর্স গঠিত হয়েছিল এবং কী কী? – ৩টি। যথা : (ক) জেড. ফোর্স (খ) এস. ফোর্স ও (গ) কে. ফোর্স। উল্লেখ্য, ফোর্সগুলোর নামকরণ করা হয় ফোর্সের কমান্ডারের নামের আদ্যাক্ষর অনুযায়ী।

কার নির্দেশে, কে রণাঙ্গনকে ১১টি সেক্টরে ভাগ করেছিলেন? – অস্থায়ী সরকারের প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদের নির্দেশে কর্ণেল এম. এ. জি. ওসমানী।

বাংলাদেশের অভ্যন্তরে থেকে কারা মুক্তিযুদ্ধ করে? – কাদেরিয়া বাহিনী, কমরেড তোহা ও সিকদার।

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ একজন ইতালির নাগরিক মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর নাম কী? – মাদার মারিও ভেরেনজি, তিনি ১৯৭১ সালের ৪ এপ্রিল নিহত হন।

স্বাধীনতা যুদ্ধে অর্থ সংগ্রহের জন্য বিদেশী কোন কবিদ্বয় কবিতা পাঠের আয়োজন করেছিলেন? – রাশিয়ার ইয়েভগেনি ইয়েভ তুসেস্কার ও আমেরিকার অ্যালেন গিনসবার্গ।

মুক্তিযুদ্ধকালীন কলকাতায় অবস্থিত স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের পরিচালক কে ছিলেন? – শামসুল হুদা চৌধুরী।

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে ‘চরমপত্র’ নামক একটি কথিকা প্রচারিত হয়। সেই কথিকার পাঠক কে ছিলেন? – এম. আর. আখতার মুকুল।

যুদ্ধকালীন সময়ে শেখ মুজিবও রহমানকে কোথায় বন্দী করে রাখা হয়েছিল? – পাকিস্তানের করাচি শহরের মিয়াওয়ারি কারাগারে।

ভারত-বাংলাদেশ যৌথ বাহিনী কবে গঠিত হয়? – ২১ নভেম্বর ১৯৭১।

যৌথ কমান্ডের সেনাধ্যক্ষ কে ছিলেন? – জেনারেল এ. কে. খান নিয়াজী।

জাতীয় পতাকার নকশা প্রথম কোথায় তৈরি হয়? – প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরে বাংলা হলে।

বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা কবে গৃহীত হয়? – ১৭ জানুয়ারী ১৯৭২।

বাংলা (দেশ ও ভাষা) নামের উৎপত্তির বিষয়টি কোন গ্রন্থে সর্বাধিক উল্লেখিত হয়েছে? – আইন-ই-আকবরী।

কোন দেশ, কখন প্রথম বাংলাদেশকে স্বীকৃতিদান করে? – ভারত সর্বপ্রথম ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশকে স্বীকৃতিদান করেন।

মুক্তিযুদ্ধকালীন কোন তারিখে বুদ্ধিজীবীদের উপর ব্যাপক হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়? – ১৪ ডিসেম্বর, ১৯৭১।

বাংলাদেশে বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত হয় কোন তারিখে? – ১৪ ডিসেম্বর।

বাংলাদেশের প্রতি প্রথম আনুগত্য প্রকাশ করেন পাকিস্তানের কোন হাইকমিশন অফিস প্রধান? – এম, হোসেন আলী।

বাংলাদেশকে স্বীকৃতিদানকারী দ্বিতীয় রাষ্ট্র কোনটি? – ভুটান (প্রথম ভারত, ৬ ডিসেম্বর ১৯৭২)।

কোন আরব দেশ প্রথম বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়? – ইরাক। (প্রথম ইউরোপীয় দেশ পূর্ব জার্মানি)

বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দানকারী সর্বশেষ দেশ কোনটি? – ব্রু নাই, ১৯৮৫ সালে। [সূত্র : পররাষ্ট্র, ১ এপ্রিল ২০১০]

শেখ মুজিব কত তারিখে পাকিস্তান কারাগার থেকে মুক্তি পান? – ৭ জানুয়ারি ১৯৭২।

বঙ্গবন্ধু কবে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করে? – ১০ জানুয়ারি ১৯৭২।

পাকিস্তান সরকার বাংলাদেশকে কবে স্বীকৃতি দেয়? – ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট।

কবে ২৬ মার্চ তারিখকে প্রথম জাতীয় দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়? – ১৯৮০ সালে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে ব্যবহৃত ভারতীয় কোন যুদ্ধবিমান মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে হস্তান্তর করা হয়? – হকার হান্টর (২২ জুলাই ২০১৫)।

পাক বাহিনীর আত্মসমর্পণ ও বাংলাদেশের অভ্যুদয়

বাংলাদেশ কবে পাক হানাদার মুক্ত হয়? – ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর।

কোন জেলা প্রথম শত্রুমুক্ত হয় এবং কত তারিখে? – যশোর; ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর।

১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানের পক্ষে কে আত্মসমর্পণ করেন? – পাকিস্তানের ইস্টার্ন কমান্ডের অধিনায়ক লে. জেনারেল আমীর আব্দুল্লাহ খান নিয়াজী। (পাকিস্তানের পক্ষে তিনি বাংলাদেশ ও ভারতের সম্মিলিত মিত্র ও মুক্তিবাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় প্রধান সেনাপতি লে. জেনারেল জগজিৎ সিং আরোরা’র নিকট আত্মসমর্পণ করেন।)

আত্মসমর্পন অনুষ্ঠান কোথায় পরিচালিত হয়? – ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যোন)।

১৬ ডিসেম্বর আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের পক্ষে কে প্রতিনিধিত্ব করেন? – তৎকালীন গ্রুপ ক্যাপটেন এ. কে. খন্দকার।

কতজন পাকিস্তানী সৈন্য যৌথ বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করেন? – ৯৩ হাজার ৭ শত জন।

কবে বাংলাদেশের চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়? – ১৬ ডিসেম্বর ১৯৭১।

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের প্রথম নির্বাচন কবে অনুষ্ঠিত হয়? – ৭ মার্চ ১৯৭৩।

বাংলাদেশের জাতীয় দিবস কবে? – ২৬ মার্চ।

বাংলাদেশের প্রথম প্রধান সেনাপতি কে ছিলেন? – জেঃ আতাউল গনি ওসমানি।

No comments