বইয়ে খোঁজার সময় নাই
সব কিছু এখানেই পাই

সাধারণ জ্ঞান : বাঙালী জাতির অভ্যুদ্বয়

বাঙালী জাতির অভ্যুদ্বয়
বাঙ্গালী জাতির পরিচয় কি? – শংকর জাতি হিসেবে।

বাংলা ভুমি খন্ডের প্রাচীন জনপদগুলোর নাম কি কি? – গৌড় - (পুন্ড্রু, বরেন্দ্রীয়, রাঢ়), সুহ্ম - (তাম্র, লিপ্পি, সমতট), বঙ্গ - (বঙ্গাল, হরিকেল)

রাজা শশাঙ্কের শাসনামলের পর বঙ্গ দেশ কয়টি জনপদে বিভিক্ত ছিল? – ৩টি । যথাঃ পুন্ড্রু, গৌড়, বঙ্গ।

প্রাচীন জনপদ পুন্ড্রের রাজধানীর ধ্বংশাবশেষ বর্তমান বাংলাদেশের কোথায় পাওয়া যায়? – বগুড়া জেলার মহাস্থানগড়ে।

দেশবাচক নাম হিসেবে বাংলা শব্দের ব্যবহার কখন প্রয়োগ হয় ? – মুসলিম শাসনামলের প্রথম দিকে।

সম্রাট আকবরের আমলে সমগ্র বঙ্গদেশ কি নামে পরিচিতি ছিল ? – সুবহ-ই-বাঙ্গালাহ নামে।

Bengal এবং Bangla কোন শব্দের রুপান্তর? – ফারসী ‘বাঙ্গালহ্’ শব্দের।

কোন গ্রন্থে বাংলা শব্দের প্রথম ব্যবহার হয়েছে? – আইন-ই-আকবরী গ্রন্থে।

সমগ্র বাংলাদেশ ‘বঙ্গ’ নামে ঐক্যবদ্ধ হয় কোন আমলে? – পাঠান আমলে।

প্রাচীন কর্ণসুবর্ণ বলতে কোন অঞ্চলকে বুঝায়? – আধুনিক মুর্শিদাবাদ জেলার রাঙামাটি গ্রামকে।

আর্যগণ কবে বাংলাদেশে আগমন করে? – ২০০০ খ্রিঃ পূর্বাব্দে।

আর্যগণ আগমনের পূর্বে এ দেশে কাদের বসবাস ছিল? – অনার্যদের

চীনা পরিব্রাজক হিউ-এন-স্যঙ কবে বাংলায় আগমন করেন ? – সপ্তম শতকে।

বাংলার শাসন পদ্ধতি সুষ্পষ্ট বিবরণ পাওয়া যায় কোন যুগে ? – গুপ্ত যুগে।

কোন সম্রাটের আমলে এ দেশে বৌদ্ধ ধর্মের প্রসার ঘটে ? – সম্রাট অশোকের আমলে।

প্রাচীন সভ্যতার অভ্যুদয় ঘটে কোথায়? – এশিয়া ও আফ্রিকা মহাদেশ।

প্রাচীন বাংলাদেশে কয়টি জনপদ বিভক্ত ছিল ? – তিনটি জনপদে।

আর্যদের ধর্মগ্রন্থের নাম কি ? – বেদ।

বৈদিক যুগের শিক্ষার ভাষা কি ছিল ? – সংস্কৃত।

বাংলার আদি জনগোষ্ঠীর কোন ভাষাভাষা ছিল ? – অষ্ট্রিক।

সিন্ধু সভ্যতা কোন যুগের? – তাম্র যুগের।

সিন্ধু সভ্যতা কখন আবিস্কার হয়? – ১৯২২ সালে।

গৌতম বুদ্ধের জন্ম স্থান কোথায়? – লুম্বিনী (নেপাল)।

বাঙ্গালী জাতির পরিচয় কি? – শংকর জাতি হিসেবে।

বাংলা ভুমি খন্ডের প্রাচীন জনপদগুলোর নাম কি কি? – গৌড় -(পুন্ড্রু, বরেন্দ্রীয়, রাঢ়), সুহ্ম-(তাম্র, লিপ্পি, সমতট), বঙ্গ-(বঙ্গাল, হরিকেল)

রাজা শশাঙ্কের শাসনামলের পর বঙ্গ দেশ কয়টি জনপদে বিভিক্ত ছিল? – ৩টি । যথাঃ পুন্ড্রু, গৌড়, বঙ্গ।

প্রাচীন জনপদ পুন্ড্রের রাজধানীর ধ্বংশাবশেষ বর্তমান বাংলাদেশের কোথায় পাওয়া যায়? – বগুড়া জেলার মহাস্থানগড়ে।

দেশবাচক নাম হিসেবে বাংলা শব্দের ব্যবহার কখন প্রয়োগ হয় ? – মুসলিম শাসনামলের প্রথম দিকে।

সম্রাট আকবরের আমলে সমগ্র বঙ্গদেশ কি নামে পরিচিতি ছিল ? – সুবহ-ই-বাঙ্গালাহ নামে।

Bengal এবং Bangla কোন শব্দের রুপান্তর? – ফারসী ‘বাঙ্গালহ্’ শব্দের।

কোন গ্রন্থে বাংলা শব্দের প্রথম ব্যবহার হয়েছে? – আইন-ই-আকবরী গ্রন্থে।

সমগ্র বাংলাদেশ ‘বঙ্গ’ নামে ঐক্যবদ্ধ হয় কোন আমলে? – পাঠান আমলে।

প্রাচীন কর্ণসুবর্ণ বলতে কোন অঞ্চলকে বুঝায়? – আধুনিক মুর্শিদাবাদ জেলার রাঙামাটি গ্রামকে।

আর্যগণ কবে বাংলাদেশে আগমন করে? – ২০০০ খ্রিঃ পূর্বাব্দে।

আর্যগণ আগমনের পূর্বে এ দেশে কাদের বসবাস ছিল? – অনার্যদের

চীনা পরিব্রাজক হিউ-এন-স্যঙ কবে বাংলায় আগমন করেন ? – সপ্তম শতকে।

বাংলার শাসন পদ্ধতি সুষ্পষ্ট বিবরণ পাওয়া যায় কোন যুগে ? – গুপ্ত যুগে।

কোন সম্রাটের আমলে এ দেশে বৌদ্ধ ধর্মের প্রসার ঘটে ? – সম্রাট অশোকের আমলে।

প্রাচীন সভ্যতার অভ্যুদয় ঘটে কোথায়? – এশিয়া ও আফ্রিকা মহাদেশ।

প্রাচীন বাংলাদেশে কয়টি জনপদ বিভক্ত ছিল ? – তিনটি জনপদে।

আর্যদের ধর্মগ্রন্থের নাম কি ? – বেদ।

বৈদিক যুগের শিক্ষার ভাষা কি ছিল ? – সংস্কৃত।

বাংলার আদি জনগোষ্ঠীর কোন ভাষাভাষা ছিল ? – অষ্ট্রিক।

সিন্ধু সভ্যতা কোন যুগের? – তাম্র যুগের।

সিন্ধু সভ্যতা কখন আবিস্কার হয়? – ১৯২২ সালে।

গৌতম বুদ্ধের জন্ম স্থান কোথায়? – লুম্বিনী (নেপাল)।

1 comment:


Show Comments